বাবরকে নেতৃত্বে ফেরানোয় বিস্মিত আফ্রিদি

পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়কের মতে, নেতৃত্বে পরিবর্তনের প্রয়োজন হলে মোহাম্মদ রিজওয়ান হতে পারত সেরা পছন্দ।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 March 2024, 05:05 PM
Updated : 31 March 2024, 05:05 PM

বাবর আজমকে পাকিস্তানের সাদা বলের দুই সংস্করণের নেতৃত্বে ফেরানোর বিষয়টি পছন্দ হয়নি সাবেক অধিনায়ক শাহিদ আফ্রিদির। নির্বাচক কমিটির এমন সিদ্ধান্তে ভীষণ অবাক হয়েছেন তিনি। তার মতে, অধিনায়ক বদলের প্রয়োজন হলে মোহাম্মদ রিজওয়ান হতে পারত সেরা পছন্দ।

২৯ বছর বয়সী বাবরকে নেতৃত্বে ফেরানোয় শাহিন শাহ আফ্রিদির টি-টোয়েন্টি অধিনায়কত্বের অধ্যায় শেষ হয়ে গেছে এক সিরিজেই।

গত জানুয়ারিতে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে শাহিন আফ্রিদির নেতৃত্বে ৪-১ ব্যবধানে হারে পাকিস্তান। তারপর থেকে এই পেসারের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড রোববার সামাজিক মাধ্যমে জানায়, নির্বাচক কমিটির সর্বসম্মত পরামর্শে বাবরকে সাদা বলের ক্রিকেটে পাকিস্তান জাতীয় দলের অধিনায়ক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন পিসিবির চেয়ারম্যান মহসিন নাকভি।

নির্বাচক কমিটিতে আছেন সাবেক চার ক্রিকেটার ওয়াহাব রিয়াজ, মোহাম্মদ ইউসুফ, আব্দুল রাজ্জাক ও আসাদ শফিক। সামাজিক মাধ্যমে শাহিদ আফ্রিদি লিখেছেন, অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারদের সিদ্ধান্ত অবাক করেছে তাকে। 

"খুব অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের নিয়ে গড়া নির্বাচক কমিটির সিদ্ধান্তে আমি বিস্মিত। আমি এখনও বিশ্বাস করি, যদি পরিবর্তন প্রয়োজনই হয়, তাহলে রিজওয়ান সেরা পছন্দ ছিল।”

"তবে সিদ্ধান্ত যখন নেওয়া হয়ে গেছে, তখন পাকিস্তান দল এবং বাবর আজমকে আমার পূর্ণ সমর্থন এবং শুভেচ্ছা জানাই।”

শাহিদ আফ্রিদি সম্পর্কে শাহিন আফ্রিদির শশুর।

বাবরের নেতৃত্বে এখনও আইসিসি কিংবা এসিসি ট্রফি জিততে পারেনি পাকিস্তান। তার নেতৃত্বে ২০২১ ও ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ২০২২ ও ২০২৩ এশিয়া কাপ এবং ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ থেকে শূন্য হাতে ফেরে দলটি।

ভারতে অনুষ্ঠিত গত ওয়ানডে বিশ্বকাপে দলের ব্যর্থতার পরই নভেম্বরে সব সংস্করণের অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ান বাবর। পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে তখন বলা হয়েছিল, মূলত বোর্ডের চাপে নেতৃত্ব ছাড়তে বাধ্য হন এই ব্যাটসম্যান।

পরে টেস্ট দলের নেতৃত্ব দেওয়া হয় শান মাসুদকে, টি-টোয়েন্টির দায়িত্ব পান শাহিন আফ্রিদি। ওয়ানডে ম্যাচ তখন ছিল না বলে কাউকে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।

শাহিন আফ্রিদিকে নেতৃত্ব থেকে সরানোর গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল গত কিছুদিন ধরেই। গত সপ্তাহে পিসিবি প্রধান মহসিন নাকভি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বলেন, আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আফ্রিদির নেতৃত্ব দেওয়া নিশ্চিত নয়। বরং দীর্ঘমেয়াদি চিন্তা করে কাউকে দায়িত্বে আনতে চান তারা। সেটিই বাস্তবে রূপ নিল।

২৩ বছর বয়সী শাহিন আফ্রিদি পিসিবির বিবৃতিতে বলেন, অধিনায়ক বাবরকে পূর্ণ সমর্থন দিয়ে যাবেন তিনি।

“দলের একজন খেলোয়াড় হিসেবে, আমাদের অধিনায়ক বাবর আজমকে সমর্থন করা আমার দায়িত্ব। আমি তার অধিনায়কত্বে খেলেছি এবং তার প্রতি শ্রদ্ধা ছাড়া অন্য কিছু নেই। আমি মাঠের ভেতরে ও বাইরে তাকে সাহায্য করার চেষ্টা করব। আমরা সবাই এক। আমাদের লক্ষ্য একটাই- পাকিস্তানকে বিশ্বের সেরা দল হতে সাহায্য করা।”

শাহিন আফ্রিদির নেতৃত্বে নিউ জিল্যান্ড সিরিজে খেলাকে ‘আনন্দদায়ক’ উল্লেখ করে বাবর বলেন, সামনের পথচলায় সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে এই সতীর্থের পরামর্শ নেবেন তিনি। 

“সে এখনও তরুণ এবং একজন খেলোয়াড় ও একজন নেতা হিসেবে প্রতিদিন উন্নতি করছে। অধিনায়ক হিসেবে সবসময় তার সিদ্ধান্তকে আমি মূল্য দিয়েছি এবং সামনেও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের জন্য ওর সঙ্গে পরামর্শ করব।”