সাকিব-মেহেদির তাণ্ডবে রংপুরের ২১৯

খুলনা টাইগার্সের বোলারদের ওপর ঝড় বইয়ে স্রেফ ২০ বলে ফিফটি করেন সাকিব আল হাসান।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 Feb 2024, 02:53 PM
Updated : 13 Feb 2024, 02:53 PM

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে কয়েকটি বল দেখলেন সাকিব আল হাসান। পঞ্চম বলে মারলেন ছক্কা। পরের বলে আরেকটি। এরপর আর থামাথামি নেই। খুলনা টাইগার্সের বোলারদের ওপর তাণ্ডব চালিয়ে করলেন ঝড়ো ফিফটি।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার ৬৯ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেললেন রংপুর রাইডার্সের তারকা অলরাউন্ডার। তাকে যোগ্য সঙ্গ দিলেন শেখ মেহেদি হাসান। দুজনের ফিফটিতে রংপুর পেল ২১৯ রানের সংগ্রহ।

৩১ বলে ৬টি করে ছক্কা ও চারে গড়া সাকিবের ইনিংসটি। ৩৬ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৬০ রান করেন মেহেদি।

বেশ কিছু দিন ধরেই চোখের সমস্যায় ভুগতে থাকা সাকিব আগের দুই ম্যাচে দেন রানে ফেরার আভাস। আর এদিন যেন দেখালেন নিজের সেরা ছন্দের ঝলক।

খুলনার বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা করে স্রেফ ২০ বলে পঞ্চাশ পূর্ণ করেন তিনি। বিপিএলে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এর চেয়ে কম বলে ফিফটি আছে আর একটি। গত আসরে রনি তালুকদার ফিফটি করেন ১৯ বলে।

এদিন লুক উডের ভেতরে ঢোকা ডেলিভারিতে রনি অল্পে ফেরার পরই পাল্টা আক্রমণের পথ বেছে নেন সাকিব। তৃতীয় ওভারে নাহিদুল ইসলামের বলে পরপর দুই ছক্কা মারেন তিনি।

পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে তাণ্ডব চালান নাসুম আহমেদের ওপর। বাঁহাতি স্পিনারের বলে তিন ছক্কা ও দুই চারে নেন ২৬ রান। তিনটি ছক্কাই মারেন অন সাইডে। স্রেফ ১৬ বলে ৪৬ রানে পৌঁছে যান সাকিব।

পরের ওভারেই অবশ্য ফিরতে পারতেন তিনি। মুকিদুল ইসলামের বলে ডিপ ফাইন লেগে সহজ ক্যাচ ছাড়েন নাহিদ রানা। ভাগ্যের ছোঁয়া পরেও পান সাকিব। নাহিদের বলে অল্পের জন্য কাভার ফিল্ডারের হাতে যায়নি তার শট।

এরপর দারুণ এক স্ট্রেইট ড্রাইভে পূর্ণ করেন চলতি আসরে নিজের প্রথম ফিফটি। পঞ্চাশ ছুঁয়েও একই গতিতে এগোতে থাকেন সাকিব। নাসুমের ওভারে মারেন জোড়া বাউন্ডারি। পরে নাহিদুলকে মারেন ছক্কা।

একাদশ ওভারে আক্রমণে ফিরে সাকিবকে থামান লুক উড। অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের ফুল লেংথ ডেলিভারি তাড়া করে কাভারে ক্যাচ দেন রংপুরের অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার।

সাকিবের বিদায়ে ভাঙে মেহেদির সঙ্গে গড়া ৪৮ বলে ১০৯ রানের জুটি। এরপর রানের গতি কমতে দেননি মেহেদি। আফিফ হোসেনের ওভারে এক চারের সঙ্গে তিনি মারেন দুটি ছক্কা। চার নম্বরে নামার সুযোগ পেয়ে স্রেফ ২৮ বলে পূর্ণ করেন ফিফটি।

এরপর অবশ্য বেশিদূর যেতে পারেননি মেহেদি। নাসুমের বলে ছক্কার চেষ্টায় ডিপ মিড উইকেটে ধরা পড়েন এই অলরাউন্ডার।

শেষ দিকে নুরুল হাসান সোহানের ২ চার ও ৩ ছক্কায় ১৩ বলে ৩২ রানের ইনিংসে দুইশ ছাড়ায় রংপুর।