ময়মনসিংহে বেল্টের আঘাতে এক ব্যক্তির মৃত্যু, সৎ ছেলে পলাতক

প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর জুলকাস দক্ষিণ কালীবাড়ি এলাকার খোরশেদা বেগমকে বিয়ে করেন।

ময়মনসিংহ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 March 2024, 04:59 PM
Updated : 30 March 2024, 04:59 PM

ময়মনসিংহে কোমরের বেল্টের আঘাতে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ওই ব্যক্তির সৎ ছেলে পলাতক রয়েছেন।

শনিবার সকাল ১০টায় নগরীর ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ কালীবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান। 

নিহত জুলকাস উদ্দিন (৫২) ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের চর ঈশ্বরদিয়া নেয়ামত মণ্ডলের বাড়ির ফয়জুদ্দিনের ছেলে। প্রথম পক্ষে জুলকাসের চার মেয়ে রয়েছে। তিনি শহরের একটি ওয়েল্ডিংয়ের দোকানে কাজ করতেন।  

প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর জুলকাস ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ কালীবাড়ি এলাকার খোরশেদা বেগমকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। তারা দক্ষিণ কালীবাড়িতেই থাকতেন। খোরশেদা বেগমের প্রথম পক্ষের দুই ছেলে রয়েছে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, সম্প্রতি জুলকাস তার কাজের দোকান থেকে একসঙ্গে ৭০ হাজার টাকা পান। এটা জেনে যায় খোরশেদার ছোট ছেলে ফয়সাল আহমেদ (২৫)। তিনি তার মায়ের কাছে এই টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা দাবি করেন এবং না দিলে মারধরের হুমকিও দেন।

তখন জুলকাস ঘরেই ছিলেন। তিনি বেরিয়ে এলে ফয়সালের সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে ফয়সাল তার কোমরের বেল্ট খুলে জুলকাসের মাথা লক্ষ্য করে আঘাত করেন। আঘাতটি কানের উপরে লাগে। জুলকাস হেঁটে কিছুদূর গিয়েই পড়ে যান। তখন ফয়সাল কৌশলে পালিয়ে যায়। 

ফয়সালের বিরুদ্ধে আরও দুটি মামলা রয়েছে জানিয়ে ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ফয়সালকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।