ইবির টেন্ডার নিয়ে যুবকের মস্তক বিচ্ছিন্ন, তিনজনের যাবজ্জীবন

২০০৯ সালে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের টেন্ডার দখলকে কেন্দ্র করে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

কুষ্টিয়া প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2022, 06:38 PM
Updated : 29 Nov 2022, 06:38 PM

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের টেন্ডার দখলকে কেন্দ্র করে যুবকের দেহ থেকে মস্তক বিচ্ছিন্নের মামলায় ১৩ বছর পর তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে কুষ্টিয়ার একটি আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ অতিরিক্ত আদালত-১ এর বিচারক মো. তাজুল ইসলাম আসামিদের অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন বলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী জানান।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সদর উপজেলার পশ্চিম আবদালপুর গ্রামের বড় কালু ওরফে আলী রেজা সিদ্দিক ওরফে বুলবুল (৪৩), মৃত্তিকাপাড়া গ্রামের মনোয়ার হোসেন ওরফে মনো (৪৫) এবং মাইজপাড়া গ্রামের লিয়াকত (৪৫)।

আসামিরা বিচার চলাকালে জামিন নিয়ে পলাতক হন।

মামলার বরাত দিয়ে আইনজীবী বলেন, ২০০৯ সালের ২৭ জুন বিকালে ঝিনাইদহের গোলকনগর গ্রামের আজিবর বিশ্বাসের ছেলে লিটন বিশ্বাস (৩০) বাড়ি থেকে বাইসাইকেল নিয়ে বেরিয়ে আর ফিরেননি। পরদিন সকালে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটকের সামনে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের পূর্বপাশে দেহ থেকে মস্তক বিচ্ছিন্ন অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় পরদিন ২৮ জুন লিটনের বাবা বাদী হয়ে অজ্ঞাত পরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানায় হত্যা মামলা করেন। ২০১১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি এসআই মুজিবুর রহমান ২৪ জনের নামে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

আইনজীবী অনুপ কুমার নন্দী বলেন, আদালত তিনজনের যাবজ্জীবন ছাড়াও প্রত্যেককে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের সাজার আদেশ দিয়েছেন। বাকি ২১ জনকে মামলা থেকে খালাস দিয়েছেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক