পাঞ্জাবে প্রাদেশিক পরিষদ বিলুপ্ত, তত্ত্বাবধায়ক মুখ্যমন্ত্রী নিয়োগের প্রস্তুতি

পাঞ্জাবে ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ ও পাকিস্তান মুসলিম লিগ-কিউ এর সরকার ছিল।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Jan 2023, 04:35 PM
Updated : 15 Jan 2023, 04:35 PM

পাকিস্তানের সবচেয়ে বড় পাঞ্জাব প্রদেশের প্রাদেশিক পরিষদ বিলুপ্ত করা হয়েছে। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী চৌধুরি পারভেজ এলাহির আবেদনে গভর্নর সই না করায় শনিবার সন্ধ্যায় প্রাদেশিক পরিষদ বিলুপ্ত হয়ে যায়।

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ‘ইচ্ছানুযায়ী’ মুখ্যমন্ত্রী পারভেজ এলাহি পাঞ্জাবের গভর্নর বাঘিউর রেহমানকে গত বৃহস্পতিবারেই প্রাদেশিক পরিষদ বিলুপ্ত করার আবেদন পাঠিয়ে দিয়েছিলেন।

এই আবেদনে গভর্নরের সই করার জন্য সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছিল ৪৮ ঘন্টা। গভর্নর এতে সই না করায় ৪৮ ঘন্টা পর আপনা থেকেই পরিষদ বিলুপ্ত হয়ে গেছে।

পাঞ্জাবে ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) ও পাকিস্তান মুসলিম লিগ-কিউ (পিএমএল-কিউ) এর সরকার ছিল।

পাঞ্জাবের গভর্নর এক টুইটে লিখেছেন, “আমি পাঞ্জাবের প্রাদেশিক পরিষদ ভেঙে দেওয়ার প্রক্রিয়ায় সামিল না হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমি বরং সংবিধান এবং আইনকে তার আপন গতিতে চলতে দেব। এমন করা হলে আইনি প্রক্রিয়ার কোনও ব্যত্যায় ঘটবে না। কারণ, সংবিধানে স্পষ্টতই সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথ বাতলে দেওয়া আছে।”

পরিষদ বিলুপ্ত হওয়ার পর গভর্নর বাঘিউর রেহমান মুখ্যমন্ত্রী এলাহিসহ বিরোধীদলীয় নেতা হামজা শাহবাজকেও (প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের ছেলে) তত্ত্বাবধায়ক মুখ্যমন্ত্রী নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরুর আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। তাদেরকে ১৭ জানুয়ারির মধ্যে মনোনয়ন জমা দেওয়ার অনুরোধ জানান তিনি।

পাকিস্তানের ‘দ্য ডন’ পত্রিকা পাঞ্জাব পরিষদের স্পিকারের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জন্য পিটিআই-পিএমএলকিউ জোট এবং বিরোধীদল পিএমএল-এন উভয়কেই আনুষ্ঠানিক আলোচনার পর দুইটি করে নাম প্রস্তাব করতে হবে।

এই প্রার্থীদের নিয়ে দু’পক্ষ সাতদিনের মধ্যে একমত হতে না পারলে বিষয়টি তখন চলে যাবে পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের কাছে। কমিশন তখন নিয়োগের কাজটি করবে।

মুখ্যমন্ত্রীর জন্য প্রার্থী চূড়ান্ত করা নিয়ে পিটিআই ও অন্যান্য দলের নেতাদের মধ্যে এখন দফায় দফায় বৈঠক চলছে।

পাকিস্তানে আগাম সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য ফেডারেল সরকারের ওপর চাপ তৈরি করতে নির্ধারিত সময়ের এক বছর আগেই পাঞ্জাবের প্রাদেশিক পরিষদসহ খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের প্রাদেশিক পরিষদও বিলুপ্ত করার হুমকি আগেই দিয়েছিলেন ইমরান খান।

পাঞ্জাবের প্রাদেশিক পরিষদ বিলুপ্ত হল। এবার সপ্তাহ খানেকের মধ্যে খাইবার পাখতুনখাওয়ার প্রাদেশিক পরিষদও বিলুপ্ত করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পাখতুনখাওয়াতেও আছে পিটিআই-সমর্থিত জোট সরকার।

দুইটি বড় প্রদেশের এসেম্বলি বিলুপ্ত হয়ে গেলে জাতীয় নির্বাচন দেওয়া ছাড়া কেন্দ্রীয় সরকারের আর কোন উপায় থাকবে না। কারণ, পাকিস্তানের প্রাদেশিক পরিষদ ও জাতীয় নির্বাচন একইসঙ্গে হয়। প্রাদেশিক পরিষদ আগেই ভেঙে দেওয়া হলে সংবিধান মেনে ৯০ দিনের মধ্যে আলাদা নির্বাচন দিতে হবে।

ইমরানের দল পিটিআই নিজেদের জনপ্রিয়তা কাজে লাগিয়ে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে দুই প্রদেশেই সরকার গড়তে চায়। দ্রুত জাতীয় নির্বাচনের মাধ্যমে কেন্দ্রে ক্ষমতায় এসে আবার প্রধানমন্ত্রী হওয়া ইমরান খানের মূল উদ্দেশ্য।

ইমরান খান গতবছর এপ্রিলে প্রধনমন্ত্রীর পদ থেকে ক্ষমতাচ্যুত হওয়া এবং নভেম্বরে দলীয় সমাবেশে এক হামলায় আহত হওয়ার পর প্রাদেশিক পরিষদ ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

Also Read: পাকিস্তানে দুটি প্রাদেশিক পরিষদ ভেঙে দেওয়ার হুমকি ইমরানের

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক