হত্যার পর লবণ মেখে পলিথিনে মুড়িয়ে শিশুকে মাটিচাপা

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পটুয়াখালী পুলিশ।

পটুয়াখালী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 March 2024, 06:00 AM
Updated : 28 March 2024, 06:00 AM

পটুয়াখালীতে গুমের সাত দিন পর মাটির নিচ থেকে লবণ মাখা পলিথিনে মুড়ানো শিশু রাতুলের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. সাইদুল ইসলাম।

গ্রেপ্তাররা হলেন- সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের মো. আনোয়ার হোসেন (৪৫) এবং জৈনকাঠী ইউনিয়নের মো. হানিফ হাওলাদার (৪১)।

বিজ্ঞপ্তিতে পুলিশ সুপার বলেন, আউলিয়াপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা গোলাম রহমান লিটন ঘরামীর দ্বিতীয় শ্রেণি পড়ুয়া ছেলে রাতুল বাবা-মায়ের কাছে একটি স্মার্ট সাইকেল চেয়েছিল। তার বাবা-মা তা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

বিষয়টি জেনে রাতুলকে সাইকেল কিনে দেওয়ার কথা বলে তাদের বাড়ির মালামাল লুট করার পরিকল্পনা করেন আনোয়ার। পরিকল্পনা মত, ১৮ সেপ্টেম্বর রাতে রাতুলের মাধ্যমে ঘুমের ওষুধ খাবারে মিশিয়ে তার বাবা-মা ও দাদীকে অচেতন করা হয়।

এরপর মধ্যরাতে ওই বাড়িতে ঢুকে ঘরে রাখা ডেকোরেটরের সাউন্ড সিস্টেমসহ বিভিন্ন দামি সরঞ্জামাদি, রিকশার ব্যাটারি চুরি করে নিয়ে যায় চোরেরা। এই ঘটনা যেন জানাজানি না হয় সেজন্য রাতেই রাতুলকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।

এরপর লাশের গায়ে লবণ মাখিয়ে পলিথিনে মুড়িয়ে পূর্ব আউলিয়াপুর গ্রামের জয়নাল বিশ্বাসের বাড়ির পেছনে পরিত্যক্ত টিনশেডের ঘরের কাঁচা মেঝেতে মাটিচাপা দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় রাতুলের বাবা বাদী হয়ে মামলা করেন। গ্রেপ্তার করা হয় আসামিদের। পরে তাদের তথ্য মতে, সোমবার রাতে রাতুলের লাশ উদ্ধার করা হয়।

[প্রতিবেদনটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক]