তিনদিন পানির মধ্যে যুদ্ধ করেন নুরূল ইসলাম

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Jan 2017, 06:16 PM
Updated : 6 Jan 2017, 06:16 PM

পাকিস্তানি বাহিনী যেদিন মঠখোলা আক্রমণ করেছিল, সেদিন তারা নুরূল ইসলামের দোকানটিও লন্ডভণ্ড করে দেয়। হানাদারবাহিনীর বিরুদ্ধে নিজেকে প্রস্তুত করতে তিনি প্রশিক্ষণের জন্য ভারতে যান। প্রশিক্ষণ শেষে টেকেরঘাট থেকে কয়ালারঘাটে যুদ্ধে করতে যান তিনি। এরপর মেজর মোস্তাফিজ তাদের তাহেরপুর যেতে নির্দেশ দেন।

কিন্তু তাহেরপুরে যাওয়া মোটেই সহজ ছিল না। কারণ তখন ছিল বর্ষাকাল। সর্বত্র ছিল পানি আর পানি। তালগাছ দিয়ে তারা ছোট ভেলা তৈরি করেছিলেন। মুক্তিযোদ্ধাদের ৪/৫ জনের গ্রুপ করে বিভিন্ন জায়গায় নামিয়ে দেওয়া হয়েছিল। পানির মধ্যে অবস্থান নিয়েছিলেন তারা। নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল প্রথম গুলির শব্দ শোনার পর, গুলি চালানো শুরু করতে হবে এবং ক্রমশ পূর্বদিকে যেতে হবে। 

তাহেরপুরে তিনদিন পানির মধ্যে অবস্থান নিয়ে মুক্তিযোদ্ধারা যুদ্ধ চালিয়ে গিয়েছিলেন। তিনদিন যুদ্ধ করার পর সেখানে আর কোন পাকিস্তানি সৈন্য ছিল না, ছিল কিছু রাজাকার। মুক্তিযোদ্ধারা পাকিস্তানি বিভিন্ন বাংকার থেকে অনেক আহত নারীকে উদ্ধার করেছিল। সবার শারীরিক অবস্থা ছিল খুবই শোচনীয়। মুক্তিযোদ্ধাদের অসীম বীরত্বে তাহেরপুর শত্রুমুক্ত হয়েছিল। 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক