‘আইডল’ উইলিয়ামসনের বাহবা পেয়ে অবিশ্বাস্য লাগছে রবীন্দ্রর

শৈশবের ‘হিরোর’ সঙ্গে টেস্টে ব্যাটিং করতে পেরে আনন্দের শেষ নেই বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Feb 2024, 12:12 PM
Updated : 4 Feb 2024, 12:12 PM

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যখন পা রাখেন কেন উইলিয়ামসন, তখনও শৈশব কাটেনি রাচিন রবীন্দ্রর। উইলিয়ামসন এখন তারকা ব্যাটসম্যান, আর তাকে আদর্শ মেনেই বেড়ে ওঠা রবীন্দ্রর কিউইদের হয়ে পথচলা কেবল শুরু। শৈশবের ‘হিরোর’ সঙ্গে টেস্টে ব্যাটিং করতে পেরে তাই আনন্দের সীমা নেই রবীন্দ্রর।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চলমান টেস্টে দারুণ এক সেঞ্চুরি উপহার দেন রবীন্দ্র। সেই সময় তার সঙ্গে ক্রিজে ছিলেন উইলিয়ামসন। তরুণ সতীর্থ তিন অঙ্ক ছোঁয়ার পর তাকে বাহবা দেন উইলিয়ামসন। এমন একজনের কাছ থেকে প্রশংসা পেয়ে অবিশ্বাস্য লাগছে ২৪ বছর বয়সী রবীন্দ্রর।

মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে রোববার শুরুতে চাপে পড়ে যাওয়া নিউ জিল্যান্ডের হাল ধরেন উইলিয়ামসন। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট কাটিয়ে ফেরা অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান প্রথম দিন শেষে অপরাজিত ২৫৯ বলে ১১২ রান করে। তার সঙ্গে ২১৯ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে মাঠ ছাড়েন রবীন্দ্র।

ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরিতে রবীন্দ্র অপরাজিত ২১১ বলে ১১৮ নিয়ে। সেঞ্চুরি ছোঁয়ার পর উইলিয়ামসনের কাছ থেকে প্রশংসা পেয়ে বিশ্বাসই করতে পারছেন না বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। দিনের খেলা শেষে রবীন্দ্র তুলে ধরলেন তার অনুভূতি।

“আমি সেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর কেন আমার কাছে এসে বলল, ‘তুমি অবিশ্বাস্য’। মুহূর্তটি ছিল পরাবাস্তব। বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজনের কাছ থেকে এই ধরনের প্রশংসা পাওয়া বিশেষ কিছু।”

আগেও উইলিয়ামসনের সঙ্গে ব্যাটিং করার অভিজ্ঞতা হয়েছে রবীন্দ্রর, গত ওয়ানডে বিশ্বকাপে তিনটি ম্যাচে। কিন্তু টেস্টে এই প্রথম সময়ের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজনের সঙ্গে ব্যাটিং করার অভিজ্ঞতা হলো তার। কাছ থেকে সতীর্থের ব্যাটিং দেখে মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে গেছেন তিনি।

“কেনের সঙ্গে খেলা সবসময়ই বিশেষ কিছু। যাকে আমি আদর্শ মানি, তার সঙ্গে ব্যাটিং করা, আমার কাছে পূর্ণতা পাওয়ার মতো। মুহূর্তটি ছিল অবিশ্বাস্য।”

“তাকে সবসময়ের মতো নিজের কাজটা করে যেতে দেখা, তার শান্ত স্বভাব, ব্যাটিংয়ে তার পজিশন নেওয়া ও টাইমিং, সবকিছুই এক নির্মল ব্যাটিং আনন্দ। নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটের একজন শুভাকাঙ্ক্ষী হিসেবে টেস্টে তাকে সেঞ্চুরি করতে দেখা অবিশ্বাস্য ব্যাপার।”