ইফতারের পরে সুস্থ থাকতে

রোজার শেষের দিকে এসে ইফতারের পর অসুস্থ বোধ করার নানান কারণ থাকতে পারে।

তৃপ্তি গোমেজবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 April 2024, 05:43 AM
Updated : 4 April 2024, 05:43 AM

রোজা প্রায় শেষের দিকে। অনেকেই ইফতারের পরে কিছুটা অসুস্থ বোধ করেন।

রোজার শুরু দিকে এমন হওয়াকে অনেকেই অনভ্যস্ততা ভাবলেও দীর্ঘ সময় একই অনুভূতি হওয়াকে অনেকে অসুস্থতা ভাবেন।

গুলশান ক্লিনিকের মেডিসিন, ডায়াবেটিস ও হরমোন রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ কামরুল হাসান ইফতারের পরে সুস্থ থাকার উপায় সম্পর্কে জানান।

তিনি বলেন, “ইফতারে খুব বেশি ভাজা পোড়া না খেতে বরাবরই উৎসাহিত করি আমরা।”

“সুস্থ থাকতে ইফতারকে তিন ভাগে ভাগ করে খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়”- বলেন এই চিকিৎসক।

ইফতারে পানি, ফলের রস, খেজুর খাওয়া। এরপরে নামাজ পড়ে ভারী খাবার পরিমাণ মতো খেতে হবে। অনেকেই ইফতারে হালিম, ভাজাপোড়া, ছোলা ইত্যাদি খেয়ে থাকেন। এগুলো পেট ব্যথা, অ্যাসিডিটি, বমিভাব ও পেট খারাপ সৃষ্টি করে। তাই পরিমাণে অল্প খেতে হবে।

আবার রাতে নয়টা দশটার দিকে কিছু খেয়ে নেওয়া উচিত”- পরামর্শ দেন ডা. হাসান।

এমন তিনভাগে ইফতারের পরে খাবার খাওয়া উপকারী বলে জানান তিনি।

অনেকেই ইফতারের পরে রাতে কিছু না খেয়ে একবারে সেহরি করেন। এটা শরীরের জন্য ক্ষতিকারক।

ডা. হাসান বলেন, “আমাদের দেহ নির্দিষ্ট ছন্দে আবদ্ধ। নির্দিষ্ট সময় পর পর খাবার গ্রহণ ও পরিপাকে অভ্যস্ত। সঠিক সময়ে খাবার না পেলেও পাকস্থলী কাজ চালিয়ে যায়। অর্থাৎ অ্যাসিড নিঃসরণ করে। ফলে খাবারের অভাবে অ্যাসিডিটি সৃষ্টি হয়।

সকালে অফিস থাকায় অনেকেই শেষ রাতে না করে, মাঝ রাতে সেহরি করে একবারে ঘুমিয়ে যান।

এই বিষয়ে ডা. হাসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এটা শরীরের জন্য অনেক ক্ষতিকর।”

সেহেরিতে খিচুরি, বিরিয়ানী ইত্যাদি না খেয়ে স্বাভাবিক খাবার যেমন- ভাত, মাছ, ডাল, শাক সবজি খাওয়া ভালো। পরিমাণ মতো পানি পান করার পরামর্শ দেন, তিনি।

আরও পড়ুন

Also Read: মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ ও প্রতিকার

Also Read: রমজানে আর্দ্র থাকার উপায়

Also Read: যে কারণে খেজুর দিয়ে ইফতার শুরু করা ভালো

Also Read: ইফতারি যেমন হওয়া জরুরি