জিয়ার জন্মবার্ষিকীতে বিএনপির দুই দিনের কর্মসূচি

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘‘আমরা মহান এই নেতার জন্মবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে পালনের উদ্যোগ নিয়েছি।”

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Jan 2024, 11:13 AM
Updated : 17 Jan 2024, 11:13 AM

দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৮৮তম জন্মবার্ষিকী পালনে দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

বুধবার দুপুরে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা সভা করবে বিএনপি। শুক্রবার ভোরে সারাদেশে দলীয় কার্যালয়ে দলীয় পতাকা উত্তোলন ও সকাল ১১টায় শেরেবাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। এতে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন।

১৯৩৬ সালে ১৯ জানুয়ারি বগুড়ার গাবতলীর বাগবাড়ী গ্রামে জন্ম নেন জিয়াউর রহমান। ১৯৭১ সালের ২৭ মার্চ চট্টগ্রামের কালুরঘাটে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে বঙ্গবন্ধুর পক্ষে স্বাধীনতার ঘোষণা পাঠ করে আলোচনায় আসেন তিনি।

মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনাকারী প্রবাসী বাংলাদেশ সরকার তাকে ‘জেড’ ফোর্সের অধিনায়ক এবং সেক্টর কমান্ডার নিয়োগ করে।

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর নানা ঘটনাচক্রে তিনি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার কেন্দ্রে চলে আসেন। সেনাবাহিনীতে অভ্যুত্থান পাল্টা অভ্যুত্থানের মধ্যে ওই বছরের ৭ নভেম্বরের ঘটনাপ্রবাহের মধ্যে তিনি নিজেকে প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক ঘোষণা করেন। পরে হন রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকার সময়ই ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বরে জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেন জিয়াউর রহমান। রাষ্ট্রপ্রধানের পদে থাকা অবস্থাতে ১৯৮১ সালের ৩০ মে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে এক ব্যর্থ সেনা বিদ্রোহে নিহত হন তিনি।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘‘আমরা মহান এই নেতার জন্মবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে পালনের উদ্যোগ নিয়েছি। দলের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা ‘স্বাধীনতার ঘোষক’, ‘বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা’, ‘আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার’ জিয়াউর রহমানকে স্মরণ করবে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে।”

দিবসটিতে পোস্টার ও সংবাদপত্রে ক্রোড়পত্র প্রকাশ করবে বিএনপি। দলের সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে হবে আলোচনা সভা।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, মামুন আহমেদসহ কেন্দ্রীয় নেতারা ছিলেন।