বিশ্বকাপ শেষ হেনরির, বদলি জেমিসন

এরই মধ্যে ভারতে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন কাইল জেমিসন।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Nov 2023, 07:04 AM
Updated : 3 Nov 2023, 07:04 AM

টুর্নামেন্টের শেষ ভাগে এসে কপাল খুলল কাইল জেমিসনের। দুই দফায় ‘কাভার’ হিসেবে দলে যোগ দেওয়ার পর ম্যাট হেনরির চোটে অবশেষে বিশ্বকাপের মূল দলেও সুযোগ পেলেন দীর্ঘদেহী পেস বোলিং অলরাউন্ডার। 

নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড শুক্রবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে হেনরির বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার খবর জানিয়েছে। এরই মধ্যে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন জেমিসন।

পুনেতে বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচের ২৭তম ওভারে ডান পায়ের হ্যামস্ট্রিংয়ে টান অনুভব করেন হেনরি। মাঠের বাইরে গিয়ে শুশ্রূষা নিলেও ব্যথার তীব্রতা না কমায় আর ফিল্ডিংয়ে নামতে পারেননি ৩১ বছর বয়সী পেসার।

পরে ১১ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামলেও দৌড়াতে পারেননি তিনি। নিউ জিল্যান্ডের বড় পরাজয়ের ম্যাচে ৫.৩ ওভার বোলিং করে ৬৯ রান খরচায় ১ উইকেট নেন হেনরি। তার চোটের অবস্থা বুঝতে বৃহস্পতিবার স্ক্যান করানো হয়।

স্ক্যানের রিপোর্ট পাওয়ার আগেই বৃহস্পতিবার ‘কাভার’ হিসেবে জেমিসনকে উড়িয়ে নেওয়া হয় ভারতে। পরে রিপোর্টে দেখা যায়, হেনরির ডান হ্যামস্ট্রিংয়ে গ্রেড-২ চিড় রয়েছে। যা থেকে সেরে উঠতে অন্তত দুই থেকে চার সপ্তাহ সময় লাগবে।

বিশ্বকাপে নিউ জিল্যান্ডের সবগুলো ম্যাচ খেলেছেন হেনরি। ২৮.৬৩ গড়ে তিনি ধরেছেন ১১ শিকার। দলের নিয়মিত একজনকে হারিয়ে শুক্রবার হতাশার কথা জানিয়েছেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধান কোচ গ্যারি স্টেড।

“আমরা তার জন্য দুঃখিত। দীর্ঘ দিন ধরে ম্যাট (হেনরি) আমাদের ওয়ানডে দলের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। টুর্নামেন্টের গুরুত্বপূর্ণ শেষ দিকে এসে তাকে এভাবে ছিটকে যেতে দেখা আমাদের জন্য হতাশাজনক।”

“গত কয়েক বছর ধরে সে ধারাবাহিকভাবে আইসিসি ওয়ানডে বোলারদের র‍্যাঙ্কিংয়ের সেরা দশে অবস্থান করছে। যা তার মান ও সামর্থ্যের প্রমাণ দেয়। এর চেয়ে বড় বিষয়, ম্যাট একজন দারুণ সতীর্থ এবং আমরা সবাই ব্যক্তিত্ব ও অভিজ্ঞতা মিস করব।”

হেনরির আগে বিশ্বকাপের শুরুর দিকে টিম সাউদির চোটেও কাভার হিসেবে ডাকা হয় জেমিসনকে। সেবার প্রায় দুই সপ্তাহ দলের সঙ্গে অনুশীলন করেন ২৮ বছর বয়সী পেস বোলিং অলরাউন্ডার। 

কিউই কোচের আশা, টুর্নামেন্টের বাকি অংশে দলের বড় শক্তির জায়গা হবেন জেমিসন। 

“আমরা সৌভাগ্যবান যে কাইলের (জেমিসন) মানের ডানা মেলে দেওয়ার অপেক্ষায় থাকা একজনকে পেয়েছি। তার স্কিল ও শারীরিক বৈশিষ্ট্য সবসময় তাকে বল হাতে হুমকি হিসেবে দাঁড় করায়।” 

“টুর্নামেন্টের শুরুর দিকে সে আমাদের সঙ্গে দুই সপ্তাহ অনুশীলন করেছে। যা বাড়তি পাওয়া। দুটি ভিন্ন পিঠের চোট কাটিয়ে উঠতে জেমিসনকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছে। আমি জানি, নিজের প্রথম বিশ্বকাপে খেলার জন্য সে রোমাঞ্চিত।” 

টানা চার ম্যাচ জিতে বিশ্বকাপে যাত্রা শুরু করেছিল নিউ জিল্যান্ড। তবে পরের তিন ম্যাচে হেরে কিছুটা কোণঠাসা অবস্থায় রয়েছে তারা। আপাতত পয়েন্ট টেবিলের চার নম্বরে অবস্থান করছে গত দুই আসরের রানার্স-আপরা।

জয়ের পথে ফেরার অভিযানে বেঙ্গালোরে শনিবার পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে নিউ জিল্যান্ড।