খেলা চালিয়ে যাওয়ার বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছিলেন ফেদেরার

চোট কীভাবে অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য করেছে, জানালেন টেনিসের মহাতারকা।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 Sept 2022, 10:24 AM
Updated : 21 Sept 2022, 10:24 AM

হাঁটুর চোট ভোগাচ্ছিল অনেক দিন ধরে। এক বছরের বেশি সময় খেলতে পারেননি প্রতিযোগিতামূলক টেনিসে। ফেরার জন্য অবশ্য কঠোর পরিশ্রম করছিলেন রজার ফেদেরার। কিন্তু একটা সময় বুঝতে পারলেন, শরীর ঠিক সায় দিচ্ছে না। পরিস্থিতি এমনই কঠিন হয়ে উঠেছিল যে, কোর্টে ফেরার বিশ্বাসটাই হারিয়ে ফেলেছিলেন টেনিসের মহাতারকা।

লেভার কাপ দিয়ে প্রতিযোগিতামূলক টেনিসকে বিদায়ের ঘোষণা গত বৃহস্পতিবার দেন ২০ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী ফেদেরার। আগামী শুক্রবার লন্ডনে শুরু হবে এই টুর্নামেন্ট।

২০২১ সালের জুলাইয়ে উইম্বলডনের কোয়ার্টার-ফাইনালে হুবের্ত হুরকাজের বিপক্ষে হারের পর থেকে কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেননি ফেদেরার। গত দুই বছরে তার হাঁটুতে অস্ত্রোপচার হয় তিনবার। ২০২০ সালের শুরু থেকে ১১ গ্র্যান্ড স্ল্যামের মধ্যে মাত্র তিনটিতে খেলতে পারেন ৪১ বছর বয়সী তারকা।

বিবিসি ‘ব্রেকফাস্ট’ অনুষ্ঠানে বুধবার তিনি তুলে ধরলেন, চোট কীভাবে তাকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য করেছে।

“গত তিন বছর আমার জন্য খুব কঠিন ছিল। জানতাম যে, উইম্বলডনে খেলার পর থেকে গত বছর আমি বাজে অবস্থায় ছিলাম। আমি টেনিসে ফেরার চেষ্টা করি, কিন্তু আমি যা করতে পারি তার একটা সীমা ছিল। সত্যি বলতে আমি (খেলা চালিয়ে যাওয়ার) বিশ্বাসটাই হারিয়ে ফেলেছিলাম।”

কয়েক মাস আগে হাঁটুতে একটি স্ক্যান করানোর সময় ফেদেরারের মনে বেঁধেছিল আশা। কিন্তু যেমনটা তিনি আশা করেছিলেন, ফলাফল ততটা সন্তোষজনক ছিল না।

“তাহলে প্রশ্ন এসে যায়- কীভাবে অবসর ঘোষণা করব এবং কখন? যখন বাস্তবতা এসে যায়, তখন আসলে এটি হয়ে যায়। সিদ্ধান্তটা সঠিক ছিল কিন্তু মানসিক চাপের।”

মাত্র ১৬ বছর বয়সে পেশাদার টেনিসে অভিষেক হয় ফেদেরারের। সময়ের পরিক্রমায় টেনিসের সর্বকালের সেরাদের একজন হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন তিনি। এক সময়ের রেকর্ড ৩১০ সপ্তাহ ছিলেন র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে। এর মধ্যে ২৩৭ সপ্তাহ ছিল টানা, যেটি এখনও রেকর্ড।

১০৩টি এটিপি একক শিরোপা ও রেকর্ড আটবারের উইম্বলডন জয়ী তারকা বললেন, ক্যারিয়ারে এত সাফল্য পাবেন, ভাবতেও পারেননি তিনি।  

"আমি মনে করি না যে কেউ বড় হয়ে ভাবে, তারা এতটা জিতবে। জানেন, আপনি উইম্বলডন শিরোপা জিতে খুশি বা র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর হওয়া। কিন্তু আপনি ভাবেন না কত সপ্তাহ, কেবল মিডিয়া এবং ভক্তরা রেকর্ড ভাঙার কথা বলছে।”

"আমার মনে হয়েছে আমি অনেক বেশি অর্জন করেছি। এটি আমার স্বপ্ন, যা আমি এতদিন ধরে দেখেছি। সে কারণেই আমি টেনিস থেকে সরে যেতেও খুশি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক