নাভালনির মৃত্যু: রাশিয়াকে দায়ী করছে পশ্চিম

রাশিয়ার কারাবন্দি বিরোধীদলীয় নেতা নাভালনির সাহসের প্রশংসা করে তাকে ‘মুক্তির লড়াইয়ের যোদ্ধা’ বলে অভিহিত করেছেন পশ্চিমা নেতারা।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Feb 2024, 07:10 AM
Updated : 17 Feb 2024, 07:10 AM

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিরুদ্ধবাদী সবচেয়ে প্রভাবশালী নেতা আলেক্সি নাভালনির মৃত্যুর জন্য রাশিয়াকে দায়ী করছেন পশ্চিমা নেতারা।  

নিজের প্রতিক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, রাশিয়ার আটক কেন্দ্রে এভাবে নাভালনির মৃত্যু হওয়ায় তিনি অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়েছেন। নাভালনির মৃত্যুতে রাশিয়ার সমালোচনায় মুখর হওয়া অন্যান্য পশ্চিমা নেতাদের সঙ্গে যোগ দিয়ে তিনি এ ঘটনার জন্য ‘পুতিন ও তার গুন্ডাদের’ দায়ী করেছেন।

হোয়াইট হাউজে তিনি বলেছেন, “সত্যিই কী হয়েছে তা জানিনা আমরা, কিন্তু এতে কোনো সন্দেহ নাই নাভালনির মৃত্যু পুতিন ও তার গুন্ডারা যা করেছে তার ফলাফল। রাশিয়ার কর্তৃপক্ষ তাদের নিজস্ব গল্প বলতে যাচ্ছে। কিন্তু নাভালনির মৃত্যুর জন্য পুতিনই দায়ী।”   

নাভালনি রাশিয়ার আর্কটিক অঞ্চল খর্পের বন্দিশিবির আইকে-৩ এ ৩০ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করছিলেন। এই বন্দি শিবিরটি ‘পোলার উলফ’ নামেও পরিচিত। শুক্রবার শিবিরের মধ্যে হাঁটহাঁটি করে ফেরার পর নাভালনি অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান আর কিছুক্ষণের মধ্যেই তার মৃত্যু হয় বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

খর্প রাশিয়ার রাজধানী মস্কো থেকে ১৯০০ কিলোমিটার উত্তরপূর্বের একটি শহর।

রাশিয়ার ইয়েমালে-নিনিয়েৎস স্বায়ত্তশাসিত জেলার ফেডারেল কারাগার পরিষেবা এক বিবৃতিতে বলেছে, হাঁটাহাঁটি শেষ করে ফেরার পর তিনি অসুস্থবোধ করেন আর প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই অজ্ঞান হয়ে যান, তার জ্ঞান ফেরানোর চেষ্টা করা হলেও তা আর ফেরেনি। 

সাবেক আইনজীবী নাভালনি (৪৭) রাশিয়ার বিরোধীদলীয় নেতা ছিলেন। এক দশকেরও বেশি সময় আগে প্রকাশ্যে রাশিয়ার প্রবল প্রতাপশালী নেতা পুতিনের বিরোধিতা ও সমালোচনা করে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছিলেন। এভাবেই একসময় রাশিয়ার প্রধান বিরোধীদলীয় নেতা হয়ে উঠেছিলেন তিনি।

রয়টার্স জানিয়েছে, নাভালনির সাহসের প্রশংসা করে তাকে ‘মুক্তির লড়াইয়ের যোদ্ধা’ বলে অভিহিত করেছেন পশ্চিমা নেতারা। তাদের মধ্যে কেউ কেউ কোনো প্রমাণ ছাড়াই নাভালনিকে ‘খুন করা হয়েছে’ বলে অভিযোগ করেন এবং এর জন্য ক্রেমলিনকে দায়ী করেন। এর জন্য পুতিনকে জবাবদিহি করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন তারা।

নাভালনির মুখপাত্র কিরা ইয়ারমিশ বলেছেন, “নাভালনি বেঁচে আছেন এমন আশা প্রায় নেই।”

জার্মানির মিউনিখে এক নিরাপত্তা সম্মেলনে নাভালনির স্ত্রী ইউলিয়া বলেছেন, তার স্বামী মারা গেছেন কি না, তা নিশ্চিত হতে পারেননি তিনি কারণ ‘পুতিন ও তার সরকার অবিরাম মিথ্যা বলে’।

“তবে এটি যদি সত্য হয় তাহলে আমি চাই পুতিন, তার সব অনুগামী, পুতিনের বন্ধুরা, তার সরকার জানুক তারা আমাদের দেশ, আমার পরিবার, আমার স্বামীর ক্ষেত্রে যা করেছে তার দায়ভার তাদের বহন করতে হবে,” বলেছেন তিনি।   

ক্রেমলিন জানিয়েছে, নাভালনির মৃত্যুর কথা পুতিনকে জানানো হয়েছে। তবে এ নিয়ে তিনি প্রকাশ্যে কোনো মন্তব্য করেননি।      

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেশকভ বলেছেন, নাভালনির মৃত্যু নিয়ে পশ্চিমা নেতারা যে প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন তা ‘অগ্রহণযোগ্য ও পুরোপুরি উন্মাদদের মতো’।

আরও পড়ুন: 

Also Read: রাশিয়ার কারাগারে পুতিন সমালোচক নাভালনির মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা