বঙ্গবন্ধু সেতুর পিলারে ধাক্কা দিয়ে ডুবেছে আরো ২ বাল্কহেড

১১ সেপ্টেম্বর একটি বাল্কহেড ডুবে নিখোঁজ এক শ্রমিকের সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি।

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 Sept 2022, 04:11 PM
Updated : 13 Sept 2022, 04:11 PM

দুই দিনের ব্যবধানে আরও দুটি বালু বোঝাই বাল্কহেড বঙ্গবন্ধু সেতুর পিলারে ধাক্কা দিয়ে ডুবে গেছে।  

 মঙ্গলবার দুপুর ১২টা থেকে ১টার মধ্যে সেতুর ৯ ও ১০ নম্বর পিলারে ঘটনা দুটি ঘটে বলে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার ওসি মোসাদ্দেক হোসেন জানান।

 এর আগে ১১ সেপ্টেম্বর ৯ নম্বর পিলারে ধাক্কা লেগে একটি বাল্কহেড ডুবে এক শ্রমিক নিখোঁজ হন; এখনও তার খোঁজ পাওয়া যায়নি।

 প্রতিদিনই শত শত বাল্কহেড বালু বোঝাই দিয়ে এ নৌ-পথে চলাচল করে। এসবের মধ্যে ‘ক্রটিপূর্ণ ও ফিটনেসবিহীন’ বাল্কহেডের ধাক্কায় সেতুর পিলারগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বলে জানিয়েছেন সেতু সংশ্লিষ্টরা।   

ওসি মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, “ডুবে যাওয়া বাল্কহেড দুটির একটি সিরাজগঞ্জ সদরের বালুমহাল থেকে বালু নিয়ে নারায়ণগঞ্জের দিকে ও অপরটি ফরিদপুর সিএনবি ঘাটের দিকে যাচ্ছিল। বাল্কহেড দুটিতে থাকা শ্রমিকরা সাঁতরে তীরে ওঠায় হতাহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি।”

নারায়ণগঞ্জের দিকে যাওয়া বাল্কহেডে থাকা শ্রমিক আক্তার হোসেন বলেন, “নদীতে অতিরিক্ত স্রোতের কারণে পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লাগার পর বাল্কহেডটি ডুবে যায়। ঘটনার সময় বাল্কহেডে থাকা পাঁচ শ্রমিক লাইফ জ্যাকেট পরে সাঁতরে রান্ধুনীবাড়ি চরে এসে উঠেছি; সবাই সুস্থ আছি।”

 বঙ্গবন্ধু সেতুর সাইট অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান মাসুদ বাপ্পী বলেন, “প্রায়ই বালু বোঝাই বাল্কহেড সেতুর পিলারে ধাক্কা দিচ্ছে। এতে সেতুর পিলারে ক্ষতি হতে পারে। বালুভর্তি বাল্কহেড যেন সেতুর নিচ দিয়ে চলাচল করতে না পারে সে বিষয়ে দ্রুত ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলা হবে। তবে এসব বিষয় দেখার দায়িত্ব নৌ-পুলিশের।”

 এ বিষয়ে বিকালে নৌ-পুলিশ বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম ফাঁড়ির ইনচার্জ আতাউর রহমান বলেন, “সেতুর সঙ্গে আটকে থাকা বাল্কহেডটি কিছু সময় পর নদীতে ডুবে যায়। ‘ক্রটিপূর্ণ’ ও ‘ফিটনেস’ না থাকার জন্য নয়, নদীতে অতিরিক্ত স্রোতের কারণে বাল্কহেড ডুবির ঘটনা ঘটছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক