বাটলারের ভোট সূর্যকুমারকে, বাবরের পছন্দ শাদাব

চলতি আসরের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচনে নিজেদের পছন্দের কথা জানালেন ফাইনালের দুই অধিনায়ক।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Nov 2022, 02:24 PM
Updated : 12 Nov 2022, 02:24 PM

ভারত পারেনি সেমি-ফাইনালের বাধা পার হতে। তবে আসর জুড়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং দিয়ে নজর ঠিকই কেড়েছেন সূর্যকুমার যাদব। আগ্রাসী মানসিকতার জন্য প্রশংসা কুড়িয়েছেন এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। তাকেই টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হিসেবে দেখছেন ভারতকে বিদায় করে ফাইনালে ওঠা ইংল্যান্ড দলের অধিনায়ক জস বাটলার। 

শিরোপা লড়াইয়ের মঞ্চে জায়গা করে নেওয়া আরেক দল পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজমের ভাবনা আবার ভিন্ন। তিনি বেছে নিয়েছেন তার সতীর্থ শাদাব খানকে। 

মেলবোর্নে রোববার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অষ্টম আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হবে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড। আগের দিন আইসিসির একটি বিশেষ আয়োজনে নিজ নিজ পছন্দের পেছনে ব্যাখ্যাও দিয়েছেন দুই অধিনায়ক। 

অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ ব্যাট হাতে চমৎকার কেটেছে সূর্যকুমারের। এখন পর্যন্ত আসরের তৃতীয় সর্বোচ্চ ২৩৯ রান তার। ব্যাটিং গড় ৫৯.৭৫। ছয় ম্যাচে ফিফটি তিনটি। কমপক্ষে তিন ইনিংসে ব্যাটিং করাদের মধ্যে সূর্যকুমারের ১৮৯.৬৮ স্ট্রাইক রেট সর্বোচ্চ। 

মাঠের যে কোনো প্রান্তে বল পাঠাতে পারা, উইকেটে নেমেই দ্রুত রান তোলার সামর্থ্য দিয়ে মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন সূর্যকুমার। তাই তাকেই টুর্নামেন্ট সেরার দৌড়ে এগিয়ে রাখছেন বাটলার। 

“আমার মনে হয়, সূর্যকুমার যাদব (টুর্নামেন্ট সেরা হবে)। আমার কাছে সূর্যকুমার এমন একজন যে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা নিয়ে খেলেছে। ভারতের তারকা সমৃদ্ধ ব্যাটিং লাইনআপে সে ছিল অবিশ্বাস্যভাবে নজরকাড়া।” 

টুর্নামেন্ট সেরার জন্য ৯ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা শুক্রবার প্রকাশ করেছে আইসিসি। সূর্যকুমার, শাদাবের সঙ্গে সেখানে নাম আছে বাটলারেরও। তার দুই সতীর্থ অ্যালেক্স হেলস ও স্যাম কারানও জায়গা পেয়েছেন তালিকায়। 

আসরে এখন পর্যন্ত ৫ ইনিংসে দুই ফিফটি, ৪৯.৭৫ গড় ও ১৪৩.১৬ স্ট্রাইক রেটে ১৯৯ রান করেছেন বাটলার। সেমি-ফাইনালে ভারতকে ১০ উইকেটে উড়িয়ে দেওয়ার পথে তিনি খেলেন ৩ ছক্কা ও ৯ চারে ৮০ রানের ঝড়ো ইনিংস। হেলসের সঙ্গে গড়েন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যেকোনো উইকেটে সর্বোচ্চ জুটির রেকর্ড। 

৫ ইনিংস ব্যাটিং করা হেলসের রান ২১১। ৫২.৭৫ ব্যাটিং গড়ের সঙ্গে তার স্ট্রাইক রেট ১৪৮.৫৯। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ৭ ছক্কা ও চারটি চারে ৮৬ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন তিনি। 

ইংল্যান্ডের ফাইনালে ওঠার পথে বড় অবদান আছে কারানেরও। ওভারপ্রতি ৭.২৮ রান দিয়ে এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার এখন পর্যন্ত নিয়েছেন ১০ উইকেট। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১০ রানে তার শিকার ছিল ৫টি। টি-টোয়েন্টিতে পাঁচ উইকেট নেওয়া ইংল্যান্ডের একমাত্র বোলার তিনি। 

বাটলার মনে করেন, ফাইনালে দারুণ কিছু করতে পারলে হেলস ও কারানেরও বেশি সুযোগ রয়েছে পুরস্কারটি জেতার। 

“টুর্নামেন্ট সেরার তালিকায় আমাদের দুই জনের নামও আছে-স্যাম কারান ও অ্যালেক্স হেলস। তারা যদি ফাইনালে ভালো পারফরম্যান্স করতে পারে। আমার মনে হয়, তারাও প্লেয়ার অব দা টুর্নামেন্ট হতে পারে।” 

পাকিস্তানের ফাইনালে জায়গা করে নেওয়ার পেছনে শাদাব রাখেন বড় অবদান। লেগ স্পিনে ওভারপ্রতি ৬.৫৯ রান দিয়ে এখন পর্যন্ত তার প্রাপ্তি ১০ উইকেট। ব্যাট হাতেও রেখেছেন তিনি কার্যকর ভূমিকা। এক ফিফটিতে করেছেন ৭৮ রান। 

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সুপার টুয়েলভের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ওই পঞ্চাশ ছোঁয়া ইনিংস খেলেন তিনি। একশর আগে ৫ উইকেট হারিয়ে যখন ধুঁকছিল পাকিস্তান, সাতে নেমে ৪ ছক্কা ও ৩ চারে ২২ বলে ৫২ রানের বিস্ফোরক এক ইনিংস খেলেন শাদাব। পরে এক ওভারে দুই উইকেট নিয়ে ঘুরিয়ে দেন ম্যাচের মোড়। জেতেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার। 

এর আগের ম্যাচেও সেরা খেলোয়াড় হয়েছিলে এই অলরাউন্ডার। নেদারল্যান্ডসকে হারানোর পথে ২২ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ৩ উইকেট। সেমি-ফাইনালে উইকেট পাননি শাদাব। পরে বাবর ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের ফিফটিতে ৭ উইকেটের জয়ে ব্যাটিংয়ে নামতে হয়নি তাকে। 

শাদাবের অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের প্রশংসায় পঞ্চমুখ বাবর। টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার দেখতে চান তিনি সতীর্থের হাতেই। 

“আমার কাছে মনে হয়, শাদাব খান যেভাবে খেলছে তার এই পুরস্কার পাওয়া উচিত।” 

“সে দুর্দান্ত বোলিং করছে, তার ব্যাটিংয়েও বেশ উন্নতি হয়েছে। অসাধারণ ফিল্ডিংসহ সবশেষ তিনটি ম্যাচে তার প্রভাবশালী পারফরম্যান্স তাকে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের প্রধান প্রতিযোগী করে তুলেছে।” 

টুর্নামেন্ট সেরার লড়াইয়ে আরও আছেন ভারতের বিরাট কোহলি, পাকিস্তানের শাহিন শাহ আফ্রিদি, শ্রীলঙ্কার ভানিন্দু হাসারাঙ্গা ও জিম্বাবুয়ের সিকান্দার রাজা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক