আমরা ‘যুদ্ধে আছি’: হামাসের হামলায় হতাহতের পর নেতানিয়াহু

ইসরায়েল কর্তৃপক্ষ শনিবার ভোরের এ হামলায় ২২ জন নিহত হওয়ার দাবি করেছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Oct 2023, 11:15 AM
Updated : 7 Oct 2023, 11:15 AM

হামাসের আকস্মিক মুহুর্মুহু রকেট হামলায় ইসরায়েল এখন ‘যুদ্ধ পরিস্থিতিতে’ আছে জানিয়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু প্রতিশোধ নেওয়ার কড়া হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। তিনি এতে জয়ী হওয়ার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেন।

ইসরায়েল কর্তৃপক্ষ শনিবার ভোরের এ হামলায় ২২ জন নিহত হওয়ার দাবি করে ২৫০ জনের বেশি আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে। হামলার বিষয়ে যেমন বিস্তারিত জানা যায়নি তেমনি নিহতরা নাগরিক কিংবা সেনা সদস্য কি না তা বলা হয়নি।

শনিবারের হামলার পর নেতানিয়াহু বলেছেন, “ইসরায়েলের নাগরিকরা আমরা যুদ্ধে আছি- কোনো অপারেশন নয়, কোনো উস্কানি নয়, একটি যুদ্ধ। সকালে ইসরায়েল ও এর নাগরিকদের বিরুদ্ধে প্রাণঘাতী বিস্ময়কর আক্রমণ চালায় হামাস। ভোর থেকেই আমরা এর মধ্যে আছি।”

বিষয়টি নিয়ে জরুরি ভিত্তিতে ইসরায়েলের নিরাপত্তা প্রধানদের সঙ্গে বৈঠকে বসে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন নেতানিয়াহু।

“আমি নিরাপত্তা প্রধানদের সন্ত্রাসীদের অনুপ্রবেশের জায়গাগুলো প্রথমে খুঁজে বের করি সেগুলো নিরাপদ করার নির্দেশনা দিয়েছি। একইসঙ্গে বড় পরিসরে রিজার্ভ সেনা মোতায়েন করতে বলেছি।”

তিনি আরও শক্তি প্রয়োগ করে প্রতিশোধমূলক যুদ্ধের হুঁশিয়ারিও দেন।

শনিবার গাজা ভূখণ্ড থেকে আকস্মিক ঝাঁকে ঝাঁকে রকেট এসে বিভিন্ন স্থানে বিস্ফোরিত হতে শুরু করলে আশ্চর্য হয়ে পড়ে ইসরায়েলের বাসিন্দারা। রকেট হামলার পাশাপাশি ফিলিস্তিনি বন্দুকধারীরা সীমান্ত অতিক্রম করে ইসরায়েলের বিভিন্ন এলাকায় ঢুকে পড়ে। জেরুজালেমসহ ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলজুড়ে বাসিন্দাদের সতর্ক করে সাইরেন বাজতে থাকে।

ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, তারা যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত অবস্থায় আছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, এ ঘটনায় হামাসের বন্দুকধারীরা নজিরবিহীনভাবে গাজা থেকে ইসরায়েলে অনুপ্রবেশ করে। এটি ২০২১ সালের ১০ দিনের যুদ্ধের পর থেকে হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যে তৈরি হওয়া সবচেয়ে গুরুতর পরিস্থিতি।

বিষয়টি নিয়ে হামাসের উদ্দেশে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “শত্রুদের এমন মূল্য দিতে হবে, যা তারা জানেও না। এই সময়ে আমি ইসরায়েলের সব নাগরিককে সেনাবাহিনীর নির্দেশাবলী এবং হোম কমান্ডের নির্দেশাবলী কঠোরভাবে মেনে চলার আহ্বান জানাচ্ছি।

“আমরা একটি যুদ্ধের মধ্যে আছি এবং আমরা এতে জিতব।”

হামাসের সামরিক কমান্ডার মোহাম্মদ দিয়েফ হামাসের সংবাদমাধ্যমে এই অভিযানের ঘোষণা দিয়ে সব ফিলিস্তিনিদের লড়াই করার ডাক দেন। তিনি জানান, ইসরায়েল লক্ষ্য করে ৫০০০ রকেট ছোড়া হয়েছে।

দিয়েফ বলেন, “পৃথিবীর শেষ দখলদারিত্ব অবসানে মহাযুদ্ধের দিন এটি।”

বিবিসি জানিয়েছে, হামাস এই হামলা চালিয়ে ‘মারাত্মক ভুল করেছে’ বলে মন্তব্য করেছেন ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইওভ গ্যালান্ট।

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে হামাস যুদ্ধ শুরু করেছে মন্তব্য করে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “হামাস সকালে মারাত্মক ভুল করেছে। ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করেছে। ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা শত্রুর বিরুদ্ধে সবখানে লড়াই করছে এবং ইসরায়েল এই যুদ্ধে জয়লাভ করবে।”

ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, তারা গাজায় অভিযান চালাচ্ছে। কিন্তু বিস্তারিত আর কিছু জানায়নি তারা।

এক বিবৃতিতে বাহিনীটি বলেছে, “গাজা ভূখণ্ড থেকে বহু সংখ্যক সন্ত্রাসী ইসরায়েলি ভূখণ্ডে প্রবেশ করেছে।” গাজা ভূখণ্ডের সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোর বাসিন্দাদের ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

ইসরায়েলের গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, দক্ষিণ ইসরায়েলের ইসদেরত শহরে বন্দুকধারীরা পথচারীদের ওপর গুলিবর্ষণ করেছে। সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও ফুটেজে শহরের রাস্তাগুলোতে সংঘর্ষের ঘটনা দেখা গেছে, পাশাপাশি বন্দুকধারীদের জিপ নিয়ে গ্রাম এলাকাগুলোতে ঘুরতে দেখা গেছে।

আরও পড়ুন-

Also Read: হামাসের আকস্মিক হামলায় স্তম্ভিত ইসরায়েল, নিহত ১