মেট্রোরেল: ৭৫৮০ বর্গফুটের ক্যান্টিন ভাড়া ১০০০ টাকা, তদন্তের নির্দেশ

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান খন্দকার এন্টারপ্রাইজকে এ ভাড়ার জন্য নির্বাচিত করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ডিএমটিসিএল।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 March 2024, 12:32 PM
Updated : 21 March 2024, 12:32 PM

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) উত্তরা ডিপোতে ৭ হাজার ৫৮০ বর্গফুটের স্টাফ ক্যান্টিন মাসিক মাত্র এক হাজার টাকায় ভাড়া দেওয়ার ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট।

এ বিষয়ে একটি রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহর বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেয়।

রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট তানভীর আহমেদ এবং রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সেলিম আজাদ।

সেলিম আজাদ জানান, সেতু বিভাগের সচিবকে বিষয়টি তদন্ত করে আগামী ১ মাসের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

পাশাপাশি ৭ হাজার ৫৮০ বর্গফুটের ওই ক্যান্টিন মাসিক ১ হাজার টাকায় ভাড়া দেওয়ার বিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়েছে।

গত ১৪ মার্চ ডিএমটিসিএল-এর ওই বিজ্ঞপ্তি যুক্ত করে অ্যাডভোকেট তানভীর আহমেদ এ রিট আবেদন করেন।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) পক্ষে মহাব্যবস্থাপক (স্টোর ও প্রকিউরমেন্ট) নজরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “ভাড়া হিসেবে মাসিক এক হাজার টাকা হারে এক বছরের জন্য ভ্যাট ও আয়কর ব্যতীত সর্বমোট ১২ হাজার টাকা মূল্যে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের আওতায় পরিচালনাধীন এমআরটি লাইন-৬ এর উত্তরা ডিপোতে অবস্থিত ৭ হাজার ৫৮০ বর্গফুট স্টাফ ক্যান্টিন পরিচালনার উদ্দেশ্যে ১ জানুয়ারি ২০২৪ তারিখে দাখিলকৃত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান খন্দকার এন্টারপ্রাইজের দরপত্রটি ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড কর্তৃক গ্রহণযোগ্য বিবেচিত হয়েছে।

ওই বিজ্ঞপ্তি জারির সাত দিনের মধ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে ‘তিন বছরের জন্য চুক্তি সম্পাদন করতে সম্মত রয়েছেন’ মর্মে লিখিতভাবে জানাতে বলা হয় বিজ্ঞপ্তিতে। এ ছাড়া কার্য সম্পাদন জামানত হিসেবে তিন লাখ টাকা আগামী ২৮ মার্চ জমা দিতে বলা হয়।

ওই বিজ্ঞপ্তির একটি ছবি ফেইসবুকে ভাইরাল হলে অনেকেই সমালোচনা করেন। এত কম টাকায় এত বড় ক্যান্টিন স্পেস ভাড়া দেওয়ায় যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তারা। 

এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিলক এম এ এন ছিদ্দিক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, "এই ক্যন্টিনটি সবার জন্য উন্মুক্ত না, শুধুমাত্র কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য। এখানে বিষয়গুলো এমন না যে, এক হাজারের বিষয়। এখানে অনেক ছাড় দিয়ে খাবার বিতরণ করবে। আপনারা হয়ত একটা কাগজ পেয়েছেন, আরও কিছু বিষয় আছে।"