ইয়েমেনের মারিব প্রদেশে তীব্র লড়াই, ২৫ হুতি যোদ্ধা নিহত

ইয়েমেনের প্রাকৃতিক গ্যাস সমৃদ্ধ মারিব প্রদেশে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনীর সঙ্গে হুতিদের তীব্র লড়াই চলছে, জোট বাহিনীর যুদ্ধবিমানগুলো সেখানে, রাজধানী সানা ও অন্যান্য এলাকায় ব্যাপক বোমা হামলা চালাচ্ছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Dec 2021, 08:11 AM
Updated : 7 Dec 2021, 08:11 AM

দুই পক্ষের লড়াইয়ে মারিবে ২৫ হুতি যোদ্ধা নিহত হওয়ার পর সোমবার তাদের দাফন করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুদ্ধ থামাতে ব্যাপক আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক উদ্যোগ সত্ত্বেও সাত বছর ধরে চলা এ লড়াই কমার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।

জোট বাহিনী বিমান হামলা বাড়ানোর জবাবে সীমান্ত পেরিয়ে সৌদি আরবে সশস্ত্র ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে হামলা জোরদার করেছে ইরান সমর্থিত হুতিরা।

সোমবার রাতে জোট বাহিনীর এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ইয়েমেন থেকে সৌদি আরবের দিকে ছোড়া একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র রিয়াদের ওপরে বাধা দিয়ে ধ্বংস করা হয়েছে। বাসিন্দারা জানিয়েছেন, সৌদি আরবের রাজধানীজুড়ে বড় ধরনের কয়েকটি বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে।

হুতিদের সামরিক মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারেয়া টুইটারে জানিয়েছেন, জোট বাহিনীর হামলার জবাবে তারা সৌদি আরবে ব্যাপক আক্রমণাত্মক অভিযান চালিয়েছে। মঙ্গলবার এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় জোট বাহিনী মারিবে হুতি অবস্থানগুলোতে ৪৭টি বিমান হামলা চালিয়েছে।

রাজধানী সানায় মারিবের যুদ্ধে নিহত সেনাদের গার্ড অব অনার দিয়েছে হুতিরা। কফিনগুলো পতাকা, ফুল ও নিহতদের ছবিতে সাজানো ছিল, সঙ্গে ছিল সামরিক সঙ্গীত। নিহতদের প্রতি শোক জানাতে তাদের স্বজনরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। 

ইয়েমেনের যুদ্ধে এ পর্যন্ত হাজার হাজার লোক নিহত হয়েছে এবং জাতিসংঘের বর্ণনা অনুযায়ী এ যুদ্ধের কারণে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মানবিক সংকট তৈরি হয়েছে।

ইয়েমেনের এই যুদ্ধকে সৌদি আরব ও ইরানের মধ্যে চলা ছায়াযুদ্ধ হিসেবে দেখেন অনেকে। কিন্তু হুতিদের দাবি, তারা দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যবস্থা ও বিদেশি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করছে। তীব্র হয়ে ওঠা লড়াইয়ের কারণে জাতিসংঘের যুদ্ধবিরতির উদ্যোগ স্থবির হয়ে আছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক