ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে হত্যার আসামি জনতার পিটুনিতে নিহত

তার বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতি, ছিনতাই, অস্ত্র ও মাদকসহ থানায় ছয়টি মামলা রয়েছে।

কেরানীগঞ্জ-দোহার-নবাবগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 Sept 2022, 06:40 AM
Updated : 19 Sept 2022, 06:40 AM

ঢাকার কেরানীগঞ্জ উপজেলায় ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে হত্যাসহ একাধিক মামলার এক আসামি জনতার পিটুনিতে নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি মামুন অর রশিদ জানান, উপজেলার মডেল থানার জিনজিরা থানা ঘাটের পাশের মসজিদের সামনে রোববার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত বিল্লাল ওরফে সাদা ও ধোপা বিল্লাল নোয়াখালী জেলার আব্দুল মমিনের ছেলে। স্ত্রী ও চার সন্তান নিয়ে কেরানীগঞ্জের জিঞ্জিরা মডেল টাউন এলাকায় বাবুল হাজির বাড়িতে ভাড়া বাসায় থাকতো সে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে ওসি বলেন, রাতে বেড়িবাঁধ মাঞ্জাপট্টি এলাকায় ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে স্থানীয়রা টের পেয়ে তাকে ধাওয়া দিয়ে ধরে ফেলে। পরে গণপিটুনি দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ্ মেডিকেল কলেজ (মিটফোর্ড) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

স্থানীয়রা জানান, বিল্লাল ওরফে সাদা ও ধোপা বিল্লাল একজন চিহ্নিত অস্ত্রধারী কুখ্যাত সন্ত্রাসী ও ছিনতাইকারী। কেরানীগঞ্জের জিনজিরা ফেরিঘাট থেকে বাশপট্টি এলাকায় বেড়িবাঁধে সে নিয়মিত ছিনতাই করতো। এছাড়াও সে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল। এ কারণে একাধিকবার জেলও খেটেছে সে।

তার অপকর্মের জন্য কেউ তাকে কিছু বললেই সে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করতো। এই ভয়ে তাকে কেউ কিছু বলতে সাহস পেতো না। সন্ধ্যার পর তার ভয়ে নদীর পার বেড়িবাঁধ দিয়ে হাঁটতে সকলেই ভয় পেতো। এলাকাবাসী তার কর্মকাণ্ডে অতিষ্ঠ হয়ে গিয়েছিলো।

নিহতের স্ত্রীর সোনিয়া বলেন, “রাত সোয়া ৮টার দিকে এক অজ্ঞাত ব্যক্তি ফোন করে জানায় থানাঘাট এলাকায় আমার স্বামীকে কে বা কারা যেনো মারছে। এ কথা শুনে আমি সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি আমার স্বামীকে গণপিটুনি দিয়ে ওরা মেরে ফেলেছে। আমার স্বামী যদি কোনো অন্যায় করে থাকে বা ছিনতাইকারী হয়ে থাকে তাহলে দেশের প্রচলিত আইনে তার বিচার হতো। এভাবে গণপিটুনি দিয়ে কেনো তাকে মেরে ফেলতে হবে!”

তিনি বলেন, “এখন আমি আমাদের এই চার সন্তানকে নিয়ে কি করবো, কোথায় গিয়ে দাঁড়াবো? যারা আমার স্বামীকে পিটিয়ে হত্যা করে আমার সন্তানদের এতিম করে দিয়েছে আমি তাদের বিচার চাই।”

বিল্লালের নামে মোট কতোগুলো মামলা রয়েছে জানতে চাইলে ওসি বলেন, “তার বিরুদ্ধে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় তিনটি ও কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় তিনটি মামলা রয়েছে। এছাড়াও বিল্লাল বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন নাম ব্যবহার করতেন। তাই তার নামে আরও মামলা থাকতে পারে।“

এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে বলে রয়েছে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক