চাপম্যানের ঝড়ো সেঞ্চুরিতে নিউ জিল্যান্ডের বড় জয়

একমাত্র ওয়ানডেতে স্কটল্যান্ডের তিনশ ছাড়ানো রান অনায়াসে পেরিয়ে গেল নিউ জিল্যান্ড।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 July 2022, 07:47 PM
Updated : 31 July 2022, 07:47 PM

টি-টোয়েন্টি সিরিজে শেষ ম্যাচে সুযোগ পেয়ে বিস্ফোরক ইনিংস খেলে মার্ক চাপম্যান হয়েছিলেন জয়ের নায়ক। সেই ফর্ম তিনি বয়ে আনলেন পঞ্চাশ ওভারের ক্রিকেটেও। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে উপহার দিলেন সেঞ্চুরি। তার সঙ্গে ড্যারিল মিচেলের দারুণ জুটিতে তিনশ ছাড়ানো লক্ষ্য নিউ জিল্যান্ড ছুঁয়ে ফেলল অনায়াসে।

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে রোববার একমাত্র ওয়ানডেতে কিউইদের জয় ৭ উইকেটে। এডিনবরায় ৩০৭ রানের লক্ষ্য কিউইরা স্পর্শ করে ২৫ বল হাতে রেখে।

চার নম্বরে নেমে ৭৫ বলে ৭ ছক্কা ও ৬ চারে অপরাজিত ১০১ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচের সেরা চাপম্যান।

৭ ওয়ানডের ক্যারিয়ারে ২৮ বছর বয়সী ব্যাটসম্যানের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি এটি। দুই সেঞ্চুরির মাঝে কেটে গেছেও প্রায় ৭ বছর!

২০১৫ সালে তিনি অভিষেকেই খেলেছিলেন অপরাজিত ১২৪ রানের ইনিংস। সেটি ছিল অবশ্য তার জন্মভূমি হংকংয়ের হয়ে। কিউই বাবার সূত্রে পরে নিউ জিল্যান্ডকে প্রতিনিধিত্ব করার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

চাপম্যানের সঙ্গে ১৩১ বলে অবিচ্ছিন্ন ১৭৫ রানের জুটির পথে ৭৪ রান করেন মিচেল। তার ৬২ বলের ইনিংস গড়া ৮ চার ও একটি ছক্কায়।

ফিফটি আসে ফিন অ্যালেনের ব্যাট থেকেও। আরেক ওপেনার মার্টিন গাপটিল ৩ রানের জন্য পাননি সেই স্বাদ।

স্কটিশরা তিনশ ছাড়ানো পুঁজি পায় মূলত মাইকেল লিস্কের ঝড়ো ইনিংসের সৌজন্যে। ৫৫ বলে ৯ চার ও ৪ ছক্কায় ক্যারিয়ার সেরা ৮৫ রান করেন তিনি। ৫৮ বলে ৫৩ রান করেন ম্যাথু ক্রস।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৬ রানের উদ্বোধনী জুটির পথে স্কটল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক কাইল কোয়েটজার করেন ২২ রান। আরেক ওপেনার মাইকেল জোন্স ৫০ বলে করেন ৩৬।

ক্যালাম ম্যাকলয়েড, রিচি বেরিংটন ও ম্যাথু ক্রস টিকতে পারেননি। ১০৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়া দলকে কক্ষপথে ফেরান লিস্ক ও ক্রস। ষষ্ঠ উইকেটে দুই জনে গড়েন ৯২ রানের জুটি।

ক্রসকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন মিচেল। মার্ক ওয়াটের সঙ্গে আরেকটি পঞ্চাশোর্ধ জুটিতে সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়ে লিস্ক বিদায় নেন ক্যাচ দিয়ে। এরপর সাফওয়ান শরিফের ২৯ বলে ২৮ রানের সুবাদে তিনশ ছাড়ায় স্বাগতিকদের সংগ্রহ।

৪৩ রানে ৩ উইকেট নিয়ে নিউ জিল্যান্ডের সফলতম বোলার মাইকেল ব্রেসওয়েল।

বড় রান তাড়ায় ৭৮ রানের উদ্বোধনী জুটিতে সুর বেঁধে দেন অ্যালেন ও গাপটিল। ফিফটির পরই অ্যালেন (৪৮ বলে ৫০) ক্যাচ দেন বাঁহাতি স্পিনার হামজা তাহিরের বলে।

গাপটিল ৫৩ বলে ৪৭ রান করে এলবিডব্লিউ হন লিস্কের বলে। এই অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার নিজের পরের ওভারে ড্যান ক্লিভারকেও ফিরিয়ে দিলে আশা জাগে স্কটল্যান্ড শিবিরে।

তবে চাপম্যান ও মিচেল আর কোনো সুযোগই দেননি স্কটিশদের। মিচেল পঞ্চাশে পা রাখেন ৪১ বলে, চাপম্যানের লাগে ৪৬ বল।

এক পর্যায়ে নিউ জিল্যান্ডের জয়ের জন্য যখন দরকার আর ৭ রান, সেঞ্চুরির জন্য চাপম্যানের চাই ৫। ক্রিস সোলের বলে পরপর দুটি ডাবলের পর সিঙ্গেল নিয়ে কাঙ্ক্ষিত ঠিকানায় পৌঁছান তিনি। দলের জয়ে তুলির শেষ আঁচরটাও দেন তিনিই।

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে চাপম্যান ৪৪ বলে খেলেছিলেন ৮৩ রানের খুনে ইনিংস। এবার এই সেঞ্চুরিতে আরেকবার নায়ক তিনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

স্কটল্যান্ড: ৪৯.৪ ওভারে ৩০৬ (কোয়েটজার ২২, জোন্স ৩৬, ম্যাকলয়েড ৭, বেরিংটন ১২, ক্রস ৫৩, গ্রিভস ৬, লিস্ক ৮৫, ওয়াট ৩১, শরিফ ২৮, সোল ৩, হামজা ৫*; ডাফি ৭.৪-০-৫২-৩, ফার্গুসন ১০-০-৭৭-২, টিকনার ১০-১-৬২-১, ব্রেসওয়েল ১০-২-৪৩-৩, স্যান্টনার ১০-০-৬০-০, মিচেল ২-০-৬-১)

নিউ জিল্যান্ড: ৪৫.৫ ওভারে ৩০৭/৩ (গাপটিল ৪৭, অ্যালেন ৫০, ক্লিভার ৩২, চাপম্যান ১০১*, মিচেল ৭৪*; শরিফ ৮-০-৪০-০, ওয়াট ৯-০-৫৭-০, সোল ৯.৫-০-৬৮-০, গ্রিভস ২-০-২৪-০, হামজা ৯-০-৭০-১, লিস্ক ৮-০-৪৬-২)

ফল: নিউ জিল্যান্ড ৭ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: মার্ক চাপম্যান

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক