সহজে রান্না করার টুকিটাকি বিষয়

ঠিক উপায় মেনে খাবার তৈরি করলে যেমন স্বাস্থ্যোপকারী হয় তেমনি সময়ও বাঁচে।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Jan 2022, 04:59 PM
Updated : 17 Jan 2022, 04:59 PM

‘সুইডিশ ইউনিভার্সিটি অফ এগ্রিকালচারাল সায়েন্স’য়ের ‘ডিপার্টমেন্ট অফ ওয়ার্ক সায়েন্স, বিজনেস ইকোনমিক্স অ্যান্ড এনভাইরোনমেন্টাল সাইকোলজি’য়ের করা গবেণার ফলাফল বলে, রান্নার কাজে নিয়োজিত থাকলে মানসিক চাপ যেমন কমে তেমনি সৃজনশীল কাজের মাত্রাও বৃদ্ধি পায়।

তবে রান্নার পদ্ধতি না জানলে ফলাফল হয় উল্টো।

তেল ব্যবহার থেকে শুরু করে মাইক্রোওয়েভে ওভেনে সাধারণ গরম করা- সব কিছুতেই রয়েছে সাধারণ নিয়ম। আর সেসব না জানলে রান্নার যে কোনো কাজেই লাগতে পারে দেরি।

এরকমই বিষয় নিয়ে ওয়েলঅ্যান্ডগুড ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে জানানো হল বিস্তারিত।

আলুর স্থায়িত্ব বাড়ানো

আলুতে দানার সৃষ্টি হলে বা অঙ্কুরোদগম হলে তা না খেয়ে বরং ফেলে দেওয়া উচিত। যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য-নিরাপত্তা-বিশেষজ্ঞ জেফ নেলকেন বলেন, “আলুর স্থায়িত্ব বাড়াতে তা অন্ধকার ও ঠাণ্ডা জায়গায় রাখা উপকারী। এর ফলে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি আলুর দ্রুত ক্ষতি করতে পারে না।”   

জলপাই তেলে রান্না হৃদস্বাস্থ্য ভালো রাখে

‘আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন’ অনুযায়ী, জলপাই তেল খাওয়া স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সহায়তা করে। এতে আছে উচ্চ যৌগের মনোআনস্যাচুরেইটেড ফ্যাটি অ্যাসিড যা হৃদস্বাস্থ্য ভালো রাখে, হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

খাঁটি জলপাইয়ে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সংক্রমণের বিরুদ্ধে কাজ করে। মানসিক ও পারিপার্শিক চাপ কমায়।

ছুরির সঠিক ব্যবহার

কাজ সহজ করতে তিন ধরনের ছুরি ব্যবহার করা উপকারী। যথা- ‘পেয়ারিং নাইফ’ ছোট বস্তু যেমন- রসুন কাটার জন্য। ‘ক্লাসিক শেইফ’স নাইফ’- সবজি, মাংস বা ভেষজ কাটার জন্য। আর ‘ব্রেড নাইফ’।

ভিন্ন ধরনের ছুরির ব্যবহার কাজকে সহজ করে এবং রান্নায় আগ্রহ বজায় রাখতে সহায়তা করে।

টক বা সিট্রাস ফল মাইক্রোওয়েভে গরম করে নেওয়া

যুক্তরাষ্ট্রের নিবন্ধিত পুষ্টিবিদ কেলি জোন্স বলেন, “টকজাতীয় ফল থেকে রস ছাড়ানো বেশ ঝামেলার কাজ। তবে এই কাজটাই সহজ করতে মাইক্রোওয়েভে টক-জাতীয় ফল সামান্য গরম করে নেওয়া যেতে পারে। এর ফলে এতে থাকা আঁশগুলো নরম হয়ে আসে এবং সহজেই রস বের করে নেওয়া যায়।”

বাসায় মাইক্রোওয়েভ না থাকলে লেবু টুকরা করে চুলার পাশে রেখে তার থেকে সহজেই রস বের করা নেওয়া যাবে।

রসুন কুচি করার সঙ্গে সঙ্গে তা রান্নায় ব্যবহার না করা

রসুন কুচি করার সঙ্গে সঙ্গেই তা রান্নায় ব্যবহার না করে বরং দশ মিনিট অপেক্ষা করা উচিত বলে জানা যায় খাদ্য বিজ্ঞান থেকে।

যুক্তরাষ্ট্রের গ্যাস্ট্রোলজিস্ট ও ‘ফাইবার ফুয়েল্ড’য়ের লেখক ডা. উইল বুলশেইজ জানান, রসুনে আছে অ্যালিনাস নামক যৌগ যা অ্যালিনকে অ্যালিসিন যৌগে পরিণত করে যা ব্যাক্টেরিয়া, ফাঙ্গাস, ভাইরাস রোধী উপাদান সমৃদ্ধ। তাই রসুর কাটার পরে দশ মিনিট সময় অপেক্ষা করলে এর সকল উপাদান প্রক্রিয়াজাত হওয়ার সময় পায়।

তাই রান্নার ঠিক আগ মুহূর্তে রসুন না কেটে বরং কিছুক্ষণ আগে কেটে রাখা ভালো।

ডিম ভাজার আগে তাতে লেবুর রস ছিটিয়ে নেওয়া

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য বিজ্ঞানী ম্যাকেঞ্জি ব্রাইসন জ্যাকসন বলেন, “ডিমের ওপরে অ্যাসিডিক কিছু যেমন- লেবুর রস ছিটিয়ে নিলে তাতে বুদবুদের সৃষ্টি হয় যা ডিমের স্বাদ বাড়ায়, ক্ষুধা মেটায় এবং ডিমে ফোলাভাব আনে।”

লেবুর রসের তরল ডিমের প্রোটিনের সঙ্গে মিশে যায়। ফলে তা সহজে জমাট বাঁধে না। এতে পানির মাত্রা বেশি থাকায় তা দেরিতে রান্না হয় এবং তা ভাঁপে রান্না হয়ে ডিমকে নরম করে ও ফোলাভাব আনে।

ছবি: রয়টার্স।

আরও পড়ুন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক