অবসর ভেঙে ফেরার ঘোষণা আমিরের

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার লক্ষ্যে সিদ্ধান্তটি নিয়েছেন পাকিস্তানের এই পেসার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 March 2024, 03:14 PM
Updated : 24 March 2024, 03:14 PM

অভিমানে মোহাম্মদ আমিরের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলার পর কেটে গেছে তিন বছর। লম্বা এই সময়ে তাকে ফেরানোর দাবি কম ওঠেনি পাকিস্তান ক্রিকেটে। তিনি নিজেও সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দেননি কখনও। অবশেষে এবার ফেরার ঘোষণা দিয়েই দিলেন বাঁহাতি এই পেসার।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রোববার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন আমির। আসছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার লক্ষ্যে সিদ্ধান্তটি নিয়েছেন ৩১ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার।

“আমি এখনও পাকিস্তানের হয়ে খেলার স্বপ্ন দেখি! জীবন আমাদের মাঝেমধ্যে এমন এক পর্যায়ে নিয়ে আসে, যখন সিদ্ধান্তগুলো পুনর্বিবেচনা করতে হয়। আমার ও পিসিবির মধ্যে কিছু ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে, যেখানে তারা শ্রদ্ধার সঙ্গে আমাকে অনুভব করিয়েছে যে, আমার প্রয়োজন ছিল এবং আমি এখনও পাকিস্তানের হয়ে খেলতে পারি।”

“পরিবার ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে আলোচনার পর আমি ঘোষণা করছি যে, আসছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার জন্য আমি ফিরতে প্রস্তুত। দেশের জন্য এটি করতে চাই, কারণ এটা ব্যক্তিগত চাওয়া-পাওয়ার উর্ধ্বে। সবুজ জার্সি গায়ে জড়ানো ও দেশের সেবা করা সবসময়ই আমার সবচেয়ে বড় আকাঙ্ক্ষা ছিল এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।”

আগামী জুনে যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে বসবে টি-টোয়েন্টির বৈশ্বিক আসর। এই টুর্নামেন্টে চোখ রেখে পরপর দুই দিনে পাকিস্তানের দুই ক্রিকেটার অবসর ভেঙে ফিরলেন। আগের দিন ফেরার ঘোষণা দেন স্পিনিং অলরাউন্ডার ইমাদ ওয়াসিম।

২০২০ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছিলেন আমির। কারণ হিসেবে তখন তিনি বলেছিলেন, তার প্রতি অবিচার করেছেন ওই সময়ের প্রধান কোচ মিসবাহ-উল-হক ও বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনুস। তখনই বলেছিলেন, ভবিষ্যতে অবসরের সিদ্ধান্ত বদল করতেও পারেন।

মিসবাহ, ওয়াকার পাকিস্তান ক্রিকেটের দায়িত্ব ছেড়েছেন অনেক আগে। এরপর অনেক পরিবর্তন এসেছে পাকিস্তান ক্রিকেটে। কিন্তু ফেরার সিদ্ধান্ত নেননি আমির। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যখন ঘনিয়ে আসছে, তখনই পাকিস্তানের হয়ে খেলতে নিজেকে প্রস্তুত ঘোষণা করলেন তিনি।

২০০৯ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখেন আমির। সাদা বলের ক্রিকেটে মনোযোগ দিতে ২০১৯ সালের জুলাইয়ে হুট করে টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় বলে দেন তিনি। এরপর অনেক সমালোচনার শিকার হতে হয় তাকে। যেখানে শামিল ছিলেন মিসবাহ, ওয়াকারসহ পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটারদের আরও অনেকেই। সবকিছু মিলিয়ে পরের বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটই ছেড়ে দেন আমির।

সেই থেকে বিভিন্ন লিগে খেলছেন তিনি। চলতি মাসে শেষ হওয়া পিএসএলেও খেলেছেন আমির। কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে ওভারপ্রতি প্রায় সাড়ে আট করে রান দিয়ে ৯ ম্যাচে নিয়েছেন ১০ উইকেট।

পাকিস্তানের হয়ে আমিরের সবশেষ ম্যাচ ২০২০ সালের অগাস্টে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি। এই সংস্করণে দেশটির জার্সিতে ৫০ ম্যাচ খেলে ৫৯ উইকেট নিয়েছেন তিনি। স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে ২৭৭ ম্যাচ খেলা এই পেসারের শিকার ৩২৫ উইকেট।

আগামী মাসে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার কথা পাকিস্তানের। এরপর মে মাসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চারটি টি-টোয়েন্টি খেলবে তারা।

বিশ্বকাপের আগে এই দুই সিরিজ পাকিস্তানের জন্য প্রস্তুতির বড় মঞ্চ। বৈশ্বিক আসরে তারা পথচলা শুরু করবে ৬ জুন, যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। ‘এ’ গ্রুপে তাদের অন্য তিন প্রতিপক্ষ ভারত, কানাডা ও আয়ারল্যান্ড। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের সঙ্গে তাদের লড়াই ৯ জুন।