ব্যাটিং ব্যর্থতার পর সুখবর নেই খালেদ-রাজাদের বোলিংয়েও

বাংলাদেশ ‘এ’ দলকে অল্পতে গুটিয়ে লিড নেওয়ার কাছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ‘এ’ দল

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 August 2022, 05:24 AM
Updated : 6 August 2022, 05:24 AM

মোহাম্মদ মিঠুন ও নাঈম হাসানের লড়াই দ্বিতীয় দিনে শেষ হয়ে গেছে দ্রুতই। বাংলাদেশ ‘এ’ দলের ইনিংস বড় হয়নি খুব একটা। এরপর বোলিংয়েও দেখা যায়নি দারুণ কিছু। যে উইকেটে ক্যারিবিয়ান পেসাররা ছড়ি ঘুড়িয়েছেন, সেখানেই খরুচে বোলিং করেছেন সৈয়দ খালেদ আহমেদ ও রেজাউর রহমান রাজা। স্রেফ নাঈম হাসান আঁটসাঁট বোলিং করলেও লিড নেওয়ার খুব কাছে এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ ‘এ’ দল।

সেন্ট লুসিয়ায় প্রথম আনঅফিসিয়াল টেস্টের দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশ ‘এ’ দল প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে গেছে স্রেফ ১৬৭ রানে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ‘এ’ দল শুক্রবার দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে ৩ উইকেটে ১৬৫ রান নিয়ে।

৬ উইকেটে ১৩৫ রান নিয়ে প্রথম দিন শেষ করা বাংলাদেশ ‘এ’ দল দ্বিতীয় দিনে যোগ করতে পারে কেবল আর ৩২ রান।

৪২ রানে দিন শুরু করা অধিনায়ক মিঠুন বিদায় নেন সবার আগে। দিনের দ্বিতীয় ওভারে মার্কুইনো মাইন্ডলির বলে বাউন্ডারি ও দুটি ডাবলস নিয়ে তিনি ফিফটিতে পা রাখেন ৮৫ বলে। তবে পরের বলেই আউট হয়ে যান উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে।

একটু পরই নাঈম হাসানকে এলবিডব্লিউ করে মাইন্ডলি পূর্ণ করেন ৫ উইকেট।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এটি তার ষষ্ঠ ৫ উইকেট। ক্যারিয়ারের ১০০ উইকেটও পেরিয়ে যান এই পরিক্রমায়।

এরপর লোয়ার অর্ডার আর বেশি রান যোগ করতে পারেনি। পেসার এনামুল হক ৩৮ বল খেলে করেন ২ রান, রাজা ৪৭ বল খেলে ১৩।

বোলিং সাফল্যের পর ব্যাটিংয়েও শুরুটা ভালো করে ক্যারিবিয়ানরা। তেজনারাইন চন্দরপল ও জেরেমি সলোজানোর দৃঢ়তায় নতুন বলে কোনো বিপদ হয়নি তাদের।

বাংলাদেশ ‘এ’ দলের পেস আক্রমণের মূল ভরসা খালেদ শুরুটা ভালো করতে পারেননি। তার প্রথম দুই ওভারেই তিনটি বাউন্ডারি মারেন চন্দরপল। বাধ্য হয়ে ২ ওভার পরই ওই প্রান্ত থেকে অফ স্পিনার নাঈমকে আক্রমণে আনেন অধিনায়ক।

নতুন বলের আরেক পেসার এনামুল হক অবশ্য শুরুটা ভালো করেন। তার প্রথম স্পেল ছিল দুর্দান্ত, ৮-৪-৬-০!

আরেকপাশে নাঈমের বোলিং ফিগারও তখনও পর্যন্ত দারুণ, ৭-৪-৭-০।

উইকেট নিতে না পারলেও তারা চাপে রাখেন ক্যারিবিয়ানদের। কিন্তু খালেদ আবার বোলিংয়ে এসে আলগা করে দেন চাপ। পরে রাজাও ছিলেন অধারাবাহিক।

৩০ ওভার পেরিয়ে যাওয়ার পর জুটি ভাঙেন অবশ্য রাজাই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে একটি টেস্ট খেলা সলোজানো বোল্ড হন ৯৮ বলে ৩২ রান করে। তাতে থামে ৭৮ রানের উদ্বোধনী জুটি।

ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি শিবনারাইন চন্দরপলের ছেলে তেজনারাইন চন্দরপল সুবাস পাচ্ছিলেন ফিফটির। তবে ৪৯ রানে তাকে রান আউটে ফেরাতে পারে বাংলাদেশ।

এক প্রান্ত থেকে টানা দুর্দান্ত বোলিং করে যাওয়া নাঈম অবশেষে একটি পুরষ্কার পান কেসি কার্টিকে ফিরিয়ে। ৩৬ রান করে উইকেটের পেছনে জাকের আলির হাতে ধরা পড়েন কার্টি। এ দিন বাংলাদেশের শেষ সাফল্য সেটিই।

অধিনায়ক জশুয়া দা সিলভা ও টেভিন ইমলাক আর কোনো বিপদ হতে দেননি। শুধু সময় কাটানো নয়, ইমলাক কয়েকটি ভালো শটও খেলে ২৩ রানে অপরাজিত থাকেন ৫ চারে।

বাংলাদেশ ‘এ’ দলের নাঈম ২৭ ওভার বোলিং করে রান দিয়েছেন স্রেফ ৩২। তবে প্রতিপক্ষের মন্থর ব্যাটিংয়েও খালেদ রান গুনেছেন ওভারপ্রতি প্রায় চার করে, রাজা ওভারপ্রতি প্রায় পাঁচ করে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ ‘এ’ দল: ৬০.৫ ওভারে ১৬৭ (জয় ০, সাদমান ১৭, সাইফ ২০, ফজলে মাহমুদ ১, মিঠুন ৫০, জাকির ৭, জাকের ৩, নাঈম ২৭, রাজা ১৩, এনামুল ২, খালেদ ০*; শার্মন লুইস ৬.৩-৩-৭-১, মাইন্ডলি ১৭-২-৫৯-৫, জেরেমিয়া লুইস ১৫-৭-২৯-১, গ্রিভস ১৬.১-৯-২৬-৩, আথানেজ ০.১-০-০-০, কার্টি ১-০-৪-০, ক্যারিয়াহ ৫-০-২৫-০)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ‘এ’ দল: ৬৩ ওভারে ১৬৫/৩ (চন্দরপল ৪৯, সলোজানো ৩২, কার্টি ৩৬, জশুয়া ১৪*, ইমলাক ২৩*; খালেদ ১৩-৪-৫০-০, এনামুল ১২-৫-২৯-০, নাঈম ২৭-১২-৩২-১, রাজা ১০-১-৪৮-১, সাইফ ১-০-২-০)।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক