জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাচ্ছেন চঞ্চল, জয়া ও শিমু

আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন খসরু ও রোজিনা; যৌথভাবে সেরা সিনেমা হয়েছে ‘কূড়া পক্ষীর শূন্যে উড়া’ ও ‘পরাণ’।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 Oct 2023, 12:10 PM
Updated : 31 Oct 2023, 12:10 PM

সেরা অভিনেতা হিসেবে চঞ্চল চৌধুরী ২০২২ সালের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাচ্ছেন; আর যৌথভাবে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পাচ্ছেন জয়া আহসান ও রিকিতা নন্দিনী শিমু।

মঙ্গলবার ঘোষণা করা জাতীয় এ পুরস্কারে যৌথভাবে সেরা সিনেমা হয়েছে ‘কূড়া পক্ষীর শূন্যে উড়া’ ও ‘পরাণ’।

অপরদিকে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন শিমু চলচ্চিত্রের জন্য সৈয়দা রুবাইয়াত হোসেন। শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্য চলচ্চিত্রের পুরস্কার পাচ্ছে বঙ্গবন্ধু ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

এবার আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন অভিনেতা খসরু (বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুল আলম খান খসরু) এবং অভিনেত্রী রোজিনা (রওশন আরা রোজিনা)।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় এবার ২৭ ক্যাটাগরিতে পুরস্কারপ্রাপ্তদের তালিকা প্রকাশ করে। শিগগির অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ পুরস্কার দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

প্রতি বছর চলচ্চিত্র শিল্পে অবদান রাখায় গুণীদের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের মাধ্যমে সম্মাননা জানানো হয়। 

২০২২ সালের পুরস্কারে ‘হাওয়া’ সিনেমার জন্য সেরা অভিনেতা হয়েছেন চঞ্চল চৌধুরী। এটি তার তৃতীয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার হবে। এর আগে মনপুরা চলচ্চিত্রের জন্য ২০০৯ সালে এবং আয়নাবাজির জন্য ২০১৬ সালে পুরস্কার পান তিনি।

অন্যদিকে যৌথভাবে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পাচ্ছেন ‘বিউটি সার্কাস’ সিনেমার জন্য জয়া আহসান এবং ‘শিমু’ চলচ্চিত্রের জন্য রিকিতা নন্দিনী শিমু। 

নির্বাচিতদের প্রত্যেককে ১৮ ক্যারেট মানের ১৫ গ্রাম ওজনের স্বর্ণ দিয়ে তৈরি একটি পদক, পদকের একটি রেপ্লিকা ও এককালীন নির্ধারিত পরিমাণ সম্মানী ও সম্মাননাপত্র প্রদান করা হবে।

আজীবন সম্মাননার জন্য ৩ লাখ, শ্রেষ্ঠ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক, শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালকের জন্য ২ লাখ ও অন্যান্য ক্ষেত্রে ১ লাখ টাকা দেওয়া হবে।

‘কুড়া পক্ষীর শূন্যে উড়া’ সিনেমার নির্মাতা মুহাম্মদ আব্দুল কাইউম তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমার সিনেমাটা পুরস্কার পেয়েছে তাতেই আমি ভীষণ আনন্দিত।

"আমি মনে করি, এই পুরস্কার আমি একা পাইনি। আমার টিমের সকলে পেয়েছে। এটা রাষ্ট্রীয় পুরস্কার, সে হিসেবে আমি ভীষণ গর্ব অনুভব করছি।”

পরাণ সিনেমার নির্মাতা রায়হান রাফী বলেন, "পরাণ আমার অনেক কষ্টের সিনেমা; অনেক স্যাক্রিফাইস, অনেক লিমিটেশনের মধ্য দিয়ে সিনেমাটি আমি বানিয়েছি। আমার ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের সিনেমা পরাণ।

“এই সিনেমাটি রাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় সম্মানে সম্মানিত হল, আমার জন্য এর চাইতে বড় আনন্দের আর কিছু নেই। ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা পরাণ টিম এর সবাইকে।"

একনজরে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০২২ 

আজীবন সম্মাননা: অভিনেতা খসরু (বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুল আলম খান খসরু) ও অভিনেত্রী রোজিনা (রওশন আরা রোজিনা)

শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র: কুড়া পক্ষীর শূন্যে উড়া, পরাণ

শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র: ঘরে ফেরা

 শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্য চলচ্চিত্র: বঙ্গবন্ধু ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালক: সৈয়দা রুবাইয়াত হোসেন (চলচ্চিত্রের নাম ‘শিমু)

শ্রেষ্ঠ অভিনেতা প্রধান চরিত্রে: সুচিন্ত্য চৌধুরী ওরফে চঞ্চল চৌধুরী, (চলচ্চিত্র-‘হাওয়া’)

শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী প্রধান চরিত্রে: জয়া আহসান (চলচ্চিত্র-‘বিউটি সার্কাস’) এবং রিকিতা নন্দিনী শিমু (চলচ্চিত্র- ‘শিমু’)

শ্রেষ্ঠ অভিনেতা পার্শ্ব চরিত্র: মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন খান (চলচ্চিত্র-‘পরাণ’)

শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পার্শ্ব চরিত্র: আফসানা করিম ওরফে আফসানা মিমি (চলচ্চিত্র- ‘পাপপূণ্য’)

শ্রেষ্ঠ অভিনেতা/অভিনেত্রী খল চরিত্রে: সুভাশিষ ভৌমিক (চলচ্চিত্র-‘দেশান্তর’)

শ্রেষ্ঠ অভিনেতা/অভিনেত্রী কৌতুক চরিত্রে: মোঃ সাইফুল ইমাম ওরফে দিপু ইমাম (চলচ্চিত্র- অপারেশন সুন্দরবন)

শ্ৰেষ্ঠ শিশু শিল্পী: বৃষ্টি আক্তার (চলচ্চিত্র- ‘রোহিঙ্গা’) ও মুনতাহা এমিলিয়া (চলচ্চিত্র-‘বীরত্ব’)

শিশু শিল্পী শাখায় বিশেষ পুরস্কার: মোছাঃ ফারজিনা আক্তার (চলচ্চিত্র- ‘কুড়া পক্ষীর শূন্যে উড়া’)

শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক: মাহমুদুল ইসলাম খান ওরফে রিপন খান (চলচ্চিত্র-‘পায়ের ছাপ’)

শ্ৰেষ্ঠ গায়ক: শুভাশীষ মজুমদার বাপ্পা ওরফে বাপ্পা মজুমদার (চলচ্চিত্র- ‘অপারেশন সুন্দরবন’) ও চন্দন সিনহা ((চলচ্চিত্র- ‘হৃদিতা’)

শ্ৰেষ্ঠ গায়িকা: আতিয়া আক্তার আনিসা (চলচ্চিত্র- ‘পায়ের ছাপ’)

শ্রেষ্ঠ গীতিকার: রবিউল ইসলাম জীবন (চলচ্চিত্র- ‘পরাণ’)

শ্রেষ্ঠ সুরকার: শওকত আলী ইমন (চলচ্চিত্র- ‘পায়ের ছাপ’)

শ্রেষ্ঠ কাহিনীকার: ফরিদুর রেজা সাগর (চলচ্চিত্র-‘দামাল’) ও খোরশেদ আলম খসরু (চলচ্চিত্র- ‘গলুই’)

শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার: মুহাম্মদ আব্দুল কাইউম (চলচ্চিত্র- ‘কুড়া পক্ষীর শূন্যে উড়া’)

শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা: এস এ হক অলিক (চলচ্চিত্র ‘গলুই’)

শ্ৰেষ্ঠ সম্পাদক: সুজন মাহমুদ (চলচ্চিত্র ‘শিমু)

শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশক: হিমাদ্রি বড়ুয়া (চলচ্চিত্র- ‘রোহিঙ্গা’)

শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক: আসাদুজ্জামান মজনু (চলচ্চিত্র- ‘রোহিঙ্গা’)

শ্ৰেষ্ঠ শব্দগ্রাহক: রিপন নাথ (চলচ্চিত্র- ‘হাওয়া’)

শ্রেষ্ঠ পোশাক ও সাজ-সজ্জা: তানসিনা শাওন (চলচ্চিত্র- ‘শিমু)

শ্রেষ্ঠ মেক-আপম্যান: মোঃ খোকন মোল্লা (চলচ্চিত্র- ‘অপারেশন সুন্দরবন’)