সেচের জন্য কুশিয়ারায় প্রয়োজনীয় সংস্কার হবে: প্রধানমন্ত্রী

সমঝোতা স্মারক সইয়ের ফলে কুশিয়ারা নদী থেকে ১৫৩ কিউসেক পানি প্রত্যাহারের সুযোগ পাবে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Sept 2022, 03:45 PM
Updated : 14 Sept 2022, 03:45 PM

ভারত-বাংলাদেশের যৌথ নদী কুশিয়ারা থেকে পানি প্রত্যাহারের বিষয়ে সমঝোতা স্মারক সই হওয়ার পর ওই এলাকার সেচ সুবিধা নিশ্চিত করতে এখন নদীর প্রয়োজনীয় সংস্কার করার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভারত সফর নিয়ে বুধবার গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী এ কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে যে সাতটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে, তার মধ্যে কুশিয়ারার পানি প্রত্যাহারের বিষয়টি অন্যতম।

চ্যানেল আইয়ের বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, কুশিয়ারা নদীর অনেক জায়গায় খালগুলো আগের মতো নেই। রহিমপুর সেচ পাম্প ও নালার অনেকগুলোই ভরাট হয়ে গেছে। খালগুলোও মাছ চাষের আওতায় চলে এসেছে। তাহলে এগুলো সংস্কার করে কবে নাগাদ সেচ সুবিধা পাওয়া যাবে?

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এবারের সফরে কুশিয়ারা থেকে সুরমা-কুশিয়ারা প্রকল্পের আওতায় ১৫৩ কিউসেক পানি বণ্টনে আমরা একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছি। এই সমঝোতা স্মারকের ফলে রহিমপুর সংযোগ খালের মাধ্যমে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা পাওয়া যাবে।

“সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে জলাভূমিগুলোকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার। যৌথ নদী কমিশনের মিটিং হয়ে গেছে। কুশিয়ারায় পাঁচটি উপজেলায় ছয় হাজার হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা পাওয়া যাবে।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কুশিয়ারার পানির বিষয়ে ইতোমধ্যে যৌথ নদী কমিশনের বৈঠক হয়েছে, সেখানে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে।

“খালগুলো সংস্কারের অনেকগুলো প্রকল্প আমরা হাতে নিয়েছি। কাজও শুরু হয়েছে। এখানে যেহেতু পানি পাব, তাহলে ওই এলাকার সেচের জন্য প্রয়োজনীয় সংস্কারগুলোও দ্রুত হবে।”

গত ৬ সেপ্টেম্বর দিল্লির হায়দ্রাবাদ হাউজে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে দুই দেশের কর্মকর্তারা কুশিয়ারা নদীর পানি বণ্টনসহ সাতটি সমঝোতা স্মারকে সই করেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক