‘বার্সার এই আচরণ দেখলে ক্রুইফ লজ্জা পেতেন’

বার্সেলোনার আচরণ তাদের মানদণ্ডের অনেক নিচে নেমে গেছে, বলছেন ডাচ কিংবদন্তি মার্কো ফন বাস্তেন।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 August 2022, 03:18 PM
Updated : 17 August 2022, 03:18 PM

ফ্রেংকি ডি ইয়ং ইস্যুতে দুদিন আগে বার্সেলোনার বোর্ডকে ‘মাফিয়া’ বলে ধুয়ে দিয়েছিলেন রাফায়েল ফন ডার ভার্ট। এবার সরব হলেন ডাচ কিংবদন্তি মার্কো ফন বাস্তেন। আয়াক্স ও এসি মিলানের সাবেক এই স্ট্রাইকারে মতে, কাতালান ক্লাবটির আচরণ তাদের মানদণ্ডের ‘অনেক নিচে’ নেমে গেছে।

বার্সেলোনায় ডি ইয়ংয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা চলছে বেশ কিছু দিন ধরে। এই ডাচ মিডফিল্ডারকে পেতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড মুখিয়ে আছে বলে সংবাদমাধ্যমের খবরও পুরনো। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের খবর, এজন্য ৭ কোটি ইউরো দিতে রাজি প্রিমিয়ার লিগের দলটি। আরেক ইংলিশ ক্লাব চেলসিও তাকে পেতে আগ্রহী বলে শোনা যায়।

বিষয়টি নিয়ে সাবেক ফুটবলার ফন ডার ভার্ট বলেন, হুয়ান লাপোর্তার বার্সেলোনা বোর্ড ডি ইয়ংয়ের সঙ্গে ‘মাফিয়ার’ মতো আচরণ করছে। এজন্য স্প্যানিশ ক্লাবটির শাস্তিও দাবি করেন রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক এই মিডফিল্ডার।

এবার বার্সেলোনাকে এক হাত নিলেন ফন বাস্তেন। নেদারল‍্যান্ডসের টিভি অনুষ্ঠান ‘জিগো স্পোর্ট’-এ আলাপচারিতায় মঙ্গলবার ৫৭ বছর বয়সী বলেন, বার্সেলোনার এমন আচরণ দেখলে ক্লাবের কিংবদন্তির ফুটবলার ও কোচ ইয়োহান ক্রুইফও মুখ লুকাতে চাইতেন!

"আমি মনে করি, বার্সেলোনা আজ কেমন আচরণ করছে, তা দেখে ইয়োহান ক্রুইফ লজ্জা পেতেন। আমার মতে, বার্সেলোনার আচরণ তাদের মানদণ্ডের অনেক নিচে নেমে গেছে।”

বার্সেলোনা ও ক্রুইফ এক সুঁতোয় গাঁথা। এই ডাচ কিংবদন্তি বার্সেলোনার জার্সিতে খেলেছেন, কোচও ছিলেন। দুই পরিচয়েই ছিলেন সফল। খেলোয়াড় হিসাবে একটি করে লা লিগা ও কোপা দেল রে জেতা ক্রুইফ কোচ হিসেবে জিতেছিলেন চারটি লা লিগা, একটি ইউরোপিয়ান কাপসহ আরও অনেক শিরোপা।

যে ‘তিকি-তাকা’ ছন্দের জন্য বার্সেলোনা পরিচিত ফুটবলের আঙিনায়। এই ছন্দ ক্রুইফের হাত ধরেই শিখেছিল তারা। কাতালুনিয়ার দলটির ইতিহাসের পরতে পরতে জড়িয়ে থাকা ক্রুইফ ২০১৬ সালে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান।

ডি ইয়ং তারই উত্তরসূরি হয়ে এসেছেন বার্সেলোনায়। কিন্তু তার চলার পথটাই কঠিন করে তুলেছে লাপোর্তার বোর্ড। ফন বাস্তেন তাই বার্সেলোনার বর্তমান বোর্ডকে খোঁচা দিতে টেনেছেন ক্রুইফের প্রসঙ্গ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক