টেকনাফে হত্যা মামলার আসামির দুই হাতের কব্জি কর্তন

আহত ছিদ্দিক ইউপি সদস্য এনামুল হকের বড় ভাই মার্কিন মিয়া হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছিলেন।

টেকনাফ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Nov 2022, 10:49 AM
Updated : 27 Nov 2022, 10:49 AM

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় এক বৃদ্ধের দুই হাতের কব্জি কেটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। 

শনিবার বিকালে উপজেলা সদর ইউনিয়নের নাজিরপাড়া মাঠ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে টেকনাফ মডেল থানার ওসি মো. আব্দুল হালিম জানান। 

আহত মোহাম্মদ ছিদ্দিক আহমদ (৬৫) টেকনাফ সদর ইউনিয়নের নাজিরপাড়ার বাসিন্দা নজির আহমদের ছেলে। তিনি স্থানীয় ইউপি সদস্য এনামুল হকের বড় ভাই মার্কিন মিয়া হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছিলেন। 

ছিদ্দিক আহমদের মেঝ মেয়ে ছেনুয়ারা বেগম বলেন, “আমার বাড়ি থেকে মোটরসাইকেলে করে বাবা বাড়ি যাচ্ছিলেন। পথে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য এনামুল হক ওরফে এনাম মেম্বারের নেতৃত্বে চাঁন মিয়া, শাহাব উদ্দীন, নূরুল হকসহ আরও কয়েকজন মিলে বাবার মোটরসাইকেলে গতিরোধ করে।“ 

“বাবা কিছু বুঝে উঠার আগেই টেনেহিঁচড়ে পাশের মাঠে নিয়ে মাটিতে ফেলে লম্বা দা দিয়ে কুপিয়ে দুই হাতের কব্জি বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। এ সময় লোকজন এগিয়ে এলে হামলাকারীরা কব্জি দুটি নিয়ে পালিয়ে যান।” 

স্থানীয়রা ছিদ্দিক আহমদকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এরপর খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক নাসিম ইকবাল বলেন, “দুই হাতের কব্জি কাটা অবস্থায় একজন ব্যক্তিকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। পরে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।” 

এ ব্যাপারে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের সদস্য এনামুল হক বলেন, “ওই ঘটনায় আমি কোনোভাবেই জড়িত না। ঘটনা সময় আমি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে মহেষখালীয়া পাড়ার সড়ক দিয়ে এলাকায় ফিরছিলাম। এলাকায় এসে জানতে পারলাম একটি ঘটনা ঘটেছে।” 

টেকনাফ মডেল থানার ওসি আব্দুল হালিম বলেন, কেটে নেওয়া হাতের কব্জি দুটি উদ্ধারের চেষ্টা হচ্ছে। এলাকায় দুটি পক্ষের মধ্যে বিরোধের জেরে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ঘটনা ঘটে আসছে।” 

ছিদ্দিক মিয়া ও এনামুল হকের মধ্যে র্দীঘদিন ধরে জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। তাদের মধ্যে একাধিকবার হামলা ও মামলার ঘটনাও ঘটে। ২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর দুপুরে এনামুল হকের বড় ভাই মার্কিন মিয়াকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। সেই হত্যা মামলার প্রধান আসামি করা হয় ছিদ্দিক মিয়াকে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক