শনিবার স্কুল খোলা রাখার ইঙ্গিত শিক্ষামন্ত্রীর

“বছরে ৫২টি শনিবার রয়েছে। সেখানে কিছুটা খোলা রেখে রমজানের ক্ষেত্রে যে বিতর্ক হচ্ছে, বিতর্ক সৃষ্টির অপপ্রয়াস যারা করছে, সেটি আমরা বন্ধ করতে পারি।”

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 March 2024, 01:25 PM
Updated : 26 March 2024, 01:25 PM

এ বছর রোজায় স্কুল খোলা রাখা, না রাখার বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ানোয় বিতর্ক এড়াতে আগামী বছর শনিবারও স্কুল খোলা রাখার ইঙ্গিত দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

মঙ্গলবার স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আলোচনা সভায় মন্ত্রী বলেন, বছরের কয়েকটি শনিবার ক্লাস চালু রাখার পরিকল্পনা নেওয়া হবে। 

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শুক্রবার ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি থাকে। আগের বছরগুলোতে পুরো রমজানেও ছুটি পেত শিক্ষার্থীরা। 

চলতি বছর রোজার ১০ দিন প্রাথমিক ও ১৫ দিন মাধ্যমিক বিদ্যালয় খোলা রাখার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল সরকার। বিষয়টি আদালতে গড়ালে উচ্চ আদালত স্কুল বন্ধ রাখার আদেশ দেয়, পরে আপিল বিভাগের রায়ে রোজা স্কুল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত বহাল থাকে।

আগামী বছর সরকার এমন পরিস্থিতিতে যেতে চায় না জানিয়ে মহিবুল হাসান বলেন, “রমজানে স্কুল খোলা নিয়ে বিভিন্ন ধরনের প্রচার-অপপ্রচার হয়েছে। যেহেতু এই বছর বিষয়টি এসেছে, আমরা আগামীতে চেষ্টা করব কীভাবে এটি কাঠামোর মধ্যে আনা যায়। 

“বছরে ৫২টি শনিবার রয়েছে। সেখানে কিছুটা খোলা রেখে রমজানের ক্ষেত্রে যে বিতর্ক হচ্ছে, বিতর্ক সৃষ্টির অপপ্রয়াস যারা করছে, সেটি আমরা বন্ধ করতে পারি।” 

এজন্য আগেই পরিকল্পনা নেওয়া হবে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “যাতে আদালতে গিয়ে মিথ্যা গুছিয়ে বিভ্রান্ত করে রায় নিয়ে এসে সে ধরনের অপচেষ্টা কেউ না করতে পারে, এটা নিয়ে রাস্তায় নেমে মানববন্ধন করতে না পারে, এ বিষয়ে আমরা চেষ্টা করব।”

আগের ধারাবাহিকতায় এ বছরও রোজার মাস বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকায় ছিল। এ বছর ১০ মার্চ থেকে মাধ্যমিক ও নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় আর ১১ মার্চ থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছুটি শুরুর কথা ছিল। 

তবে শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি পূরণ করতে ছুটির তালিকা ও শিক্ষাপঞ্জি আংশিক সংশোধন করে রোজায় বিদ্যালয়ে ক্লাস চালুর রাখার সিদ্ধান্ত জানায় সরকার। 

সেই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে হাই কোর্টে রিট আবেদন করেন আইনজীবী মাহমুদা খানম। তার আবেদনের ওপর শুনানি করে রোজায় স্কুল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত স্থগিত করে দেয় বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাই কোর্ট বেঞ্চ। 

এরপর হাই কোর্টের ওই আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। 

পরে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম হাই কোর্টের আদেশের ওপর স্থগিতাদেশ না দিয়ে বিষয়টি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য রাখেন।

এরপর গত ১২ মার্চ রোজায় দেশের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ রাখতে হাই কোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত করে দেয় সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। 

সর্বোচ্চ আদালতের এই সিদ্ধান্তের ফলে রোজার মধ্যে দেশের সব স্কুল খোলা থাকে।  

আপিল বিভাগের ওই সিদ্ধান্তের পর রোজার প্রথম দশ দিন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ক্লাস চালানোর কথা  জানায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। 

মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান তুহিন ওইদিন বলেছিলেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো ১০ রমজান (২১ মার্চ) পর্যন্ত খোলা থাকবে। 

আর সরকারি এবং বেসরকারি মাধ্যমিক ও নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২৫ মার্চ পর্যন্ত ক্লাস চলবে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান। 

Also Read: হাই কোর্টের আদেশ স্থগিত, রোজায় স্কুল খোলা

Also Read: রোজায় স্কুল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত হাই কোর্টে স্থগিত

Also Read: রোজায় স্কুল খোলা না বন্ধ? আপিল বিভাগে শুনানি মঙ্গলবার