অবৈধ সম্পদ: জিয়া ট্রাস্ট মামলায় দণ্ডিত মনিরুলের ফের ৫ বছর জেল

মনিরুল ইসলাম ও তার স্ত্রীর নামে ‘জ্ঞাত আয়বহির্ভূত’ ১ কোটি ৫১ লাখ ৮৭ হাজার ৯৭৩ টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০১৯ সালে এ মামলা করেছিল দুদক।

আদালত প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Jan 2023, 03:31 PM
Updated : 17 Jan 2023, 03:31 PM

ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খানকে দেড় কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

মঙ্গলবার ঢাকার ষষ্ঠ বিশেষ জজ আল আসাদ মো. আসিফুজ্জামান এ রায় দেন বলে দুদকের আইনজীবী মো. রেজাউল করিম জানান।

রায়ে মনিরুলকে কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৮৪ লাখ ৮০ হাজার ২৫১ টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন বিচারক।

মামলার আরেক আসামি মনিরুলের স্ত্রী শাহনাজ ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে খালাস দেওয়া হয়েছে রায়ে।

২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও মনিরুল ইসলামসহ চারজনকে সাত বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছিল আদালত।

আসামিপক্ষে আইনজীবী মো. রফিক-উল-ইসলাম মঙ্গলবার রায়ের পর বলেন, দুদক মনিরুল ইসলাম খানকে সম্পদের হিসাব বিবরণী দাখিলের নোটিস দিয়েছিল। সে অনুযায়ী ২০১৭ সালের ১৩ এপ্রিল নিজের এবং তার স্ত্রীর সম্পদের হিসাব বিবরণী দাখিল করেছিলেন মনিরুল।

সম্পদ বিবরণী যাচাই শেষে মনিরুল ও তার স্ত্রীর নামে ১ কোটি ৫১ লাখ ৮৭ হাজার ৯৭৩ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০১৯ সালের ৩ জানুয়ারি রাজধানীর রমনা থানায় মামলা করেন দুদকের সাবেক সহকারী পরিচালক ফারুক আহমেদ।

মামলাটি তদন্ত করে ২০২০ সালের ২ মার্চ মনিরুল ও শাহনাজ ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন দুদকের উপ-পরিচালক মোহা. আবুল হোসেন। এরপর মামলাটিতে দুই আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু করে আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষে আটজনের সাক্ষ্য নিয়ে মামলার রায় দিলেন বিচারক।

আরও খবর

Also Read: দুর্নীতির আরেক রায়, খালেদার আরও ৭ বছর সাজা

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক