এ সপ্তাহেই চীন যাচ্ছেন মাস্ক, উদ্দেশ্য উর্ধ্বতন মহলের সাক্ষাত

২০২০ সালে টেসলার সাংহাই কারখানার এক অনুষ্ঠানে মঞ্চে নেচে ইন্টারনেট কাঁপিয়েছিলেন মাস্ক। সেই ঘটনার পর এটাই মাস্কের প্রথম চীন সফর।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 May 2023, 03:17 PM
Updated : 29 May 2023, 03:17 PM

তিন বছরের পর এই সপ্তাহে আবার চীন যাচ্ছেন টেসলার সিইও ইলন মাস্ক, উদ্দেশ্য সে দেশের সরকারের উর্ধ্বতন মহলের সঙ্গে সাক্ষাত।

ভিন্ন ভিন্ন তিনটি গোপন সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স লিখেছে, চীন সরকারের উর্ধ্বতন মহলের সঙ্গে সাক্ষাত ও টেসলার সাংহাই কারখানা পরিদর্শনই এই ভ্রমণের উদ্দেশ্য।

তবে, মাস্ক ঠিক কাদের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন তা এখনো নিশ্চিত নয় বলে সফর নিয়ে তথ্যদাতা একাধিক সূত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন। 

টেসলা ও চীনের রাষ্ট্রীয় কাউন্সিলের তথ্য বিভাগে এ সফরের ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে তারা কোনো মন্তব্য করা থেকে বিরত থেকেছে।

এর আগে গত মার্চে রয়টার্স অন্য এক প্রতিবেদনে জানায়, চীনা প্রধানমন্ত্রী লি কিয়াং এর সময় সুযোগ থাকলে এপ্রিলে তার সঙ্গে ইলন মাস্কের একটি সাক্ষাত হতে পারে। 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পর চীন কোম্পানিটির বৈদ্যুতিক গাড়ির দ্বিতীয় বৃহত্তম বাজার এবং তাদের বৃহত্তম করখানাটি সাংহাইয়ে অবস্থিত।

অন্যদিকে মাস্কের মালিকানাধীন টুইটার চীনে নিষিদ্ধ, যাদিও সেদেশ থেকে কেউ কেউ ভিপিএন এর মাধ্যমে টুইটার ব্যবহার করেন।

২০২০ সালে টেসলার সাংহাই কারখানার এক অনুষ্ঠানে মঞ্চে নেচে ইন্টারনেট কাঁপিয়েছিলেন মাস্ক। সেই ঘটনার পর এটাই মাস্কের প্রথম চীন সফর।

এমন একটি সময়ে টেসলা সিইও’র চীন সফরের কথা এল যখন কোম্পানিটি একাধিক সংকট পার করছে। বিশ্বব্যাপী ইলেকট্রিক গাড়ির চাহিদা কমেছে একই সঙ্গে কোম্পানিটি তাদের চীনা প্রতিদ্বন্দীদের সঙ্গে লড়াইয়ে বাজারে নিজের অবস্থান ধরে রাখতে হিমশিম খাচ্ছে।

সাংহাই কারখানায় বছরে সাড়ে চার লাখ গাড়ি উৎপাদনের সীমা বাড়বে কিনা সে ব্যাপারে কিছু জানায়নি টেসলা।

কোম্পানিটি বাৎসরিক সাড়ে ১৭ লাখ গাড়ি উৎপাদন সক্ষম নতুন কারখানার পরিকল্পনা পেশ করেছে স্থানীয় কতৃপক্ষের কাছে। তবে তাদের উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বৈদ্যুতিক ব্যাটারি মেগাপ্যাকের বিভিন্ন পণ্য তৈরি করতে সাংহাইয়ে নতুন একটি কারখানা স্থাপন করার আগ্রহ প্রকাশ করে এপ্রিলে।

ইতোমধ্যে একশোর বেশি গাড়ি প্রস্তুকরককে জায়গা দিতেই চীনের রাষ্ট্রীয় পরিকল্পনা বিভাগকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। ফলে, তারা নতুন কোনো কারখানার অনুমোদন দিতে আগের চেয়ে বেশি সতর্কতা অবলম্বন করছে।

এই মাসের শুরুতে মাস্ক সংবাদসংস্থা সিএনবিসি কে বলেছিলেন,  “চীনে উৎপাদন সক্ষমতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে”। তিনি এর সঙ্গে যোগ করেন “তবে, এর সঙ্গে চাহিদার কোনো সম্পর্ক নেই।”

একই সাক্ষাতকারে মাস্ক যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যকার বিদ্যমান বিরোধ নিয়ে বলেছেন “এই সবার জন্যই উদ্বেগের।”

আগামীতে কম খরচে নতুন প্রযুক্তির বৈদ্যুতিক গাড়ি উৎপাদন করার লক্ষ্যে টেসলা মেক্সিকোতে নতুন একটি কারখানা স্থাপন করতে যাচ্ছে।