ছাত্রলীগ নেতাদের নির্যাতন: এডিসি হারুন সাময়িক বরখাস্ত

তিনি ছাত্রজীবনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের উপ পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন বলে সোশাল মিডিয়ায় ছাত্রলীগেরই নেতাদের পোস্টে প্রকাশ পেয়েছে।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Feb 2024, 04:21 AM
Updated : 6 Feb 2024, 04:21 AM

শাহবাগ থানায় নিয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দুই নেতাকে নির্যাতনের অভিযোগ ওঠার পর সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) হারুন-অর-রশীদ। সোমবার তাকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ হয় বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা বরখাস্তের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, জনস্বার্থে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সাময়িক বরখাস্তকালীন পুলিশ সদর দপ্তরে সংযুক্ত থাকবেন হারুন, পাবেন খোরপোষ ভাতা।

নির্যাতনের অভিযোগ ওঠার পর রোববার ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগ থেকে সরিয়ে আনা হয়েছিল এডিসি হারুনকে। এরপর তাকে এপিবিএনে বদলি করা হয়েছিল। তবে ছাত্রলীগ তাতে সন্তুষ্ট না হয়ে তাকে বরখাস্ত করার দাবি তুলেছিল।

হারুনের বিরুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক হল শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সংসদের সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন নাঈম এবং ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হল শাখার সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক মো. শরীফ আহমেদ মুনিমকে শনিবার রাতে শাহবাগ থানা নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে।

রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক হল ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক সাব্বির রহমান শুভ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, দুই নেতাকে শনিবার রাতে এডিসি হারুন অর রশীদের নেতৃত্বে শাহবাগ থানায় তুলে নিয়ে ‘অমানবিক, নিষ্ঠুরভাবে’ নির্যাতন চালানো হয়।

ছাত্রলীগ সেই ঘটনার প্রতিবাদ ও বিচার দাবি করার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) হারুন অর রশীদ এডিসির হারুনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিলেন।

ঢাকা মহানগর (ডিএমপি) পুলিশের যুগ্ম-কমিশনার (অপারেশনস) বিপ্লব কুমার সরকার জানিয়েছিলেন তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে এডিসি হারুনকে বরখাস্ত করা হতে পারে।

ডিএমপির এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এডিসি হারুন ঘটনার সময় কর্তব্যরত অবস্থায় ছিলেন না। থানায় নিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে মারধরের ঘটনা ঘটিয়েছেন। তাতে পুলিশের ‘ভাবমূর্তি দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত’ হয়েছে। এসব বিষয়ে জানিয়ে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করার জন্য পুলিশ সদর দপ্তরে প্রতিবেদন পাঠান হয়। সেই প্রতিবেদনের পরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ আসে।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান সোমবার দুপুরে পুলিশ কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুকের সঙ্গে দেখা করে তাদের দাবির বিষয়টি তুলে ধরেন। পরে সাদ্দাম সাংবাদিকদের বলেন, এডিসি হারুনের ব্যাপারে ‘প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা’ নেওয়া হবে বলে পুলিশ কমিশনার আশ্বস্ত করেছেন।

তিনি বলেন, “বাংলাদেশ ছাত্রলীগ নিয়মতান্ত্রিক যে কোনো সমাধানে বিশ্বাসী। এই ঘটনার পর ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা অনেক দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়েছে।”

হারুন ছাত্রজীবনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের উপ পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন বলে সোশাল মিডিয়ায় ছাত্রলীগেরই নেতাদের পোস্টে প্রকাশ পেয়েছে।

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ১১ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)