ফরিদপুরের ৩ ইউনিয়নে ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জয়

জেলার মধুখালী উপজেলার আড়পাড়া, ডুমাইন ও মেগচামী ইউনিয়নে বুধবার এই ভোট হয়।

ফরিদপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 July 2022, 04:16 AM
Updated : 28 July 2022, 04:32 AM

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলায় তিন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সব কটিতে নৌকার প্রার্থীরা হেরে গেছেন; জয় পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণের পর গণনা শেষে রাতে ফল ঘোষণা করেন রিটার্নি কর্মকর্তা।

উপজেলার আড়পাড়া ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাদিকুর রহমান সাজ্জাদ মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ২৭৬২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. বদরুজ্জামান বাবু ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২২৬৭ ভোট। আর নৌকার আরমান হোসেন বাবু পেয়েছেন ২২১ ভোট।

ডুমাইন ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহ আসাদুজ্জামান তপন আনারস প্রতীকে ৩৮৫১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকার খুরশীদ আলম মাসুম পেয়েছেন ৩২৩৬ ভোট।

মেগচামী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. সাব্বির উদ্দিন শেখ চশমা প্রতীক নিয়ে ৪৪৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকার মো. হাসান আলী খাঁন পেয়েছেন ২৬২৮ ভোট।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবিএম আফজাল হোসেন বলেন, বুধবার মধুখালী উপজেলার তিন ইউনিয়ন পরিষদ ও মধুখালী পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে উপ-নির্বাচনে ইভিএম মাধ্যমে ভোট হয়। ভোটে আড়পাড়া ইউনিয়নে সাদিকুর রহমান সাজ্জাদকে, ডুমাইন ইউনিয়নে শাহ আসাদুজ্জামান তপনকে এবং মেগচামী ইউনিয়নে মো. সাব্বির উদ্দিন শেখকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। তারা সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী। তাছাড়া কাউন্সিলর পদে পাঞ্জাবি প্রতীকের কবির মণ্ডলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে।

কবির মণ্ডল পেয়েছেন ৮৭১ ভোট, তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী গোলাম মোস্তফা পানির বোতলে পেয়েছেন ৫২৯ ভোট।

নির্বাচন কর্মকর্তা জানান, আড়পাড়া ইউনিয়নে মোট ভোটার ১০ হাজার ৩৮১ জন। চেয়ারম্যান পদে নয়জন, সংরক্ষিত সদস্য পদে ১২ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

ডুমাইন ইউনিয়নে মোট ভোটার নয় হাজার ৪৯ জন। চেয়ারম্যান পদে দুইজন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে নয়জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩১ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

মেগচামী ইউনিয়নের মোট ভোটার ১১ হাজার ৬১৪ জন। চেয়ারম্যান পদে তিনজন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১১ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৯ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

নির্বাচনে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্রিয় ছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, আনসার, গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা।

দেশের মেয়াদ-উত্তীর্ণ চারটি পৌরসভা এবং ১৫টি ইউনিয়ন পরিষদের নতুন জনপ্রতিনিধি নির্বাচনে বুধবার সারাদেশে ভোট হয় ইভিএমে।

একই সঙ্গে হয় তিন পৌরসভা, দুই উপজেলা ও ৩৩ ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচন এবং বিভিন্ন কারণে আটকে থাকা ১৩ ইউপির পুননির্বাচন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক