বরিশালে লুট হওয়া স্বর্ণালঙ্কার ও অস্ত্রসহ ৭ ‘ডাকাত’ গ্রেপ্তার

গ্রেপ্তারদের দেওয়ার তথ্যে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি, অস্ত্র-গুলি ও লুট হওয়া স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা হয়।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Sept 2022, 12:41 PM
Updated : 22 Sept 2022, 12:41 PM

বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় তিনমাস আগের একটি ডাকাতির মামলায় সাত জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে স্বর্ণালঙ্কার, টাকা ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার বরিশালের এসপি নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হেলালউদ্দিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ঢাকা ও বরিশালসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ওই সাত ‘ডাকাতকে’ গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারদের দেওয়ার তথ্যে চায়নিজ কুড়াল, ছোরা, চাকু, প্লায়ার্স, রেঞ্জ, দেশে তৈরি পিস্তল, আটটি গুলি, স্বর্ণের নাক ফুল, দুই জোড়া কানের দুল ও একটি গলার হার জব্দ করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন- বরগুনার আমতলী উপজেলার কলাগাছিয়া গ্রামের প্রয়াত আমজাদ হাওলাদারের ছেলে দেলোয়ার হোসেন দিলু (৪৭), বেতিপাড়া গ্রামের আব্দুল কাদের প্যাদার ছেলে তৈয়ব আলী ওরফে হারুন (৫৭), সৈয়দ ফকিরের ছেলে আমিনুল ফকির (২৪), পটুয়াখালীর সদরের তিতকাটা গ্রামের সোহরাব সিকদারের ছেলে ছগির সিকদার সবুজ (২৫), পসারিবুনিয়া গ্রামের প্রয়াত আনোয়ার মীরার ছেলে মোতালেব মীরা পনু (৩৯), বরিশালের গৌরনদী উপজেলার চর রমজানপুরের সেলিম সরদারের ছেলে রবিউল ইসলাম পারভেজ (২০) ও নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার উত্তর চর কাকড়ার ইউসুফ আলীর ছেলে মো. শাহীন আলম (৩১)।

সংবাদ সম্মেলনে এসপি ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, গত ১১ জুন গৌরনদী উপজেলার কেফায়েতনগর এলাকার তানিয়া বেগমের ঘরের জানালার গ্রিল কেটে ডাকাতরা ভেতরে প্রবেশ করে। পরে হত্যার হুমকি দিয়ে পরিবারের সদস্যদের হাত-পা-মুখ বেঁধে নগদ অর্থ, স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইল ফোন লুট করে। এ ঘটনায় গৌরনদী মডেল থানায় মামলা করা হয়।

“মামলার পর গৌরনদী থানার পরিদর্শক মো. হেলালউদ্দিনের নেতৃত্বে একটি দল ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে সাত ডাকাতকে গ্রেপ্তার করে। তাদের মধ্যে পারভেজ ও পনু বুধবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।”

পরিদর্শক হেলালউদ্দিন জানান, গ্রেপ্তারদের দেওয়া তথ্যে টানা তিনদিন ধরে অভিযান চালিয়ে ডাকাত দলটির হোতা দেলোয়ার হোসেন দিলুকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় ১৯টি মামলা আছে। দিলু ও হারুনের দেওয়া তথ্যে ঢাকার পূর্ব জুরাইন এলাকার দুলাল স্বর্ণালঙ্কারের মালিকানাধীন সুমাইয়া জুয়েলার্স থেকে লুটের স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা হয়।

হেলাল জানান, এ ছাড়া বুধবার মধ্যরাতে গৌরনদী উপজেলার কেফায়েতনগর এলাকায় মাহিলারা গ্রামের বাসিন্দা জিনাত আলী ফকিরের ছেলে ফটিক ফকিরের মুদির দোকানে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় দোকানের পাটাতনের নিচ থেকে প্লাস্টিকের বস্তা থেকে একটি দেশীয় পিস্তল, আটটি গুলি, একটি লোহার তৈরি রেঞ্জ, একটি প্লায়ার্স, চাপাতি, দা ও নগদ দুই হাজার টাকা জব্দ করা হয়।”

ডাকাতি ও চুরির স্বর্ণালঙ্কার কেনাবেচার সহযোগী শাহীন আলম নামে একজনকে গ্রেপ্তার করা হলেও ফটিক ফকিরকে পাওয়া যায়নি বলে পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান।

গ্রেপ্তার ডাকাতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে জানিয়েন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গৌরনদী সার্কেল) এসএম আল বেরুনী।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক