কেন বিচার হবে না, নিজের দলের লোকও তো জেলে: কাদের

ওবায়দুল কাদের বলছেন, নির্বাচন সামনে রেখে একটি চক্র হিন্দুদের ওপর হামলা চালিয়ে ভারতকে ভুল বার্তা দিতে চায়।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 Oct 2022, 12:04 PM
Updated : 2 Oct 2022, 12:04 PM

গতবছর দুর্গা পূজার সময় হিন্দুদের বাড়িঘর আর উপাসনালয়ে হামলার বিচার সরকার ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির স্বার্থেই’ করবে বলে আশ্বস্ত করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রোববার ঢাকার রামকৃষ্ণ মিশনে দুর্গা পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে গিয়ে তিনি বলেন, গতবারের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেন কেউ করতে না পারে, সেজন্য আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদেরও সতর্ক থাকতে হবে।

হিন্দু সম্প্রদায়ের উদ্দেশে কাদের বলেন, “আপনারা ভয় পাবেন না, আতঙ্কিত হবেন না। এবার আমরা প্রস্তুত। দুর্বৃত্তরা কোনো দলের নয়, এরা যে দলেরই পরিচয় হোক, তাদের প্রতিরোধ করতে হবে, কঠিন শাস্তি দিতে হবে। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি।

“পুজা কমিটি বলেছেন, বিচার হয়নি। কেন বিচার হবে না? বাংলাদেশে কত অপরাধীর বিচার করেছে শেখ হাসিনা। এমনকি নিজের দলের লোকও জেলে। কাজেই যারা হিন্দুদের বাড়িঘর-মন্দিরে হামলা করেছে, সে যে পরিচয়ই হোক; এই দুর্বৃত্তদের ক্ষমা নেই, তাদের বিচারের সম্মুখীন করতেই হবে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির স্বার্থে।"

কাদের বলেন, “নির্বাচন সামনে রেখে একটা অশুভ চক্র আছে, যারা হিন্দুদের ওপর অতর্কিতে হামলা চালিয়ে ভারত সরকারকে জানিয়ে দিতে চায় যে ‘কাজটা আওয়ামী লীগ করেছে, আওয়ামী লীগের হাতে সংখ‌্যালঘুরা নিরাপদ নয়’। এদের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।"

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, "শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চান, শান্তিপূর্ভাবে ধর্মকর্ম করতে দিন। সংলাপ করছেন করুন, সেটা আপনাদের নিজেদের ব‌্যাপার। কিন্তু আমি বলব দুর্গোৎসব শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার বিষয়ে সরকারি দলের পাশাপাশি বিরোধী দলেরও ভূমিকা আছে।”

অন‌্য যে কোনো সময়ের চেয়ে এবার সরকার ‘বেশি সতর্ক’ রয়েছে জানিয়ে কাদের বলেন, “সারা বাংলায় আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা... তারা প্রস্তুত আছে। তারা সতর্ক পাহারায় আছে। বিশৃঙ্খলা, সহিংসতার বিরুদ্ধে এবার অনেক বেশি শক্তিশালী অবস্থায় আছে। তাদের পাশপাশি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরাও আজকে সক্রিয় অবস্থানে রয়েছে।

“কোনো চিন্তা করবেন না। এখন পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে পূজা উদযাপন হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী যথার্থই বলেছেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এই উৎসব সার্বজনীন দুর্গোৎসব।”

আওয়ামী লীগের সময়ে গত বছর ছাড়া আর কখনও পূজায় ‘অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা’ ঘটেনি মন্তব্য করে দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, "শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আছে টানা ১৩ বছর। এই সময়ে ১৩টি দুর্গাপূজায়  প্রতি বছর ৩০ হাজারের বেশি পূজামণ্ডপ হয়েছে, এবারও ৩২ হাজারের বেশি হয়েছে।

“এই ১৩ বছরে মাত্র একটিবার এই দুর্গাপূজা, এই পবিত্র ধর্ম উৎসব সহিংসতার ও সাম্প্রদায়িকা ও দুর্বৃত্তায়নের টার্গেট হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘর টার্গেট হয়েছে। মন্দির টার্গেট হয়েছে এবং তাদের ঘরবাড়ি দোকানপাট পর্যন্ত হামলা হয়েছে, পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।”

কাদের বলেন, “গতবার দুর্ভাগ‌্যজনক কিছু ঘটনা ঘটে গেছে। ১১ বছর যখন শান্তিপূর্ণ, এবারও শান্তিপূর্ণ হবে, এ রকম চিন্তা ভাবনা থেকে সতর্কতার কিছুটা অভাব ছিল। কোথাও কোথাও রাজনৈতিকভাবেও আমরা অসতর্ক ছিলাম। এ কথা সত‌্য… একাত্তরের বর্বরতাকে হার মানাবে, কুমিল্লায় যা ঘটেছে, রংপুরে যা ঘটেছে।”

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, “ভোট এলে হিন্দুদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাইতে যান। নিজেদের বিপদ মনে করে ভোটপ্রার্থী হন। কিন্তু হিন্দুরা যখন বিপদে পড়েন, তখন কোথায় থাকেন?"

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ূয়া, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক