কনক সরওয়ারের বোনের বিরুদ্ধে মামলায় গরহাজির ৬ সাক্ষীকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানা

এই মামলায় নুসরাত শাহরিন রাকাকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করেছিল র‌্যাব। কয়েক মাস পর তিনি জামিনে মুক্তি পান।

আদালত প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Jan 2023, 01:19 PM
Updated : 16 Jan 2023, 01:19 PM

যুক্তরাষ্ট্রে থাকা একুশে টিভির সাবেক সংবাদকর্মী কনক সরওয়ারের বোন নুসরাত শাহরিন রাকার বিরুদ্ধে মামলা করলেও সাক্ষ্য দিতে যাচ্ছেন না র‌্যাবের সদস্যরা।

সোমবারও ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে কোনো সাক্ষী উপস্থিত না হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দিয়েছেন বিচারক এ এম জুলফিকার হায়াত।

এই সাক্ষীদের মধ্যে রয়েছেন- মামলার বাদী র‌্যাব-১ এর রাজেকুল ইসলাম, এসআই শাহীনুল ইসলাম, হাবিলদার রশিদুল, নায়েক সুমন মিয়া ও সিপাহী সোহেল রানা।

ট্রাইব্যুনালের পেশকার শামীম আল মামুন সাংবাদিকদের জানান, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের এই মামলায় সোমবার সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু সাক্ষ্য দিতে না আসায় ৬ জনের বিরুদ্ধে অজামিনযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন বিচারক।

সাক্ষীরা হাজির না হলেও এদিন মামলার আসামি রাকা আদালতে হাজিরা দেন।

Also Read: কনক সরওয়ারের বোন গ্রেপ্তার

Also Read: কনক সরওয়ারের বোন ৫ দিনের রিমান্ডে

২০২১ সালে ৪ অক্টোবর রাতে ঢাকার উত্তরায় বাড়ি থেকে রাকাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে তিনি রাষ্ট্রবিরোধী তৎপরতা চালাচ্ছিলেন বলে র‌্যাবের অভিযোগ।

এরপর তার বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি এবং মাদক আইনে আরেকটি মামলা করে র‌্যাব।

ওই মামলায় রাকাকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছিল। কয়েক মাস পর তিনি জামিনে মুক্তি পান।

মামলা দুটি তদন্ত করে গত বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি র‌্যাবের র‌্যাব-১ এর এসআই (নি.) কাজল চন্দ্র রায় অভিযোগপত্র দিলে তা বিচারের জন্য আদালতে গড়ায়।

কনক সরওয়ার দেশে থাকাকালে ২০১৫ সালে একুশে টিভির সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুস সালামের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলার তদন্তে তাকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ।

পরে জামিনে মুক্তি পেয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান কনক। সেখানে তিনি ফেইসবুকে ও ইউটিউব চ্যানেল খুলে ‘রাষ্ট্রবিরোধী তৎপরতায়’ লিপ্ত বলে বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের অভিযোগ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক