পাটার আঘাতে স্বামীর মৃত্যু, স্ত্রী গ্রেপ্তার

তাদের মধ্যে কলহ লেগেই থাকত।

চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 April 2024, 02:54 PM
Updated : 2 April 2024, 02:54 PM

চট্টগ্রামে পাটার আঘাতে স্বামীর মৃত্যুর ঘটনায় স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার ৩৫ বছর বয়সী শাহীনের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় শাহীনের স্ত্রী বিউটি আক্তারকে (২৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম ইপিজেড থানার ওসি মোহাম্মদ হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, গ্রেপ্তার বিউটি নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার শাহীনের দ্বিতীয় স্ত্রী। প্রথম স্ত্রী কেন্দুয়ায় থাকলেও দ্বিতীয় স্ত্রী বিউটি ও দুই সন্তান নিয়ে শাহীন ইপিজেড থানার নারকেলতলা এলাকায় একটি ভবনের চতুর্থ তলায় ভাড়া থাকতেন।

ওসি মোহাম্মদ বলেন, “শাহীনের কোনো পেশা ছিল না। তিনি তার পরের ঘরের পাঁচ ও দুই বছরের দুই সন্তানকে নিয়ে বাসায় থাকতেন। আর বিউটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। বিভিন্ন সময়ে তাদের মধ্যে কলহ লেগে থাকত।

“গত শনিবার সন্ধ্যায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহের জেরে হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে শাহীন তার স্ত্রী বিউটিকে ধাক্কা দিয়ে ঘরের বাইরে বের করে দিয়ে পাটা ছুঁড়ে মারে। পাটাটি বিউটির গায়ে না লেগে ভেঙ্গে যায়, ক্ষুব্ধ বিউটি পাটার ভাঙ্গা অংশ ছুঁড়ে মারলে পায়ে আঘাত পেয়ে শাহীন মাটিতে বসে যায়। এসময় বিউটি ভাঙা অংশটি দিয়ে শাহীনের পায়ে, পিঠে ও মাথার পেছনে আঘাত করে।”

পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ হোসেন জানান, আহত অবস্থায় প্রতিবেশীরা শাহীনকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার শাহীন মারা যায়।

শাহীনের মৃত্যুর ঘটনায় তার আগের ঘরের বড় সন্তান মারুফ মিয়া বাদী হয়ে মামলা করেন। সোমবার রাতে বিউটিকে আকমল আলী রোডের তার বোনের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।