‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ ফের প্রেক্ষাগৃহে, কাজল নেই কেন?

‘কুছ কুছু হোতা হ্যায়’ সিনেমার রজত জয়ন্তীর বিশেষ প্রদর্শনীতে হাজির ছিলেন না নায়িকা।

গ্লিটজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Oct 2023, 07:30 AM
Updated : 17 Oct 2023, 07:30 AM

তারুণ্য-বন্ধুত্ব আর প্রেমের যে চলচ্চিত্র দিয়ে বলিউডে সাড়া ফেলেছিলেন নির্মাতা করণ জোহর, সেই ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ সিনেমার ২৫ বছর পূর্তিতে মুম্বাইয়ে আয়োজন করা হল তিনটি বিশেষ প্রদর্শনী। শাহরুখ খান, রানি মুখার্জি আর করণ জোহর তাতে উপস্থিত হলেও ছিলেন না কাজল।

কলেজে পড়ুয়া যে দুই সহপাঠীর বন্ধুত্ব, খুনসুটি আর প্রেমের রসায়নে ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ নিখাদ ‘প্রেমের গল্প’ হয়ে উঠেছিল, সেই দুজনকে ‘স্ক্রিনিং’ অনুষ্ঠানে আশা করেছিলেন ভক্তরা। সেখানে কাজলকে না পেয়ে সামনাসামনিই হতাশা প্রকাশ করেন অনেক। কিন্তু কেন ছিলেন না সিনেমার ‘অঞ্জলী’?

অনুরাগীদের কৌতুহলী প্রশ্নের জবাবটা দেন শাহরুখ খান। তিনি বলেন, “দুর্ভাগ্যজনকভাবে কাজল এই মুহূর্তে শহরে নেই। শুটিংয়ের কাজে তাকে বাইরে যেতে হয়েছে। কিন্তু সবার জন্য ভালোবাসা জানিয়েছেন আপনাদের নায়িকা।“ 

এনডিটিভি জানিয়েছে, মুম্বাইয়ের যে বিশেষ প্রদর্শনীতে শাহরুখরা গিয়েছিলেন, সেখানে আগে থেকেই বাজানো হচ্ছিল সিনেমার গানগুলো। হলের বাইরে লবিতে শোভা পাচ্ছিল শাহরুখ-কাজল-রানির সিনেমার পোস্টার। শাহরুখ, রানি আর করণ মঞ্চে ওঠার পর করতালিতে মুখর হয়ে ওঠে প্রেক্ষাগৃহ। তাদের দাঁড়িয়ে সম্মান জানান দর্শকরা।

কথায় কথায় ‘কুছ কুছ হোতা নিয়ে’ আপ্লুত হয়ে পড়েন শাহরুখ।

“আমাদের এই কয়েকজনের জীবনে এই সিনেমার গুরুত্ব অনেক। আপনারা নিশ্চয় সেই গুরুত্ব বুঝতে পারেন। করণ তার প্রথম কাজ দিয়ে নিজেকে তুলে ধরেছে, রানির প্রথম কাজ না হলেও গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলোর একটি। আমার আর কাজলের কথা ছেড়েই দিলাম। টিনা-রাহুল-অঞ্জলীর সব ভালোবাসা আপনাদের জন্য।“

সিনেমায় শাহরুখের চরিত্রের নাম ছিল রাহুল খান্না, রানির নাম টিনা মালহোত্রা এবং কাজল হয়েছিলেন অঞ্জলী শর্মা।

স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে রসিকতা করে শাহরুখ বলেন, “ভেবে দেখুন তো, আমার মত ভাগ্যবান পুরুষ আর কে আছে? এক জীবনে দুই নারীর সত্যিকারের ভালোবাসা পেয়েছি।“

এ ধরনের কোনো প্রেমের সিনেমায় শাহরুখকে আবারও পাওয়া যাবে কি না, সেই প্রশ্নে অভিনেতা বলেন, “আমি জানি না কপালে জুটবে কী না। লাভ স্টোরিতে অভিনয় করার দায়িত্ব তরুণদের ওপরেই ছেড়ে দিয়েছি।“

এ সিনেমার চিত্রনাট্য ও পরিচালনা দুটোই সামলেছেন করণ। মুক্তির পর চিত্রনাট্য, সংলাপ,  সিনেমাটোগ্রাফি, অভিনয় এবং গানের প্রশংসা করেন সমালোচকরা।

‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’, ‘কোই মিল গায়া’, ‘লাড়কি বড়ি আনজানি হ্যায়’সহ সিনেমার সব কটি গান সে সময় মানুষের মুখে মুখে ফেরে।

করণ বলেন, “দুবার চিত্রনাট্য বদলেছি। একবার ত্রিভূজ প্রেমের গল্প লিখে বাতিল করেছি। তারপর বাবাহারা এক সন্তান ও তার মাকে নিয়ে একটি স্ক্রিপ্ট লিখি। কিন্তু সেটাও মনে ধরেনি। শেষমেশ দুই গল্প থেকে একটি চিত্রনাট্য দাঁড় করাই। কাজ শুরুর আগে মনে হল, ফ্ল্যাশব্যাক ভিত্তিক কাজ করলে দারুণ কিছু হতে পারে।“

চিত্রনাট্য চূড়ান্ত হওয়ার পর পাত্র পাত্রী নির্বাচন নিয়েও বিপাকে পড়ার গল্প বলেন করণ।

“রাহুলের চরিত্রে শাহরুখ আর অঞ্জলি চরিত্রে কাজল অভিনয় করবেন, এটা ঠিক করেই চিত্রনাট্য লিখেছিলাম। ইচ্ছা ছিল টিনা চরিত্রে টুইংকেল খান্নাকে নেব। কিন্তু টুইংকেল তো টুইংকেলই। যখন যা মনে হয় সেটা থেকে নড়েন না।“

এ কথায় হাসির ঢেউ ওঠে সবার মধ্যে।

করণ বলতে থাকেন, “ভাবতে পারবেন না কি নাজেহাল হয়েছিলাম টিনাকে নিয়ে। শিল্পা শেঠি, টাবু, রাভিনার কাছে গিয়েছি, উর্মিলার কাছেও। প্রস্তাব পাঠালাম কারিশমা কাপুরের কাছে। কিন্তু সবাই আমাকে না বলে দিল।“

করণ জানালেন, তাকে ওই বিপদ থেকে উদ্ধার করেন শাহরুখ আর প্রযোজক আদিত্য চোপড়া। তারাই টিনা চরিত্রে রানিকে নেওয়ার কথা ভাবতে বলেন।

“শাহরুখ আর আদিত্যর রানিকে পছন্দ হয়েছিল তার ‘রাজা কি আয়েগি বরাত’ সিনেমা দেখে। ওদের মনে হয়েছিল, মেয়েটিকে দিয়ে কাজ হতে পারে। ব্যাস হয়ে গেল।“

রানি বলেন, “আমার কণ্ঠের ভিন্নতা সবাই জানেন। প্রথমে করণজি ঠিক করলেন, অন্য কেউ টিনার কণ্ঠ দেবেন। কিন্তু পরে আমার কণ্ঠই রেখেছিলেন। কৃতজ্ঞতা আর ভালোবাসা সবার প্রতি।“

সিনেমায় সালমান খানের অতিথি চরিত্র নিয়েও সমস্যা হয় বলে জানান করণ। তিনি ভেবেছিলেন সালমানের ‘আমান’ চরিত্রে সাইফ আলী খানকে আনবেন। সেটি হয়নি, প্রস্তাব গিয়েছিলেন সে সময়ের অভিনেতা চন্দ্রচূড় সিংয়ের কাছেও। তিনিও সময় দিতে পারেননি।

“অথচ সানন্দে রাজি হলেন আপনাদের ভাইজান। তার জন্য হাততালি দিন।“

এরপর করতালিতে ফেটে পড়ে প্রেক্ষাগৃহ।

১৯৯৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ ১০০ কোটি রূপি আয় করে রেকর্ড গড়ে ওই বছরে। ভারত ছাড়াও স্কটল্যান্ড ও মরিশাসে সিনেমাটির শুটিং হয়।