আখেরি মোনাজাত: বিমানবন্দরের পথে হাতে সময় নিয়ে বেরোনোর অনুরোধ

রোববার উত্তরা ও টঙ্গী হয়ে চলাচলকারী যানবাহনগুলোকে বিকল্প পথে যাওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে ট্রাফিক বিভাগ।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Feb 2024, 08:14 PM
Updated : 3 Feb 2024, 08:14 PM

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম ধাপের আখেরি মোনাজাতের কারণে রোববার উত্তরা ও টঙ্গী হয়ে চলাচলকারী যানবাহনগুলোকে বিকল্প পথে যাওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে ট্রাফিক বিভাগ।

বিদেশগামী যাত্রীদের হাতে সময় নিয়ে বের হওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে ট্রাফিক বিভাগের পক্ষ থেকে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গুলশান ট্রাফিক বিভাগের উপ- কমিশনার আব্দুল মোমেন জানান, ঢাকা থেকে উত্তরামুখী গাড়িগুলোকে নিকুঞ্জ থেকে ঘুরিয়ে দেয়া হবে।

তবে এয়ারপোর্টের যাত্রী আনা-নেওয়া, উত্তরার আবাসিক বাসিন্দা এবং জরুরি সেবার গাড়িগুলো যেতে পারবে।

ঝামেলা এড়াতে বিদেশগামী যাত্রীদের যথেষ্ট সময় নিয়ে বের হওয়ার জন্য এবং সাথে যথাযথ নথিপত্র রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন এ কর্মকর্তা।

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে কুড়িলে যেখানে নেমেছে, সেখান থেকে যানবাহনগুলোকে বিকল্প পথে ঘুরিয়ে দেওয়া হবে। শুধুমাত্র বিমানবন্দর ব্যবহারকারি, উত্তরার বাসিন্দা ও জরুরি সেবার গাড়িগুলো যেতে পারবে।

উপ- কমিশনার জানান, মিরপুরের কালশি হয়ে ইসিবি চত্বর হয়ে যে গাড়িগুলো ফ্লাইওভার দিয়ে উত্তরা যাবে, তাদের ফ্লাইওভারের উপরে ওয়াই ক্রসিংয়ে ঘুরিয়ে বনানীর দিকে পাঠানো হবে।

মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার বাস জাহাঙ্গীর গেইট হয়ে গাবতলী দিয়ে যাবে। রোববার ভোর থেকে এই বিকল্প পথে চলাচল করবে যানবাহনগুলো।

গাজীপুরের ৩ সড়ক বন্ধ

বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতকে কেন্দ্র করে শনিবার রাত ১০টা থেকে গাজীপুরের তিন সড়কে যানচলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মোনাজাত শেষে রোববার দুপুর ২টার পর সড়কগুলো আবার খুলে দেওয়া হবে বলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জানিয়েছে।

সড়ক তিনটি হল ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের আবদুল্লাহপুর থেকে গাজীপুরের ভোগড়া বাইপাস, টঙ্গী-ঘোড়াশাল আঞ্চলিক সড়কের মিরের বাজার থেকে টঙ্গীর স্টেশন রোড পর্যন্ত এবং ঢাকার কামারপাড়া মোড় থেকে টঙ্গীর মন্নু গেইট সড়ক।

গাজীপুর মহানগর পুলিশ ও ঢাকা মহানগর পুলিশের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এসব সড়কে ইজতেমায় অংশগ্রহণকারীদের বহনকারী যানবাহন ছাড়া অন্য কোনো গাড়ি চলতে পারবে না। তবে জরুরি প্রয়োজনের গাড়ি যেমন- অ্যাম্বুলেন্স, গণমাধ্যমকর্মী বা বিভিন্ন সেবা প্রদানকারী গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক থাকবে।

গাজীপুর মহানগর ট্রাফিক পুলিশের উপ-কমিশনার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, “রোববার সকালে আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। এরই মধ্যে অনেক মানুষ ইজতেমা ময়দানে প্রবেশ করছেন। সকালে এর কয়েকগুণ বেশি মানুষ আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে আসবেন। তাই সবদিক বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

“মোনাজাত শেষ হওয়া বা ভিড় না কমা পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে। যেসব যানবাহন ঢাকায় প্রবেশ করবে, সেসব গাড়ি বিভিন্ন পথে ঘুরিয়ে ঢাকায় পাঠানো হবে।”

দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা হবে ৯ থেকে ১১ ফেব্রুয়ারি।