চোটজর্জর ফ্রান্স, প্রার্থনায় কোচ দেশম

চোট পাওয়াদের তালিকায় সবশেষ যোগ গোলরক্ষক মাইক মিয়াঁ ও ডিফেন্ডার জুল কুন্দের নাম।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Sept 2022, 12:11 PM
Updated : 23 Sept 2022, 12:11 PM

প্রথম পছন্দের গোলরক্ষক হুগো লরিস আগে থেকেই মাঠের বাইরে। চোটের আঘাতে দলে নেই করিম বেনজেমা ও পল পগবার মতো গুরুত্বপূর্ণ সদস্যও। ফ্রান্সের চোট পাওয়া খেলোয়াড়দের তালিকায় এবার যোগ হলো আরও দুটি নাম। উয়েফা নেশন্স লিগে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে চোট পেয়ে ছিটকে গেছেন গোলরক্ষক মাইক মিয়াঁ ও ডিফেন্ডার জুল কুন্দে। 

প্যারিসে বৃহস্পতিবার রাতে নেশন্স লিগে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে ২-০ গোলে জয়ের ম্যাচে ২৩তম মিনিটে বার্সেলোনা ডিফেন্ডার কুন্দেকে হারায় ফ্রান্স। এসি মিলানের গোলরক্ষক মিয়াঁ প্রথমার্ধের পুরোটাই খেলেন। বিরতির পর তার বদলি নামেন আলফুঁস আরিওলা। 

ম্যাচের পর তাদের চোটের বিষয়টি খোলাসা করেন ফ্রান্স কোচ দিদিয়ে দেশম। 

“জুলের সমস্যা হ্যামস্ট্রিংয়ে এবং মাইকের চোট পায়ের পেশিতে। রোববার ডেনমার্কের বিপক্ষে ম্যাচে তাদের পাওয়া যাবে না।” 

হাঁটুর চোট সারাতে সম্প্রতি অস্ত্রোপচার করানো ইউভেন্তুস মিডফিল্ডার পগবার কাতার বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। আর এ মাসের প্রথম সপ্তাহে রিয়াল মাদ্রিদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ম্যাচে ঊরুতে চোট পান বেনজেমা। টটেনহ্যাম হটস্পারের গোলরক্ষক লরিস অবশ্য জাতীয় দলে যোগ দিয়েছিলেন, তবে এর পরপরই ঊরুতে ব্যথা পেয়ে দুই ম্যাচ থেকেই ছিটকে যান তিনি। 

ফ্রান্সের চোট পাওয়া খেলোয়াড়দের সংখ্যা এক ডজন ছাড়িয়ে গেছে। আগামী ২০ নভেম্বর শুরু হবে কাতার বিশ্বকাপ। দুই মাসেরও কম সময় বাকি থাকতে চোটের লম্বা তালিকা ভাবিয়ে তুলছে দেশমকে। সমস্যা উতরাতে এখন কেবল প্রার্থনাই করতে পারেন তিনি। 

“টানা ম্যাচ থাকায় খেলোয়াড়রা অনেক চাপে আছে। মানসিকভাবেও বিষয়টা খুব চ্যালেঞ্জিং। আমরা আরও দুজন খেলোয়াড় হারালাম… আরও দুই জন, যা অনেক। আগামী দুই মাসে যদি আমার দলে আর কোনো চোট সমস্যা না থাকে, তাহলে দারুণ হবে।” 

বিশ্বসেরার ট্রফি ধরে রাখার অভিযানে নামার আগে ফ্রান্সের পারফরম্যান্স আশাব্যাঞ্জক নয়। 

গত বছরের অক্টোবরে নেশন্স লিগের শিরোপা জেতা দলটি গত মার্চ মাসে দুটি প্রীতি ম্যাচেও জিতেছিল। তবে জুনে যেন পথ হারিয়ে ফেলে তারা; নেশন্স লিগের এবারের আসরে প্রথম চার ম্যাচে খেলে থাকে জয়শূন্য। দুটি করে হার ও ড্রয়ে ফাইনালসে ওঠার আশাও সেই সময়ই শেষ হয়ে গেছে তাদের। 

নেশন্স লিগে গ্রুপ পর্বের শেষ রাউন্ডে আগামী রোববার ডেনমার্কের মুখোমুখি হবে ফ্রান্স। এই ম্যাচে জিততে না পারলে প্রতিযোগিতাটির আগামী আসরে দ্বিতীয় স্তরে নেমে যেতে পারে তারা। কারণ, সেক্ষেত্রে অন্য ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে জিতলে ‘এ’ লিগে টিকে থাকবে অস্ট্রিয়া। 

‘এ’ লিগের ১ নম্বর গ্রুপ পাঁচ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে ফ্রান্স। ৪ পয়েন্ট নিয়ে তলানিতে অস্ট্রিয়া। নিয়ম অনুযায়ী, প্রতিটি লিগের প্রতিটি গ্রুপের তলানির দলকে নেমে যেতে হবে নিচের সারির লিগে।  

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক