তালেবান নিয়ে করা মন্তব্য ‘বিপজ্জনক মোড়’ নেওয়ায় নিন্দা প্রিন্স হ্যারির

নিজের সদ্য প্রকাশিত বইতে হ্যারি প্রথমবার জানান, আফগানিস্তানে দুই ঘণ্টার যুদ্ধে তিনি ২৫ শত্রুকে শেষ করেছিলেন।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Jan 2023, 11:15 AM
Updated : 11 Jan 2023, 11:15 AM

আফগানিস্তানে সেনা কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্বপালনরত অবস্থায় ২৫ তালেবান যোদ্ধাকে মারার ঘটনা স্মৃতিকথায় গর্বভরে তুলে ধরেছেন বলে যে কথা ছড়িয়েছে তাকে ‘বিপজ্জনক মিথ্যা’ বলে দাবি করেছেন ব্রিটিশ রাজা তৃতীয় চার্লসের কনিষ্ঠপুত্র প্রিন্স হ্যারি।

আত্মজীবনীমূলক বই ‘স্পেয়ার’-এ তিনি যেভাবে ওই হত্যাকাণ্ডের কথা তুলে ধরেছেন, তা নিয়ে অনেকেই সমালোচনা করছেন।

প্রিন্স হ্যারি যেভাবে মৃতদেরকে ‘দাবার ঘুঁটির’ সঙ্গে তুলনা করেছেন, অনেক সামরিক কর্মকর্তাও সেটাকে অন্যায় বলে অভিহিত করেছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

তবে হ্যারি যুক্তরাষ্ট্রের টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তার বক্তব্যকে গণমাধ্যম ভুলভাবে উপস্থাপন করেছে বলে দাবি করেছেন; এই ‘বিপজ্জনক মোড়’ তার পরিবারকে ঝুঁকিতে ফেলেছে বলেও মনে করেন তিনি।

হ্যারি নিজের মন্তব্যের পক্ষে সাফাইও গেয়েছেন। সামরিক বাহিনীর অভিজ্ঞ সদস্যদের আত্মহত্যার পরিমাণ হ্রাসের চেষ্টা করেছিলেন বলেও দাবি করেছেন। 

মঙ্গলবার প্রকাশিত ‘স্পেয়ার’ যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে সবচেয়ে দ্রুতগতিতে বিক্রি হওয়া নন-ফিকশন গ্রন্থ হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশিত হওয়ার আগেই বইটির অনেক অংশ ও উদ্ধৃতি ফাঁস হলেও ব্রিটিশ রাজবংশে কালির ছোপ ফেলা বইটির প্রায় ৪ লাখ কপি ইতোমধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। 

বই প্রকাশের পর ‘দ্য লেট শো’তে দেওয়া বিস্তৃত সাক্ষাৎকারে হ্যারি ভাই প্রিন্স উইলিয়ামের সঙ্গে তার বিরোধপূর্ণ সম্পর্কের কথা বলা এবং ‘গোঁড়া’ ব্রিটিশ গণমাধ্যমকে একহাত নেওয়ার পাশাপাশি বাকিংহাম প্যালেস তার বইটির ক্ষতিসাধনের চেষ্টা করেছিল বলেও ইঙ্গিত দেন।

“শেষ কয়েকটি দিন ছিল কষ্টদায়ক ও চ্যালেঞ্জিং, কারণ বইয়ের অংশবিশেষ ফাঁস রোধে কিছুই করা যাচ্ছিল না,” বলেন হ্যারি।

গণমাধ্যমকে দোষারোপ করে ব্রিটিশ এ প্রিন্স আরও বলেন, তারা ইচ্ছাকৃতভাবেই অংশবিশেষ তুলে ধরে কথাকে ভুলভাবে হাজির করেছে।

“আফগানিস্তানে কত মানুষ মেরেছি, তা নিয়ে আমি গর্ব করেছি বলে তারা যা বলেছে, সন্দেহাতীতভাবেই তা সবচেয়ে বিপজ্জনক মিথ্যা।

“কেউ এ ধরনের কিছু নিয়ে গর্ব করছে, এমনটা শুনলে আমিও রেগে যেতাম। কিন্তু এটা মিথ্যা কথা। এটা সত্যিই সমস্যাজনক ও বিব্রতকর যে, তারা এমনটা করেও পার পেয়ে যাবে। আমার কথাগুলো বিপজ্জনক নয়, কিন্তু তা যেভাবে তুলে ধরা হয়েছে তা আমার পরিবারের জন্য বিপজ্জনক হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ কাজই তারা বেছে নিয়েছে,” বলেছেন তিনি।

হ্যারির ভাষ্য, তিনি আফগানিস্তানে তার অভিজ্ঞতার ব্যাপারে সৎ থাকতে এবং অভিজ্ঞ সেনাদেরকে ‘কোনো লজ্জা ছাড়াই’ তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরার পরিবেশ তৈরি করতে চেয়েছেন।

“আমার সামগ্রিক উদ্দেশ্য ও চেষ্টা ছিল সাবেক সেনাদের আত্মহত্যার সংখ্যা কমিয়ে আনা,” বলেছেন তিনি।

`স্পেয়ার’ বইতেই হ্যারি প্রথমবার জানান যে, আফগানিস্তানের হেলমান্দে দুই ঘণ্টার যুদ্ধে তিনি ২৫ শত্রুকে শেষ করেছিলেন।

“এটা এমন কোনো সংখ্যা নয় যা আমাকে গর্বিত করবে, তবে এটা নিয়ে আমি লজ্জিতও নই। তখন আমি যুদ্ধের উত্তাপ ও ভ্রান্তিতে নিমজ্জিত ছিলাম, তখন তাদেরকে মানুষ ভাবিনি। তাদেরকে মানুষ হিসেবে দেখলে আপনি তাদের মারতে পারবেন না।

“সত্যিটা হচ্ছে, আপনি তাদেরকে মানুষ হিসেবে দেখলে আপনি তাদেরকে আঘাত করতে পারবেন না। তারা ছিল দাবার ঘুঁটি, যাদেরকে বোর্ড থেকে ছুড়ে ফেলা হয়েছিল, ভালোদের মরার আগে খারাপদের মেরে ফেলতে হয়েছিল,” বলেন তিনি।

হ্যারির এমন বক্তব্য গণমাধ্যমে আসার পর সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তারাও এর কড়া সমালোচনায় মাতেন।

আফগানিস্তানে ব্রিটিশ বাহিনীর তৎপরতা দেখভালের দায়িত্বে থাকা সাবেক কর্মকর্তা রিচার্ড কেম্প বিবিসিকে বলেছেন, মৃত তালেবান যোদ্ধাদের যেভাবে দাবার ঘুঁটি বলা হয়েছে, তাতে তিনি উদ্বিগ্ন। কারণ, এই কথাকে শত্রুরা তাদের অপপ্রচারে কাজে লাগাতে পারে।

ইরাকে যুদ্ধের আগে সেনাদের উদ্বুদ্ধ করতে জ্বালাময়ী ভাষণ দিয়ে পশ্চিমা বিশ্বজুড়ে খ্যাতি কামানো সাবেক কর্নেল টিম কলিনস বলেছেন, হ্যারি ব্রিটিশ সেনাদের মনোবল দমিয়ে দিয়েছেন।

আরও পড়ুন:

Also Read: হ্যারির স্মৃতিকথনে রাজবংশে কালির ছোপ

Also Read: প্রিন্স হ্যারির ‘স্পেয়ার’: রাজপরিবারের রহস্যের পর্দা উন্মোচন

Also Read: ‘জঘন্য, ভয়ঙ্কর’ কাহিনীগুলো প্রাসাদ থেকেই ছড়িয়েছে: প্রিন্স হ্যারি

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক