আহত হয়েও যুদ্ধে ফিরেছিলেন রিয়াজ উদ্দিন

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Jan 2017, 08:05 PM
Updated : 7 Jan 2017, 08:05 PM

মোঃ রিয়াজ উদ্দিন ১৯৭১ সালে ৩ নম্বর সেক্টরে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। তিনি নিজ চোখে দেখেছিলেন পাকিস্তানি বাহিনীর নৃশংসতা। পাখির মতো গুলি করে মানুষ হত্যা করছিল তারা। দেশকে বাঁচানোর জন্য, মানুষকে বাঁচানোর জন্য তিনি যুদ্ধে যাওয়ার পরিকল্পনা করেন। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য তিনি ভারতে যান। ভারতে প্রশিক্ষণের সময়ে তাকে দশ রাউন্ড গুলি দিয়ে টার্গেটে আঘাত আনতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। রিয়াজ উদ্দিন নয় রাউন্ড গুলি নির্দিষ্ট লক্ষ্যে রাখতে পেরেছিলেন। সেখানে ২৮ দিন ট্রেনিং নিয়েছিলেন তিনি। ট্রেনিংয়ে অন্য মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে প্রথম হয়েছিলেন রিয়াজ উদ্দিন। এরপর তাকে সেনাবাহিনী, পুলিশের সম্মিলনে তৈরি একটা ব্যাটালিয়ানে যোগ দিতে বলা হয়েছিল। সেখানেও আবার ১৬ দিনের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছিল তাকে। রিয়াজ উদ্দিন প্রতিদিন যেমন ট্রেনিং নিতেন, আবার সিলেট গিয়ে নিয়মিত এ্যামবুশেও অংশ নিতেন।

আখাউড়ার যুদ্ধের কথা মনে পড়ে রিয়াজ উদ্দিনের। রাত ১১ টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত যুদ্ধ করতে হয়েছিল তাদের। সেই যুদ্ধে তার সহযোদ্ধা শহীদ হন।

ঠিকমতো খাওয়া দাওয়ার ঠিক ছিল না তাদের। তবু মনোবল ঠিক রেখে রিয়াজ উদ্দিন বারবার যুদ্ধে অংশ নেন। এরই মধ্যে এক যুদ্ধে তিনি গুলিবিদ্ধও হন। তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু হাসপাতাল থেকে দ্রুত ফিরে আসেন তিনি। কারণ তার মন তো পড়ে ছিল যুদ্ধক্ষেত্রে। 

এরপর ইটাখোলা, মনতলী, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার যুদ্ধে অংশ নেন রিয়াজ উদ্দিন। তার মনে একটাই সংকল্প ছিল, পাক হানাদারদের কাছ থেকে দেশকে স্বাধীন করতে হবে।    

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক