প্রথম দিন শেষে চাপে বাংলাদেশ

ধানাঞ্জয়া ডি সিলভা ও কামিন্দু মেন্ডিসের সেঞ্চুরিতে প্রথম দিনে এগিয়ে শ্রীলঙ্কা৷

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 March 2024, 12:45 PM
Updated : 22 March 2024, 12:45 PM

সিলেট টেস্টের প্রথম দিন শ্রীলঙ্কাকে প্রথম ইনিংসে ২৮০ রানে অলআউট করেছে বাংলাদেশ। পরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩২ রানে ৩ উইকেট হারিয়েছে স্বাগতিকরা।

ম্যাচের দ্বিতীয় দিন ৭ উইকেট বাকি রেখে ২৪৮ রানে পিছিয়ে থেকে খেলা শুরু করবে নাজমুল হোসেন শান্তর নেতৃত্বাধীন দল।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুক্রবার বৃষ্টিভেজা কন্ডিশনে সবুজ উইকেটে শ্রীলঙ্কাকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বাংলাদেশ। পরে সফরকারীদের ইনিংসকে ভাগ করা যায় তিন ভাগে।

সৈয়দ খালেদ আহমেদের দারুণ বোলিংয়ে স্রেফ ৫৭ রানে ৫ উইকেট তুলে নেয় বাংলাদেশ। শেষ দিকে অভিষিক্ত পেসার নাহিদ রানার তোপে স্রেফ ২১ রানে ৫ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। দুই পেসারই নেন ৩টি করে উইকেট।

মাঝে ষষ্ঠ উইকেটে ২০২ রানের জুটি গড়ে তোলেন ধানাঞ্জয়া ডি সিলভা ও কামিন্দু মেন্ডিস। বাংলাদেশের বিপক্ষে অষ্টম উইকেটে এটিই শ্রীলঙ্কার সর্বোচ্চ জুটি। দুই ব্যাটসম্যানই করেন সেঞ্চুরি। দুজনই থামেন সমান ১০২ রান করে।

দিনের দ্বিতীয় ওভারেই নিশান মাদুশকাকে ফিরিয়ে উড়ন্ত সূচনা করেন খালেদ। পরে দিমুথ কারুনারাত্নে ও কুসাল মেন্ডিসকেও দ্রুত ফেরান তিনি। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস রান আউট হলে পঞ্চাশের আগেই ৪ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। 

শরিফুল ইসলামের বলে লেগ স্লিপে ক্যাচ দিনেশ চান্দিমাল। স্রেফ ৫৭ রানে প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানকে হারায় সফরকারীরা। বাংলাদেশের বিপক্ষে ২৫ টেস্টে এবারই প্রথম ১০০ রানের আগে ৫ উইকেট হারায় তারা। 

পরের বলেই ফিরতে পারতেন কামিন্দু। দ্বিতীয় স্লিপে সহজ ক্যাচ ছেড়ে দেন মাহমুদুল হাসান জয়। শূন্য রানে জীবন পেয়ে পাল্টা আক্রমণ শুরু করেন কামিন্দু। অন্য প্রান্তে ধানাঞ্জয়াও দ্রুত রান তুলতে থাকেন।

দ্বিতীয় সেশনের শুরুতে ঝড় তোলেন দুজন। মধ্যাহ্ন বিরতির পরের ওই ১০ ওভারে লঙ্কানরা করে ৭৪ রান। এরপর দুই স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম মিলে রানের গতি কিছুটা কমালেও ওই সেশনে জুটি ভাঙতে পারেননি।

শেষ সেশনে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন কামিন্দু। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ইনিংসে তার এটি প্রথম সেঞ্চুরি। পরে তাকে থামান নাহিদ। এরপর তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন ধানাঞ্জয়া। ৫৩ ম্যাচের ক্যারিয়ারে লঙ্কান অধিনায়কের একাদশতম সেঞ্চুরি এটি। বাংলাদেশের বিপক্ষে তৃতীয়।

ধানাঞ্জয়াও সেঞ্চুরির পর ফেরেন দ্রুতই। তাকেও আউট করেন নাহিদ। এরপর লেজের সারির ব্যাটসম্যানরা বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। তিনশর আগে অলআউট হয় শ্রীলঙ্কা।

পরে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় ওভারে এলবিডব্লিউ হন জাকির হাসান। রিভিউ নিয়েও লাভ হয়নি তার। আম্পায়ার্স কলে কাটা পড়েন বাঁহাতি ওপেনার। এক ওভার পর ভিশ্ব ফার্নান্দোর বলে এলবিডব্লিউ হন নাজমুল হোসেন শান্তও।

দিনের খেলা শেষ হওয়ার কিছুক্ষণ সময় বাকি থাকতে কাসুন রাজিথার বলে ক্যাচ আউট হন মুমিনুল হক।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: 
৬৮ ওভারে ২৮০ (মাদুশকা ২, কারুনারাত্নে ১৭, কুসাল ১৬, ম্যাথিউস ৫, চান্দিমাল ৯, ধানাঞ্জয়া ১০২, কামিন্দু ১০২, জয়াসুরিয়া ১, রাজিথা ৬*, ভিশ্ব ৯, কুমারা ০; শরিফুল ১৪-০-৫৮-১, খালেদ ১৭-২-৭২-৩, নাহিদ ১৪-২-৮৭-৩, তাইজুল ১৩-৬-৩১-১, মিরাজ ১০-১-২৫-০)

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ১০ ওভারে ৩২/৩ (জয় ৯*, জাকির ৯, শান্ত ৫, মুমিনুল ৫, তাইজুল ০*; ভিশ্ব ৫-১-৯-২, রাজিথা ৫-১-২০-১)