ধর্ষণের অভিযোগে চীনা-কানাডীয় পপ তারকার ১৩ বছরের জেল

চীনের রাজধানী বেইজিং-এর একটি আদালত তিন নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে পপ তারকা ক্রিস উ কে এই সাজা দেয়।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Nov 2022, 02:11 PM
Updated : 25 Nov 2022, 02:11 PM

ধর্ষণের অভিযোগে পপ তারকা ক্রিস উ কে ১৩ বছরের জেল দিয়েছে চীন। ৩২ বছর বয়সী এই তারকা চীন ও কানাডা দু’দেশেরই নাগরিক।

চীনের রাজধানী বেইজিং-এর একটি আদালত তিন নারীকে ধর্ষণ এবং একটি উন্মত্ত পার্টিতে লোক জড়ো করার অভিযোগে ক্রিস উ কে দোষী সাব্যস্ত করে এই সাজা দিয়েছে।

গত বছর এক শিক্ষার্থী উ এর বিরুদ্ধে ডেটিংয়ে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ করলে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর একে একে ২৪ জন উ এর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

উ কে নির্বাসিত করা হবে বলে জানিয়েছে আদালত। যদিও চীনের নিয়মানুযায়ী, সাজা খাটার পরই সাধারনত কাউকে বিতাড়িত করা যায়।

বেইজিংয়ের চাওইয়াং জেলা আদালত শুক্রবার বলেছে, ২০২০ সালে নিজের বাড়িতে তিন নারীকে ধর্ষণ করেন উ। সে সময় ওই নারীরা নেশাগ্রস্ত ছিল এবং বাধা দিতে অক্ষম ছিল। এ ঘটনায় সাজা হিসাবে ১১ বছর ছয় মাস জেল হয়েছে উ’র।

আর উন্মত্ত পার্টিতে ব্যাভিচারের জন্য লোক জড়ো করার ঘটনায় উ’র আরও এক বছর ১০ মাসের জেল হয়েছে।

ক্রিস উ এর বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগ এনেছিলেন ডু মেইঝু নামের এক তরুণী। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছিলেন, দুই বছর আগে যখন তার বয়স ১৭ ছিল তখন তিনি ক্রিসের বাসায় গিয়েছিলেন।

সেখানে তাকে একটি পার্টিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল এবং জোর করে মদ খাওয়ানো হয়েছিল। পরদিন তিনি নিজেকে উ’র এর বিছানায় আবিষ্কার করেন।

ক্রিস উ ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। কিন্তু তার বিরুদ্ধে অন্তত ২৪ জন একইভাবে এমন শিকারির মতো আচরণ করার অভিযোগ এনেছে।

তারা সবাই ক্রিসের বাড়িতে উন্মত্ত পার্টিতে নারীদের জবরদস্তি মদপান করিয়ে অপকর্মের অভিযোগ করেছেন। তাছাড়া, করফাঁকি দেওয়ার জন্য এই পপ তারকাকে ৬০ কোটি ইউয়ান জরিমানাও করা হয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক