আমদানি মূল্য পরিশোধ করা যাবে জুন পর্যন্ত

ইডিএফ থেকে নেওয়া ঋণে আনা পণ্যের আমদানি মূল্য পরিশোধে সুযোগটি থাকবে না বলে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Nov 2022, 03:15 PM
Updated : 16 Nov 2022, 03:15 PM

বৈদেশিক মুদ্রার টানাটানির কারণে আমদানি পণ্যের মূল্য পরিশোধের সময়সীমা আগামী জুন পর্যন্ত বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। 

ডলার সাশ্রয় ও পণ্য সরবরাহ ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে শিল্পের কাঁচামাল, ব্যাক-টু-ব্যাক এলসির (ঋণপত্র) দায় পরিশোধ ও কৃষি উপকরণ পণ্যের আমদানি মূল্য পরিশোধে এ সুবিধা দিচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বুধবার এ সংক্রান্ত সার্কুলার বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়।

তবে রপ্তানি উন্নয়ন তহবিল (ইডিএফ) থেকে নেওয়া ঋণে আনা পণ্যের আমদানি মূল্য পরিশোধের এ সুযোগ পাওয়া যাবে না।

সার্কুলারে বলা হয়, শিল্পের কাঁচামাল, ব্যাক-টু-ব্যাক এলসির মাধ্যমে আমদানি, কৃষি উপকরণ ও রাসায়নিক সার আমদানির পণ্য মূল্য আগামী বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত পরিশোধ করা যাবে।

এর আগে জানুয়ারিতে পণ্য মূল্য পরিশোধে নির্ধারিত সময় ৬ মাস বা ১৮০ দিন থেকে বাড়িয়ে ২৭০ দিন করা হয়েছিল। গত জুলাইয়ে তা ৩৬০ দিনে উন্নীত করা হয়।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাধারণ নীতি অনুযায়ী, পণ্য আমদানির পর তার মূল্য পরিশোধ করতে সর্বোচ্চ ছয় মাস সময় পেতেন উদ্যোক্তারা।

কোভিড-১৯ এর প্রভাব সামাল দেওয়া ও ডলার সাশ্রয়ে এই সীমা একাধিকবার ছয় মাস থেকে বাড়িয়ে ২৭০ দিন করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

দেরিতে অর্থ পরিশোধ করায় আমদানিকারকদের এই বাড়তি সময়ের জন্য সুদবাবদ অতিরিক্ত অর্থ গুণতে হবে।

এছাড়া বিনিময় হার বিবেচনায় নিলে অর্থ পরিশোধের সময় ডলারের মূল্য আরও চড়লে সেখানেও বাড়তি দাম দিতে হবে আমদানিকারকদের।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক