পূজা মণ্ডপে গিয়ে ‘ন্যায়-সাম্য’ প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার ফখরুলের

কেরাণীগঞ্জে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বাড়ির পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে গিয়েছিলেন তিনি।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Oct 2022, 06:25 PM
Updated : 4 Oct 2022, 06:25 PM

ক্ষমতাসীনদের ‘দানব’ আখ্যা দিয়ে সরকার হটিয়ে দেশে ‘ন্যায়-সাম্য’ প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার করলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার কেরাণীগঞ্জে দুর্গ পূজার মণ্ডপ পরিদর্শনে গিয়ে তিনি বলেন, “আজকের এই দিনটি যখন আমরা উপদযাপন করছি, আমাদেরকে যখন একটা দানব সরকার নির্যাতন করছে সমগ্র দেশের মানুষকে, সেই সময়ে এই উৎসবের মধ্যেও আমাদেরকে অনেক দূঃখ-কষ্ট নিয়ে চলতে হচ্ছে।

“আজকে আমরা শপথ নেব- আগামী দিনে অতি দ্রুত এই অসুরকে পরাজিত করে সত্য ও ন্যায়, সাম্য ও মানবিক মূল্যবোধকে প্রতিষ্ঠা করব।”

দুর্গা পূজার নবমীতে বিএনপি মহাসচিব কেরাণীগঞ্জে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বাড়ির পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে যান।

সেখানে পৌঁছালে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিমউদ্দিন মাস্টার, নিপুণ রায় চৌধুরী তাকে অভ্যর্থনা জানান।

এ সময় পুণ্যার্থীদের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, “আমি এসেছি আপনাদের সকলের কাছে বিএনপির পক্ষ থেকে, দলের চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে, আমাদের দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষ থেকে শারদীয় দুর্গা উৎসবের শুভেচ্ছা জানানোর জন্য।

“এই যে শারদীয় দুর্গা উৎসব উদযাপিত হচ্ছে এখানে থেকে একটাই কথা যে, দেবী দুর্গার আবির্ভাব হয়েছিল পৃথিবীতে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য, অন্যায়কে পরাজিত করে, অসুরকে পরাজিত করে এবং একই সঙ্গে অসুন্দরকে পরাজিত করে ন্যায় প্রতিষ্ঠা, সত্য প্রতিষ্ঠা এবং সেই সঙ্গে একটা সুন্দর পৃথিবী গড়ে তোলার জন্য তিনি আবির্ভূত হয়েছিলেন।”

ফখরুল বলেন, “১৯৭১ সালে আমরা যখন যুদ্ধ করি সেই যুদ্ধে হিন্দু-মুসলমান-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান সবাই এক যোগে এদেশে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র নির্মাণ করবার জন্য, এদেশে একটি মানুষের অধিকার রক্ষা জন্য আমরা যুদ্ধ করেছিলাম এবং পরবর্তীকালে আমরা কাজ করবার চেষ্টা করেছি। কিন্তু দুর্ভাগ্য আমাদের আজকে ৫০ বছর পরেও আমাদের সেই যে আশা-আকাঙ্ক্ষা সেটা বাস্তবায়িত হতে দেখছি না।”

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে ‘গণতন্ত্রকে ধ্বংস করার জন্য’ কাজ করছে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “রাষ্ট্রের সকল প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করবার জন্য কাজ করেছে, গত কয়েকজন বছরে তারা বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দিয়েছে।

“এখানে দুর্ভাগ্যজনকভাবে গণতন্ত্রের নেত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তারা অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে তারা আটক করে রেখেছে। আমাদের নেতা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে নির্বাসিত করে রেখেছে, আমাদের অসংখ্য নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। আমাদের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে, আমাদের কথা বলার অধিকার কেড়ে নিয়েছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক