‘গুম-খুন’: স্বজনদের নিয়ে বিএনপির মানববন্ধন রোববার

“ক্ষমতাসীনরা এরকম একটি পরিস্থিতি তৈরি করেছে- যেখানে সত্য কথা, মানুষের অধিকারের পক্ষে কথা বলা সবচাইতে বড় অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়,” বলেন রিজভী।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Dec 2023, 01:07 PM
Updated : 8 Dec 2023, 01:07 PM

ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য জেলা সদরে ‘গুম-খুনের শিকার’ ব্যক্তিদের স্বজনদের নিয়ে আগামী রোববার মানবাধিকার দিবসে মানবন্ধন করবে বিএনপি।

শুক্রবার বিকালে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, ‘‘আমাদের পরবর্তী কর্মসূচি আগামী ১০ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে। সেদিন ঢাকা শহরে গুম-খুনের পরিবার এবং যে সমস্ত নাগরিক গুম-খুন হয়েছেন, সেই পরিবারের সমন্বয়ে এই মানবন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। ঢাকা মহানগরসহ জেলা সদরে এই কর্মসূচি পালিত হবে।”

ঢাকায় রোববার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ কর্মসূচি হবে জানিয়ে রিজভী বলেন, “ঢাকা মহানগর বিএনপি সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে এবং ঢাকার বাইরে অন্যান্য জেলাসমূহে মানববন্ধনে সাফল্যমণ্ডিত করার জন্য তারা প্রস্তুতি নিয়েছেন।”

রিজভী বলেন, ‘‘সরকারের দিক থেকে সকল বাধা-বিপত্তি যদি আসে- সব কিছুকে প্রতিহত করে অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের প্রতীক হিসেবে এই মানববন্ধন কর্মসূচি সফল করতে হবে।

“ঢাকাসহ সারা দেশের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বলব, তারা এই মানববন্ধন কর্মসূচিতে যে সমস্ত পরিবার নিপীড়ন-নির্যাতনের শিকার হয়েছেন, গুম-খুন হয়েছেন, সেই সব পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এসে আপনারা মানববন্ধনে উপস্থিত করবেন।”

গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় সংঘর্ষের পর বিএনপির সমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়, তখন থেকে দলটি হরতাল-অবরোধের মতো কর্মসূচি দিয়ে যাচ্ছে। গত বুধবার থেকে শুরু হওয়া দশম দফার ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি শেষ হয় শুক্রবার সকাল ৬টায়।

এবার বিএনপি দিয়েছে মানববন্ধন কর্মসূচি, এরপর হরতাল-অবরোধের মতো কর্মসূচি দেবে কি না তা জানায়নি দলটি।

সবশেষ ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি ‘সফল’ হয়েছে দাবি করে সেজন্য নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন রিজভী।

তিনি  বলেন, “এই কর্মসূচি অনাচারের বিরুদ্ধে, অবিচারের বিরুদ্ধে, অত্যাচারের বিরুদ্ধে… একটা কর্তৃত্ববাদী সরকার যে জনগণের কাঁধের ওপর আরব্য উপন্যাসের দৈত্যের মতো চেপে বসেছে যার কাছে মানবতা, মানবাধিকার, মানুষের নাগরিক অধিকার এর কোনো দাম নেই, এর কোনো মূল্য নেই। এই ধরনের একটি সরকারের বিরুদ্ধে…

“আজকে একটি জাতির সমস্ত সম্ভাবনা, একটি জাতির অগ্রগতি, একটি জাতির এগিয়ে যাওয়া সকল কিছুকে স্তব্ধ করে দিয়ে নিজের হাতের ক্ষমতায় ধরে রাখার জন্য একটি জাতির নির্দিষ্ট স্বৈরাচারে রূপান্তরিত হয়েছে আওয়ামী সরকার।”

ক্ষমতাসীনরা দেশ-রাষ্ট্র-সমাজ থেকে ‘সত্য কথা ভুলিয়ে দিতে চাচ্ছে’ মন্তব্য করে রিজভী বলেন, “তারা ন্যায়বিচার বিবেককে অন্তর্হিত করছে, নিরুদ্দেশ করতে চাচ্ছে। এরকম একটি পরিস্থিতি তৈরি করেছে- যেখানে সত্য কথা, মানুষের অধিকারের পক্ষে কথা বলা সবচাইতে বড় অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়, সব দলের অংশগ্রহণের মধ্য একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের কথা বলাকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়, অন্যায় হিসেবে গণ্য করা হয়।

“ব্রুটাল দমনপীড়নের মধ্য দিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের নেতাকর্মী ও নাগরিক সমাজকে এক শোচনীয় অবস্থার মধ্য দিয়ে… কি ভয়ংকর অবস্থা বিরাজ করছে।”

গত ২৪ ঘণ্টায় ২১৫ জনের বেশি বিএনপি নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সাতটি মামলায় সাড়ে আটশ নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে।