টাকা ছাপানো বন্ধ রাখার পরামর্শ ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদের

“মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে জিডিপি প্রবৃদ্ধির দিকে আপাতত না তাকিয়ে নিয়ন্ত্রণমূলক পদক্ষেপের দিকে গুরুত্ব দিতে হবে,” বলেন তিনি।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Jan 2024, 03:30 AM
Updated : 20 Jan 2024, 03:30 AM

টাকা না ছাপিয়ে মূল্যস্ফীতির হারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বাজারে অর্থ প্রবাহ রাখার পরামর্শ দিয়েছেন অর্থনীতিবিদ ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে তিনি এ পরামর্শ দেন। বৈঠকে গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদারের সঙ্গে ডেপুটি গভর্নররাও ছিলেন।

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে যাওয়া এবং টাকার বিনিময় হার উর্ধ্বমুখী থাকা নিয়ে এক ধরনের চাপের মূখে রয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এমন প্রেক্ষাপটে অর্থনীতির চাপ সামলাতে করণীয় জানতে অংশীজনদের সঙ্গে বৈঠক শুরু করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সেই ধারাবহিকতায় অর্থনীতির বিদ্যমান চ্যালেঞ্জ সমাধানে দীর্ঘ মেয়াদী ও স্বল্পমেয়াদী উদ্যোগ নিতে পরামর্শ দেন অর্থনীতিবিদ ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদ।

বৈঠকের আলোচনার বিষয়ে তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “হাইপাওয়ারড মানি (ছাপানো টাকা) সরকারকে দেওয়া বন্ধ করার সময় হয়েছে। শুধু সরকার নয়, রাষ্ট্রায়ত্ত জনতা ব্যাংকসহ সব ব্যাংকেও আর হাইপাওয়ারড মানি দেওয়া যাবে না।”

বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো সক্ষমতা হারানোয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক টাকা ছাপিয়ে সরকারকে ধার দেওয়ার ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা পালন করতে শুরু করেছে, যা মূল্যস্ফীতি বাড়ানোর ক্ষেত্রে প্রভাব রাখছে বলে মনে করা হচ্ছে।

ওয়াহিদ উদ্দিন বলেন, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির দিকে আপাতত না তাকিয়ে নিয়ন্ত্রণমূলক পদক্ষেপের দিকে গুরুত্ব দিতে হবে। এজন্য মূল্যস্ফীতির হার দেখে বাজারে টাকার প্রবাহ সামঞ্জস্যশীল হওয়া দরকার। দীর্ঘ মেয়াদী ঋণের পরিবর্তে চলতি মূলধন দিয়েও ঋণ প্রবাহ কমানো সম্ভব।

অর্থপাচার রোধ ও বাজারমূখী বিনিময় হার নির্ধারণে বাংলাদেশ ব্যাংকের নেওয়া উদ্যোড়ের প্রশংসা করে তিনি বলেন, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, বিনিময় হার যৌক্তিক পর্যায়ে নিয়ে আসাসহ সব বিষয়ে সরকারের রোডম্যাপ সম্পর্কে স্পষ্ট ও বিশ্বাসযোগ্য বক্তব্য অংশীজনদের দিতে হবে। তা না হলে উদ্যোগ সফল হওয়া কঠিন হবে।

অংশীজনদের সঙ্গে এসব বৈঠকে আসা পরামর্শ আগামী মুদ্রানীতিতেও স্থান পাবে বলে জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মেজবাউল হক। তিনি বলেন, “আমরা ইতোমধ্যে হাইপাওয়ারড মানি অনেকটাই বন্ধ করে দিয়েছি। সাম্প্রতিক সময়ে কোনো ডেভলপমেন্টে যাইনি, সরকারওকে ঋণ দেওয়া হয়নি এভাবে। মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে অর্থের প্রবাহ কিছুটা সংকুচিত করতে আটসাঁটো মূদ্রানীতির ভঙ্গিতে যাবে বাংলাদেশ ব্যাংক।”

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)