পেলোসির তাইওয়ান সফর যুদ্ধের উসকানি: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি

দলটি বলছে, ইউক্রেইন-রাশিয়া যুদ্ধকে কেন্দ্র করে সমস্ত পৃথিবী যখন এক অশান্ত সময় অতিক্রম করছে, তখন পেলোসির তাইপে সফর ওই অশান্তিকে আরও ‘বিস্তৃত করবে’।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 August 2022, 09:37 AM
Updated : 3 August 2022, 09:37 AM

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরকে যুদ্ধের ‘উসকানি’ হিসেবে দেখছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি।

দলটি বলছে, “ইউক্রেইন-রাশিয়া যুদ্ধকে কেন্দ্র করে সমস্ত পৃথিবী যখন এক অশান্ত সময় অতিক্রম করছে, তখন পেলোসির তাইপে সফর ওই অশান্তিকে আরও বিস্তৃত করবে।“

বামপন্থি দলটির পলিট ব্যুরো বুধবার এক বিবৃতিতে পার্টির এ অবস্থান তুলে ধরে বলেছে, “বস্তুতঃ ন্যাটো সম্প্রসারণের নামে নব্য নাৎসি জেলেনস্কিকে দিয়ে ইউরোপে তারা যে যুদ্ধের সূচনা করেছে, তাই এখন তাইওয়ানকে অজুহাত করে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে ছড়িয়ে দিতে চায়।”

চীনের হুঁশিয়ারি অগ্রাহ্য করে মঙ্গলবার রাতে তাইওয়ানে পা রাখেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার পেলোসি। ২৫ বছরের মধ্যে মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের কোনো স্পিকার এই প্রথম তাইওয়ানে গেলেন, যে দ্বীপটিকে চীন নিজেদের অংশ বলে দাবি করে।

চীন ক্ষিপ্তভাবে পেলোসির এ সফরের নিন্দা জানিয়েছে। এশিয়া সফরে পেলোসি তাইওয়ানে যাবেন, এমন খবর ফাঁস হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বেইজিং হুঁশিয়ার করে বলেছিল, ওয়াশিংটন ‘আগুন নিয়ে খেলছে’।

তাইওয়ানে পেলোসির সফরের প্রতিক্রিয়ায় দ্বীপটির আশপাশের জলসীমায় সামরিক তৎপরতা বাড়িয়েছে চীন। পাশাপাশি বেইজিংয়ে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে পাঠিয়েছে এবং তাইওয়ান থেকে বিভিন্ন কৃষিপণ্য আমদানি স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার থেকে তাইওয়ানের চারপাশের সাগরে তিন দিনের সামরিক মহড়া শুরু করার ঘোষণা দিয়েছে বেইজিং।

চীনের পরিকল্পিত এই সামরিক মহড়ার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তাইওয়ান। এ ধরনের মহড়া ‘তাইওয়ানের অন্তর্ভুক্ত স্থানগুলো আক্রমণের’ এবং তাইওয়ানের ‘আকাশ ও সমুদ্রসীমা অবরোধের শামিল’ বলে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে স্বশাসিত দ্বীপটির সামরিক বাহিনী।

পেলোসির সফরকে ‘চরম উস্কানিমূলক ও প্রতারণামূলক বেপরোয়া আচরণ’ আখ্যা দিয়ে ওয়ার্কার্স পার্টি বলেছে, “ন্যান্সি পেলোসির এই আচরণ প্রতারণামূলক এই কারণে যে এটা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্বীকৃত এক চীন নীতির বিরোধী। তাইওয়ানে গণতন্ত্রের বিস্তৃতির নামে পেলোসি ও যুক্তরাষ্ট্র যে পদক্ষেপ নিল, তা গণতন্ত্রের বিরুদ্ধাচারণই কেবল নয়, শান্তি, প্রগতি ও সমৃদ্ধ বিশ্ব গড়ে তোলার বিরোধী।”

বিবৃততে বলা হয়, “ওয়ার্কার্স পার্টি আশা করে, চীন তার স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বের বিরুদ্ধে মার্কিনিদের উসকানিমূলক আচরণের ফাঁদে পা দেবে না এবং এই অঞ্চলের শান্তি স্থিতিশীলতা ও বিশ্বশান্তি স্থিতিশীলতার জন্য যে নীতি অনুসরণ করছে ও তার পিছনে বিশ্বের সকল শান্তিকামী দেশ ও জনগণকে সমবেত করে মার্কিনী এই ঘৃণ্য প্রয়াসকে পরাজিত করবে।”

Also Read: পেলোসি তাইওয়ানে: উত্তেজনার পারদ চড়ল এবার পূর্বেও

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক