হামাসের ভিডিও নিয়ে এবার টিকটককে ইইউ’র সতর্কবাণী

এর আগে এই ধরনের কনটেন্ট নিয়ে মেটা ও এক্স’কেও সতর্ক করেছে ইইউ। সংস্থাটি বলেছে, তরুণ ব্যবহাকারীদের কাছে জনপ্রিয়তা থাকার বিষয়টি বোঝা উচিৎ টিকটকের।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Oct 2023, 08:22 AM
Updated : 14 Oct 2023, 08:22 AM

ইসরায়েলে গাজার মুক্তিকামী সশস্ত্র দল হামাসের আক্রমণের পর সামাজিক মাধ্যমে ‘ভুল তথ্য’ ছড়ানো নিয়ে টিকটককে সতর্ক করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এর আগে মেটা ও এক্স’কেও একই সতর্কবার্তা দিয়েছে সংস্থাটি।

টিকটকের সিইও জি চিউকে লেখা ইইউ’র চিঠির বিষয়বস্তু হচ্ছে, টিকটক যেন বিষয়টি নিয়ে ‘জরুরী ভিত্তিতে’ কাজ করে। আর ইউরোপীয় আইন মেনে চলতে কোম্পানি কী ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে, তা জানাতে ‘২৪ ঘণ্টার’ সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে এতে।

ইসরায়েলের ওপর ফিলিস্তিনের ইসলামিক সশস্ত্র দল হামাসের আক্রমণ ও এর প্রতিক্রিয়ায় গাজায় ইসরায়েলের বিমান হামলা চালানোর পর থেকেই সামাজিক মাধ্যমে সহিংসতার অবিকৃত ছবির পাশাপাশি এডিট করা ছবি ও সংঘাত নিয়ে ভুল তথ্য জুড়ে দেওয়া ভিডিও’র প্রবণতা বেড়েছে।

এর আগে এই ধরনের কনটেন্ট নিয়ে মেটা ও আগে টুইটার নামে পরিচিতি পাওয়া সামাজিক মাধ্যম এক্স’কেও সতর্ক করেছে ইইউ।

সংস্থাটি বলেছে, তরুণ ব্যবহাকারীদের কাছে জনপ্রিয়তা থাকার বিষয়টি বোঝা উচিৎ টিকটকের।

“শিশু ও তরুণ ব্যবহারকারীদের সহিংস কনটেন্ট ও জঙ্গিবাদের প্রোপাগান্ডা থেকে সুরক্ষা দেওয়ার দায়িত্ব টিকটকের ওপর বর্তায়। এ ছাড়া, মৃত্যুর মতো চ্যালেঞ্জিং ও জীবনের জন্য সম্ভাব্য হুমকিস্বরূপ কনটেন্টও এর মধ্যে পড়ে।” --এক্স-এ বলেন ইইউ’র কমিশনার থিয়েরি ব্রেটন।

এই প্রসঙ্গে টিকটকের মন্তব্য জানতে চেয়েছিল বিবিসি।

এর আগে মঙ্গলবার এক্স-এর মালিক ইলন মাস্ককে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছিলেন ব্রেটন। এর জবাবে সামাজিক মাধ্যমটির সিইও লিন্ডা ইয়াকারিনো বলেন, ইসরায়েলে আক্রমণ চালানোর পর ফিলিস্তিনের সশস্ত্র দল হামাসের লেবেলযুক্ত ‘হাজার হাজার কনটেন্টের’ বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

পাশাপাশি, এক্স থেকে এমন শত শত অ্যাকাউন্ট সরানোর কথাও বলেন তিনি।

বুধবার মেটা প্রধান জাকারবার্গকেও একই সতর্কবার্তা দিয়েছেন ব্রেটন। আর কোম্পানি সামাজিক মাধ্যমগুলোতে এই ধরনের ক্ষতিকারক কনটেন্ট কীভাবে ঠেকাবে, ইইউ’কে তা জানাতে ২৪ ঘণ্টার সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলেন তিনি।

মেটা এর জবাব দিয়েছে কি না, সে প্রসঙ্গে বিবিসিকে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি ইইউ। তবে ইউরোপীয় কমিশনের এক মুখপাত্র বলেন, কোম্পানির ‘কমপ্লায়েন্স’ বিভাগের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে ‘আলোচনা চলছে’।

বিবিসিকে মেটার এক মুখপাত্র বলেন, “শনিবার ইসরায়েলের ওপর হামাসের আক্রমণের পর বিষয়টি ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ ও তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্দেশ্যে আমরা একটি বিশেষজ্ঞ দল গঠন করেছি, যেখানে হিব্রু ও আরবি উভয় ভাষাভাষী ব্যক্তিরা রয়েছেন।”

“আমাদের প্ল্যাটফর্মগুলোকে সুরক্ষিত রাখতে, স্থানীয় আইন বা কোম্পানির নীতিমালা লঙ্ঘন করা কনটেন্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ও সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের থার্ড পার্টির কাছ থেকে তথ্যের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য আমাদের দলগুলো দিনরাত পরিশ্রম করছে। এমনকি সংঘাত শেষ হওয়ার পরও আমরা কাজ চালিয়ে যাব।”

ইয়াকারিনো বলেছেন, এই পরিস্থিতি নিয়ে দ্রুত কাজ করার লক্ষ্যে নিজেদের অভ্যন্তরীণ দলকে ঢেলে সাজিয়েছে এক্স।

ইইউ’র উদ্দেশ্যে লেখা চিঠিতে তিনি বলেন, ইইউ’র বেঁধে দেওয়া সময়সীমার মধ্যে তাদের ৮০টির বেশি অবৈধ কনটেন্ট সরানোর অনুরোধ পূরণ করেছে এক্স।

“আক্রমণের ঘটনা সংশ্লিষ্ট সাতশটির বেশি বিশেষ নোট দেখা গেছে এক্স-এ।”

“এমন পাঁচ হাজারের বেশি পোস্টে এইসব নোট দেখা গেছে, যেগুলোর সঙ্গে একই ছবি ও ভিডিও রয়েছে। আর প্রাসঙ্গিক ছবি ও ভিডিও নতুন করে পুনরায় পোস্ট করলে এ সংখ্যা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই বেড়ে যায়।”

এদিকে, ইইউ’র ‘অবৈধ কনটেন্ট’ সংশ্লিষ্ট অভিযোগের জবাবে ইয়াকারিনো বলেন, ইউরোপোলের কাছ থেকে এখনও কোনো নোটিশ পায়নি এক্স।

ব্রেটন আরও দাবি করেন, এমন কনটেন্ট ঠেকাতে কী ধরনের ‘সময়োপযোগী ও উদ্দেশ্যমূলক’ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তার প্রমাণ দিতে হবে এক্স ও মেটাকে।

অনলাইনে কী ধরনের কনটেন্ট থাকবে না, তা নিয়ে ২০২৩ সালের অগাস্টে ‘ডিএসএ’ নামে নতুন আইন জারি করেছে ইইউ।

‘ডিএসএ’র শর্ত অনুসারে, এক্স ও মেটার ফেইসবুক’সহ বিভিন্ন ‘শীর্ষ সামাজিক মাধ্যম’ থেকে ‘অবৈধ কনটেন্ট’ সরাতে হবে। আর বিষয়গুলোতে সম্ভাব্য ঝুঁকি এড়াতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।