গাজা যুদ্ধবিরতি নিয়ে মার্কিন প্রস্তাবে নিরাপত্তা পরিষদে ভোট

নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে ‘দফায় দফায় আলোচনা করে’ যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবটি তৈরি করা হয়েছে বলে মার্কিন প্রতিনিধি জানিয়েছেন।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 March 2024, 07:25 AM
Updated : 22 March 2024, 07:25 AM

ফিলিস্তিনি ছিটমহল গাজায় অবিলম্বে যুদ্ধবিরতি ও জিম্মি নিয়ে ইসরায়েল-হামাসের চুক্তির আহ্বান জানিয়ে করা এক প্রস্তাবে সমর্থন জানাতে শুক্রবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে অনুরোধ জানাবে যুক্তরাষ্ট্র।

নিরাপত্তা পরিষদের ভোটাভুটিতে যুক্তরাষ্ট্রের এই প্রস্তাব পাস হতে অন্তত নয় সদস্য দেশের সমর্থন লাগবে। আর পরিষদের স্থায়ী সদস্য রাষ্ট্র যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, ব্রিটেন, রাশিয়া ও চীনকে ভিটো দেওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

জাতিসংঘে মার্কিন মিশনের মুখপাত্র নেইট এভেন্স বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন, ১৫ আসনের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে ‘দফায় দফায় আলোচনা করে’ যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবটি তৈরি করা হয়েছে।

এই প্রস্তাব ইসরায়েলের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের মনোভাব আরও কঠোর হওয়ার নিদর্শন বলে ধারণা বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।  

আরও পড়ুন:

Also Read: গাজার পুরো জনগোষ্ঠী ভয়াবহ ক্ষুধার মুখে: যুক্তরাষ্ট্র

Also Read: রাফায় আক্রমণ না করতে বাইডেনের আহ্বান, নেতানিয়াহুর প্রত্যাখ্যান

গাজায় আরও মানবিক ত্রাণ প্রবেশের অনুমতি দিতে ও বেসামরিকদের সুরক্ষায় বেশি কিছু করতে মিত্র ইসরায়েলের ওপর অনবরত চাপ বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। সাড়ে পাঁচ মাস ধরে চলা যুদ্ধের এ সময়কালে এর আগে যুক্তরাষ্ট্র ‘যুদ্ধবিরতি’ শব্দটির বিরোধিতা করেছে এবং গাজায় অবিলম্বে যুদ্ধবিরতির ডাক দেওয়া সব প্রস্তাবে ভিটো দিয়েছে। 

রয়টার্স, যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি করা খসড়া প্রস্তাবটি দেখেছে। প্রস্তাবটিতে বলা হয়েছে, প্রায় ছয় সপ্তাহ স্থায়ী একটি ‘আশু ও টেকসই যুদ্ধবিরতি’ বেসামরিকদের সুরক্ষা দেবে ও মানবিক সহায়তা সরবরাহ অনুমোদন করবে। 

প্রস্তাবের ভাষ্যে যুদ্ধবিরতি এবং যুদ্ধবিরতির সময়টিতে ‘স্থায়ী শান্তি প্রচেষ্টা’ জোরদার করার উদ্যোগগুলো আরও জোরালো করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র, মিশর ও কাতারের মধ্যস্থতায় চলা আলোচনার প্রতি সমর্থন জানানো হয়েছে।  

এ বিষয়ে ওয়াশিংটন ডিসির ইসরায়েলি দূতাবাসকে মন্তব্যের জন্য অনুরোধ করেছিল রয়টার্স, কিন্তু তারা তাৎক্ষণিকভাবে কোনো জবাব দেয়নি।  

বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছেন, ছয় সপ্তাহের যুদ্ধবিরতি ও ৪০ জন ইসরায়েলি জিম্মির বিনিময়ে কয়েকশ বন্দি ফিলিস্তিনির মুক্তি নিয়ে কাতারে চলা আলোচনা এখনও একটি চুক্তিতে পৌঁছতে পারে বলে বিশ্বাস করেন তিনি।

আলোচনা যেখানে এসে আটকে যাচ্ছে তা হল, হামাস বলছে, তারা শুধু যুদ্ধের অবসান ঘটানো একটি চুক্তির অংশ হিসেবে জিম্মিদের মুক্তি দেবে। আর ইসরায়েল বলছে, তারা শুধু অস্থায়ী বিরতি নিয়েই আলোচনা করবে।